পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/২৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


८छjांडिब्रिजs ●》 দেখে নানা কথা জিগ্যেস করতে লাগল। বাড়ীর তৈরী স্বজি খেতে দিলে একখানা রেকাবি করে। তাও কুহুম আমায় খেতে দিলে না। আমার নাকি পেটের অমুখ । সন্ধ্যের খানিকট আগে আমাকে নিয়ে কুসুম বড় রাস্তার ট্রাম লাইন পার হয়ে এপারে এল । একখানা ট্রাম আসছিল। আমি বললাম—কুষম, দাড়াও–ট্রাম দেখব । —সন্দে হয়েছে । তোমার মা বকবে । —বকুক। –ইস্‌! ছেলের ষে ভারি বিদ্ধি ! —আচ্ছা কুস্কম, তুমি ওকথা বললে কেন ? আমায় কুলচুর খেতে দিলে না। ওরা তো দিচ্ছিল। —তুমি ছেলেমানুষ কি বোঝ। কার মধ্যে কি খারাপ রোগ আছে ওসব পাড়ায় । তোমায় আমি যার তার হাতে খেতে দেব । যার তার ঘরের জিনিস মুখে করলেই হল ! তোমার কি। কার মধ্যে কি রোগ আছে তুমি তা জান ? —আচ্ছা কুস্কম, নাগর’ মানে কি ? —কিছু না । কোথায় পেলে এ কথা ? —ওই যে ওরা তোমায় বলছিল ? —বলুক। ও সব কথায় তোমার দরকার কি ! পাজী ছেলে কোথাকার! কুহুম আমায় বাড়ীর পথে এগিয়ে দেবার আগে বললে—চল, কচুরি এতক্ষণ এনেছে ও । তোমায় দিই । —দাও । আমার খিদে পেয়েছে। —কোন সময়ে তোমার পেটে খিদে থাকে না বলতে পার ? তোমার মাকে যদি সামনাসামনি পাই তো জিগ্যেস করি, ছেলের অত নোলা কেন । —নোলা আছে তো বেশ হয়েছে। কচুরি দেবে তো ? —চল । so —গজ এনেছে ? —ত আমি জানি নে । —গজ কাল দেবে ? —গলির রাস্তাটা কি নোংরা ! বাবা রে বাবাঃ ! —গজা দেবে তো ? —ই্যা গো হা! এখন কচুরি নিয়ে তো রেহাই দাও আমায়। সে রাত্রে কুস্কম আমায় আমাদের কলটার কাছে এগিয়ে দিয়ে চলে গেল। মার কাছে সত্যি কথা বললাম। কুস্কমের বাড়ী গিয়েছিলাম, কুস্কম কচুরি খেতে দিয়েছে। মা খুব বকলেন । কাল থেকে আমায় বেঁধে রাখবেন বললেন। বাবাকেও রাত্রে বলে দিলেন বটে, তবে বাবা সে কথায় খুব যে বেশি কান দিলেন এমন মনে হল না।