পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/৩২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিভূতি-রচনাবলী جه (ه বোর্ডে একটা ছোট অঙ্ক দিয়ে ওদের কষতে বললে স্বশীল । তারা শ্লেটে অঙ্ক কষে আমার কাছে দেখাতে নিয়ে এল। গান্ধীজীর ছবি দেখিয়ে ছেলেমেয়েদের বললাম—কার ছবি বল তো ? - বড় বড় ছেলেরা সবাই বললে–গান্ধীজীর । ছোট ছেলেমেয়ের উত্তর দিলে না । আমি ওদের খুব উৎসাহ দিলাম লেখাপড়ার বিষয়ে । স্বশীলা স্কুলের ੇ দিয়ে দিলে । আমার স্কুল পরিদর্শন উপলক্ষে নাকি আগামী কালও ছুটি থাকবে : ছেলেরা তিন বার বললে—জয়-হিন্দ ! জয়-হিন্দ ! জয়-হিন্দ ! একে একে আমায় নমস্কার করে সবাই স্কুল থেকে বেরিয়ে গেল। বাইরে গিয়ে উচ্চ কলরব ও হাসি-খুশির ঢেউ তুলে যে যার বাড়ীর দিকে চলল । মেয়েরা দেখি মেয়েদের সঙ্গে খুব জমিয়ে তুলেছে। বেলা গেল, যদিও স্বমুখে জ্যোৎস্বরাত, মেঘে ঢাকা আকাশে জ্যোৎস্না বিশেষ সাহায্য করবে না দুৰ্গম পাহাড়ী পথে । সেই জন্যে নারান ক্টাসদ বার বার বলতে লাগল—রাত্রে এখানে থাকুন বাৰু। স্বশীলা এসে বললে—থাকুন রাত্রে আজ। আপনারা থাকলে বড় খুশী হব। বললাম—আপনি বরং একদিন আমাদের ওখানে আক্ষন আপনার বাবার সঙ্গে । আজ ছেড়ে দিন আমাদের । স্বশীলা চুপ করে রইল ! অনেকক্ষণ থেকে একটা প্রশ্ন ওকে জিজ্ঞেস করব ভাবছিলাম । এইবার বললাম— —আপনি কতদূর পড়াশুনা করেছিলেন ? সুশীলা উত্তর দিল—মেদিনীপুর স্কুল থেকে মাইনর পাশ করেছি। একটা ক্রিশচীন মিশনে সেলাই আর ইংরিজি শিখেছি কিছুদিন । —এখানে মাইনে কত পান ? —কুড়ি টাকা । —স্কুলের লাইব্রেরী আছে ? —সামান্য কিছু বই আছে । রবীন্দ্রনাথের বই কিছু অানব এবার । —কি বই পড়েছেন রবীন্দ্রনাথের } ge —কিছুই পড়ি নি। আমি যে মিশনে সেলাই শিখতাম, সেখানকার টিচারের কাছে ওঁর অনেক বই ছিল । ওঁর গানের বই আমার সব চেয়ে ভাল লাগে। —রবীন্দ্রনাথের গান গাইতে পারেন ? —গান গাইতে জানি নে। কোন গানই নয়। শুনতে ভালবাসি। একটা কথা বলব ? এদের মধ্যে যদি কেউ গান করেন একটি, তবে, বড় ভাল হয় । আমাদের বাড়ীর একটি মেয়ে রবীন্দ্রনাথের গান গাইলেন । ওরা সবাই খুব মন দিয়ে শুনল । এবার আমরা বিদায় নিলাম। আসবার পথে ওরা খানিকদূর আমাদের এগিয়ে দিলে,