পাতা:বিভূতি রচনাবলী (একাদশ খণ্ড).djvu/৪৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8ֆ8 বিভূতি-রচনাবলী আমাদের গ্রাম থেকে দুক্রোশ দূরে নিবান্ধ-মদনগঞ্জের বাওড়। এখানে অনেক দিন থেকে এক পুরনো শিবমন্দির আছে। সেবার সংবাদ রটে গেল কোথা থেকে এক ভৈরবী এসে বঁাওড়ের ধারের মন্দিরে রয়েচেন । এও রটে গেল ভৈরবীর বয়স কম, এবং নাকি স্বন্দরী । এই গুজব চাউর হবার পর দলে দলে লোক রওনা দিতে লাগলো, ভৈরবীর দর্শনের আশায় । ভৈরবীর কাছে লোক-যাতায়াতের ফলে কথাটা আরো বেশি রটে গেল যে ভৈরবীটি তরুণী, রূপসী ! হরিকাকা মাছ ধরতে যেতেন নোঁকো করে নিবান্ধার বাওড়ে। র্তারা বর্ধার প্রথমে, গাঙে ঘোলা আসবার প্রথম সপ্তাহে, ভীম মাঝির সতেরো পদ ডিঙি ভাড়া করে রাম পাল এবং ছিবাস কৰ্ম্মকারের সঙ্গে তামাক, টিকে, স্থকো, কন্ধে, ছিপ, হুইল, বোতল ইত্যাদি আয়োজন ও উপকরণ সমভিব্যাহারে প্রতি বৎসর সাড়ম্বরে নিবান্ধা-মদনগঞ্জের খেয়াঘাটের বা পাশে একটা পুরনো জামগাছের তলায় মাছ ধরতে বসতেন। এবারও গিয়েছিলেন। গিয়ে স্বন্দরী ভৈরবীর কথা শুনেছিলেন নিশ্চয় । হরিকাকা নাকি একাই একদিন মন্দিরে যান ভৈরবীকে দর্শন করতে । র্যার হরিকাকাকে জানেন, তারা বুঝতে পারবেন হরিকাকার সেখানে যাওয়াটার মধ্যে আধ্যাত্মিক কৌতুহল ততটা ছিল না, যতটা ছিল একটি নিঃসহায় সুন্দরী নারীকে ভালো ক'রে দেখবার ও ফঁাদে ফেলবার দুষ্ট মতলব । কিন্তু এই যাওয়ার ফল কি হয়েছিল, সেটা এ অঞ্চলের লোকের কাছে এখনো মানুষের জীবনের একটি রহস্যময় ঘটনা হিসেবে বিখ্যাত । এই সময়টা আমি মহকুমার বড়স্কুলে ভর্তি হয়ে স্কুলের বোর্ডিংএ চলে যাই । পূজোর ছুটিতে বাড়ি এসেচি, হরিকাকার মস্ত বড় চণ্ডীমণ্ডপের সামনে দিয়ে আসবার সময় দেখি বকুলতলায় লোকজন নেই, চণ্ডীমণ্ডপের আগড় বন্ধ, বকুলতলায় কাঠের বেঞ্চিগুলো পাতা নেই—যেন ভেঁ ভে—ব্যাপার কি ? দাড়িয়ে দাড়িয়ে ভাবচি, এমন সময় বাড়ীর মধ্যে থেকে একটা কাঠ হাতে রাঙা খুড়ীমা বার হয়ে এলেন। আমাকে সদর রাস্তার ওপর দাড়িয়ে থাকতে দেখে বল্পেন—কে, নিপু? বাবা এলি ? ভালো আছিস ? আর বাবা, কি দেখচে, আমার যা হবার খুব হয়ে গিয়েচে— I আমি এত অবাক হয়ে গিয়েচি যে প্রণাম পৰ্য্যস্ত ভুলে গেলাম। রাঙা খুড়ীমার তো বিধবার বেশ নয় দেখচি। তবে কান্নার কারণ কি ? বল্লাম—কি হয়েচে খুড়ীমা ? কাকা কোথায় ? —সে সব শুনবে বাড়ী গিয়ে। সবাই জানে। আর বাবা, আমার কপালে যা হবার ছিল, খুব হল। বাড়ী গিয়ে প্রথমেই মাকে জিজ্ঞেস করলাম—হরিকাকার কি হয়েচে মা ? রাঙা খুড়ীমা কাদছিলেন কেন ?