পাতা:বিভূতি রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড).djvu/২৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কেদার রাজা ఇ8& দেখল। রাজলক্ষীর জন্যে মনটা কেমন করে উঠল শরতের—সে বেচারী কিছু দেখতে পেলে না জীবনে, আজ সে সঙ্গে থাকলে আনন্দ অনেক বেশী হত । বাড়ি ফিরে শরৎ রান্নাঘরে ঢুকল—প্রভাস কিছুক্ষণ বসে কেদারের সঙ্গে কথাবাৰ্ত্তা বলতে লাগল । কথায় কথায় কেদার বললে, হ’্যা হে, এখানে কোথাও গান-টান হয় না ? আসলে কেদারের এসব খুব ভাল লাগছিল না—শহর, দেবমন্দির, গঙ্গা, দোকান, ট্রাম— এসব খুব ভাল জিনিস। কিন্ত তিনি একটু গান-বাজনা চান, চিরকাল যা করে এসেছেন। শরৎ ছেলেমাশষে, তার ওপর মেয়েমানুষ—ও শহর বাজার, ঠাকুর দেবতা দেখে খুশী থাকতে পারে—কেদারের এখন সে বয়েস নেই । মেয়েমানুষও নন যে পণ্যের লোভ থাকবে । প্রভাস বললে, কি রকম গান-বাজনা বলনে ? .مr –এই ধরো কোনো গান-বাজনার আড্ডা—শুনেছি তো কলকাতায় অনেক বড় বড় গানের মজলিস’ বসে বড়লোকের বাড়ি । একদিন সে-রকম কোনো জায়গায় নিয়ে যেতে পারো ? প্রভাস একটু ভেবে বললে, তা বোধ হয় পারব—দেখি সন্ধান নিয়ে । কাল বলব আপনাকে— o —অনেক শুনেছি বড় বড় ওস্তাদ আছে কলকাতায় । কোথায় থাকে জানো ? তাদের গান শোনবার সবিধে হয় ? —আমি দেখব কাকাবাব । অরণকে জিগগেস করি কাল—ও অনেক খোঁজ রাখে— প্রভাস মোটর নিয়ে চলে যাচ্ছে, এমন সময় শরৎ এসে বললে—ও প্রভাসদা, যাবেন না— —কেন শরৎদি ? —আপনার জন্যে একটা জিনিস তৈরি করছি— —কি বলো না ? —এখন বলছি নে—আসন, খাবার সময় দেবো— - —খবে দেরি হয়ে যাবে শরৎদি— —কিছ দেরি হবে না, হয়ে গেল—গরম গরম ভেজে দেবো— কিছুক্ষণ পরে শরৎ একখানা রেকাবিতে খানকতক মাছের কচুরি এনে বললে—খেয়ে দেখন কেমন হয়েছে। এবেলা ঝি ভাল পোনা মাছ এনেছে প্রায় আধাসর। অত মাছ রান্না করে কে খাবে ? তাই ভাবলাম বাবার জন্যে খান-কতক কচুরি ভাজি— প্রভাস বললে, কাকাবাবকে দিয়ে না ? —তাঁকে এখন না। এখন খেলে রাত্রে আর খেতে পারবেন না। তখন একেবারে দেবো— প্রভাস খাওয়া শেষ করে বিদায় নেওয়ার আগে বললে—কাল শরৎদি, গঙ্গা নাওয়াবো তোমায় । ভেবে রেখো কালীঘাট না পেনিটি কোথায় যাবে। কেদার বললেন, আমার কথাটা যেন মনে থাকে, প্রভাস । ভাল গান-বাজনার সন্ধান পেলেই খবর দেবে— —সে আমার মনে আছে কাকাবাব ৷ পরদিন সকালে উঠে কেদার দেখলেন মেয়ে তাঁর আগেই উঠে বাগানে ফুল তুলে বেড়াচ্ছে। বাবাকে দেখে বললে-rওঠো বাবা, আমি আজ পজো করব ভেবে ফুল তুলছি। কি চমৎকার চমৎকার ফুল ফুটে আছে পকুরের ওপাড়ে। তুমি চেনো এসব ফুল ? বিলিতি না কি ফুল— দেখিই নি কখনো— - কেদার বললেন, বেশ বাগান-বাড়িটা, না মা শরৎ ? কিস্ত— క్కీ o &* بی