পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/১১৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ԵրԵմ বিভূতি-রচনাবলী একখণ্ড পাথরের উপর আপন মনে বসিয়া নীল আকাশের দিকে চাহিয়া থাকিয়াছে ? অথচ ও লোকটারই অদৃষ্টে ঘটিতেছে দেশ-বিদেশে ভ্রমণ, সমুদ্রে-সমুদ্রে বেড়ানোযাহার চোখ নাই, দেখিতে জানে না ; আর সে যে শৈশব হইতে শত সাধ পুষিয়া রাখিয়া আসিতেছে মনের কোণে, তাছার কি কিছুই হইবে না ?..কবে যে সে যাইবে! ..কলিকাতার শীতের রাত্রের এ ধোয় তাহার অসহ্য হইয়া উঠিয়াছে। চোখ জালা করে, নিঃশ্বাস বন্ধ হইয়া আসে, কিছু দেখা যায় না, মন তাহার একেবারে পাগল হইয়া উঠে—এ এক অপ্রত্যাশিত উপদ্রব | কে জানিত শীতকালে কলিকাতার এ চেহারা হয় ! ওই লোকটার মত জাহাজের খালাসী হইতে পরিলেও মুখ ছিল! Ship ahoy 1...cofotfoto sixts 7... কলিকাতা হইতে পোর্ট মর্সবি, অস্ট্রেলেশিয়া , ওটা কি উচুমত দূরে ? &qites: 4W 3i:-The Great Barrier Reefএই সমুদ্রের ঠিক এই স্থানে, প্রাচীন নাবিক টাসম্যান ঘোর তুফানে পড়িয়া মাস্তুল ভাঙা পালছেড়া ডুবু ডুবু অবস্থায় অকুলে ভাসিতে ভাসিতে বারে দিনের দিন কুল দেখিতে পান— সেইটাই—সেকালে ভ্যান ডিমেন্‌শ্যাও, বর্তমানে টাস্মেনিয়া . কেমন দূরে নীল চক্রবালরেথা "উড়ন্ত সিন্ধুশকুনদলের মাতামতি, প্রবালের বাঁধের উপর বড় বড় ঢেউয়ের সবেগে আছড়াইয়া পড়ার গম্ভীর আওয়াজ। উপকূলরেখার অনেক পিছনে যে পাহাড়টা মাথা তুলিয়া দাড়াইয়া আছে, ওটা হয়ত জলহীন দিক-দিশাহীন ধুধু নির্জন মরুর মধ্যে “শুধুই বালি আর শুকনা বাবুল গাছের বন, শত শত ক্রোশ দূরে ওর অজানা অধিত্যকায় লুকানো আছে সোনার খনি, কালো ওপ্যালের খনি.এই খর, জলন্ত, মরুরৌদ্রে খনির সন্ধানে বাহির হইয়া কত লোক ওদিকে গিয়াছিল তার ফেরে নাই, মরুদেশের নানা স্থানে তাঁহাদের হাড়গুলা রৌদ্রে বৃষ্টিতে ক্রমে সাদা হইয়া আসিল । অনিল বলিল, চলুন, আজ সন্ধ্যে হয়ে গেল, দাড়িয়ে দাড়িয়ে জাহাজ দেখে আর কি হবে ? -- অপু সমুদ্র-সংক্রান্ত বহু বই কলেজ-লাইব্রেরী হইতে লইয়া পড়িয়া ফেলিয়াছে। কেমন একটা নেশা, কখনও কোন ছাত্র যাহা পড়ে না, এমন সব বই। বহু প্রাচীন নাবিক ও তাহাদের জলযাত্রার বৃত্তান্ত, নানা দেশ আবিষ্কারের কথা, লিবান্টিয়ান ক্যাবট, এরিকসন, কৰ্টেজ ও পিজারে কর্তৃক মেক্সিকো ও পেরু বিজয়ের কথা। দুধর্ধ স্পেনীয় বীর পিজারো ব্ৰেজিলের জঙ্গলে রূপার পাহাড়ের অনুসন্ধানে গিয়া কি করিয়া জঙ্গলের মধ্যে পথ হারাইয়া বেম্বোরে অনাহারে সসৈন্তে লাসপ্রাপ্ত হইল—আরও কত কি । পরদিন কলেজ পালাইয়া দু’জনে দুপুরবেলা স্ট্র্যাও রোডের সমস্ত স্টীমার কোম্পানীর অলিগুলি ঘুরির বেড়াইল। প্রথমে, পি-এও-ওঁ । টিফিনের সময় কেরানীবাবুর নীচের