পাতা:বিভূতি রচনাবলী (তৃতীয় খণ্ড).djvu/৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অপরাজিত ԵԳ বদলে পাইল, হয়ত বা তাহা সে বুঝিতেও পারিল না । কলিকাতা হইতে সে মামার বাড়ি আসিল । মাতৃসমা বড় মামীমা আর ইহজগতে নাই। গত বৎসর পুজার সময় তিনি—প্রণব তখন জেলে । সেখানেই সে সংবাদটা পায় । গঙ্গানন্দকাটির ঘাটে নৌকা ভিড়িতে তাহার চোখ ছলছল করিয়া উঠিল । কাল ট্রেনে সারা রাত ঘম হয় নাই আদেী, তাড়াতাড়ি সনানাহার সারিয়া দোতলার কোণের ঘরে বিশ্রামের জন্য যাইয়া দেখিল, বিছানার উপর একটি পাঁচ ছয় বৎসরের ছেলে চুপ করিয়া শুইয়া ! দেখিয়া মনে হইল, একরাশ বাসি গোলাপফুল কে যেন বিছানার উপর উপড়ে করিয়া টালিয়ারাখিয়াছে —হ’্যা, সে যাহা ভাবিয়াছে তাই—জনরে ছেলেটির গা যেন পড়িয়া যাইতেছে, মাখ জনরের ধমকে লাল, ঠোঁট কপিতেছে, মেন যেন দিশেহারা ভাব। মাথার দিকে একখানা রেকাবিতে দখানা আধ-খাওয়া ময়দার রুটি ও খানিকটা চিনি। প্রণব জিজ্ঞাসা করিল—তুমি কাজল, না ? খোকা যেন হঠাৎ চমক ভাঙিয়া কতকটা ভয় ও কতকটা বিস্ময়ের দটিতে চাহিয়া রহিল, কোনও কথা বলিল না । প্রণবের মনে ডু কষ্ট হইল—ইহাকে ইহারা এ-ভাকে একা উপরের ঘরে ফেলিয়া রাখিয়াছে ! অসহায় বালক একলাটি শইয়া মুখ বজিয়া জনরের সঙ্গে যঝিতেছে, পথ্য দিয়াছে কি-না, দ খানা ময়দার হাতে-গড়া রুটি ও খানিকটা লাল চিনি । আর কিছু জোটে নাই ইহাদের ? জবরের ঘোরে তাহাই বালক যাহা পারিয়াছে খাইয়াছে। প্রণব জিজ্ঞাসা করিল—খোকা রুটি কেন, সাব দেয় নি তোমায় ? খোকা বলিল--ছাব নেই। 瞬 —নেই কে বললে ? —মা-মাসীমা বললে ছাব নেই । সে জনরে হাঁপাইতেছে দেখিয়া প্রণব ঠান্ডা জল আনিয়া তাহার মাথাটা বেশ করিয়া ধইয়া দিয়া পাখার বাতাস করিতে লাগিল। কিছুক্ষণ এরাপ করিতেই জরটা একটু কমিয়া আসিল, বালক +তকটা সহ হইল। দিশেহারা ও হাঁস-ফসি ভাবটা কাটিয়া গেল। প্রণব বলিল—বল তো আমি কে ? খোকা বলিল—জা-জা-জা-জানি নে তো ? প্রণব বলিল—আমি তোমার মামা হই খোকা । তোমার বাধা বুঝি আসে নি এর মধ্যে ? কাজল ঘাড় নাড়িয়া বলিল—ন-না-না তো, বাবা কতদিন আসে নি। প্রণব কৌতুহলের সরে বলিল—তুমি এত তোৎলা হ’লে কি ক’রে, কাজল ? সে অপর ছেলেকে খুব ছোটবেলায় দেখিয়াছিল। আজ দেখিয়া মনে হইল, অপর ঠোঁটের সঙ্কুমার রেখাটুকু ও গায়ের সদর রংটি বাদে ইহার মাখের বাকী সবটুকু মায়ের মত। কাজল ভাবিয়া ভাবিয়া বলিল-আমার বাবা আসবে না ? —আসবে না কেন ? বাঃ ! —ক-ক-কবে আসবে ? —এই এল বলে । বাবার জন্যে মন কেমন করে বঝি ? কাজল কিছু বলিল না। অপর উপরে প্রণবের খাব রাগ হইল। ভাবিল—আচ্ছা পাষণ্ড তো ? মা-মরা কাঁচ বাচ্চাটাকে বেঘোরে ফেলে রেখে কোথায় নিরদেশ হয়ে বসে আছে । ওকে এখানে কে দেখে তার নেই ঠিক—দয়া মায়া নেই শরীরে? শশীনারায়ণ বড়িয্যে প্রণবের নিকট জামাইয়ের যথেষ্ট নিন্দা করিলেন—বন্ধর সঙ্গে