পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/৩৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ტ¢8 বিভূতি-রচনাবলী খোকা হেঁটেই যাচ্ছিল, অন্ধকার বনঝোপের দিকে তাকিয়ে সে স্থির হয়ে দাড়িয়ে গেল হঠাৎ ৷ —কি হল রে ? –বিচন কাদা ! —না মোটেই কাদা নেই, শুকনে পথ— —ছিয়াল ! —কোথায় ? কোথাও নেই, চলো— —কোলে কবৃ—নে—ভয় কব বে— —এসে তবে— খানিকটা গিয়ে খোকা বল্লে—বাবা । —কি ? —ও বাবা—আমি মুকি খাবো— —বেশ —সন্দেশ খাবো— —বেশ —ও বাবা ! —বোকো না—চুপ করে । —ও বাবা মতিলাল ! —কি বাবা ? —কি করুচিস্ ? —কি আবার করবো? পথ হাটচি । —ম কোথায়—ম ? —বাড়ীতে আছে । —মার কাছে যাই— —সেখানেই তো যাচ্চি— মতিলালের স্ত্রী ঘরের দাওয়ায় দাড়িয়েছিল। ছুটে এসে ছেলেকে কোলে নিয়ে বল্পে—ও আমার সোনার খোকন, আমার রুপোর খোকন, আমার এতটুকু একটা খোকন—কোথায় গিইছিলি রে ? —খোকা হাত দিয়ে একটা অনির্দিষ্ট বস্তু দেখিয়ে বল্লে—ওখেনে-- —ওখেনে ? বেশ রে, বেশ । হ্যাগো, যা-ত খাওয়াও নি তো ? মতিলাল বল্লে—না না । কি দেবেই বা কে এ সব জায়গায়। একটু মিছরি খেয়েচে । অন্নপূর্ণ ওকে দুধ খাইয়ে গুইয়ে দিলে। খোকা থানিকটা উসধুম করে বঙ্গে—বাব কোথায় ?