পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/১৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অপরাজিত ১১৯ গিয়া দেখে কোথাকার একজন ছেলে লাইব্রেরীর একখান বই চুরি করিয়া পালাইতেছিল, ধরা পড়িয়াছে—তাহারই গোলমাল। অপু তাহাকে চিনিল—একদিন আর বছর সে ঠাকুরবাড়িতে খাইতে যাইতেছিল। ওই ছেলেটিও বারাণসী ঘোষ ষ্ট্রীটের দত্তবাড়ি দরিদ্র ছাত্র হিসাবে থাইতে যাইতেছিল, শীতের রাত্রি, খুব বৃষ্টি আসতে দু’জনে এক গাড়ি-বারানার নীচে ঝাড়া ছ’ঘণ্ট দাড়াইয়া থাকে। ছেলেটি তখন অনেক দূর হইতে ইটিা অতদূর থাইতে যায় শুনিয়া অপুর মনে বড় দয়া হয়। সে নাম জানিত, মেট্রোপলিটন কলেজে থার্ড ইয়রের ছেলে তাহীও জানিত, কিন্তু কোনও কথা প্রকাশ করিল ন! কলেজ সুপরিন্টেণ্ডেণ্ট পুলিসের হাতে দিবার ব্যবস্থা করিতেছিলেন, দর্শনের অধ্যাপক বৃদ্ধ প্রসাদদাস মিত্র মধ্যস্থতা করিয়া ছাড়িয়া দিলেন! অপুর মনে বড় আঘাত লাগিল—সে পিছু পিছু গিয়া অখিল মিস্ত্রি লেনের মোড়ে ছেলেটিকে ধরিল। ছেলেটির নাম হরেন। সে দিশাহীরার মত ইটিতেছিল, অপুকে চিনিতে পারিয়া ঝরঝর করিয়া কাদিয়া ফেলিল ! অত্যন্ত অচল হইয়াছে, ছেড়া কাপড়, চারিদিকে দেন, দত্তবাড়ি আজকাল আর থাইতে দেয় না—বধমান জেলায় দেশ, এখানে কোনও আত্মীয়স্বজন নাই। অপু মির্জাপুর পার্কে একখানা বেঞ্চিতে তাহাকে টানিয়া লইয়া গিয়া বসাইল, ছেলেটার মুখে বসন্তের দাগ, রং কলে, চুল রুক্ষ, গায়ের শার্ট কজির অনেকটা উপর পর্যন্ত ছেড়া। অপুর চোখে জল আসিতেছিল, বলিল—তোমাকে একটা পরামর্শ দিই শোনো—খবরের কাগজ বিক্রি করবে ? বাদামভাজা খাওয়া যাকৃ—এসো— এই বাদামভাজী— পূজা পর্যন্ত দুজনের বেশ চলিল। পূজার পরই পুনমুষিক—তেওয়ারী-বোঁয়ের দেন। শোধ করিয়া যাহ থাকিল, তাহাতে মাসিক খরচের কিছু অংশ কুলান হয় বটে, বেশীটাই হয় না। সেকেণ্ড ইয়ারের টেস্ট পরীক্ষাও হইয়া গেল, এইবারই গোলমাল—সারা বছরের মাহিনী ও পরীক্ষার ফী দিতে হইবে অল্পদিন পরেই। উপায় কিছুই নাই। সে কাহারও কাছে কিছু চাহিতে পরিবে না। হয়ত পরীক্ষা দেওয়াই হইবে না। সত্যই তো, এত টাকা—এ তো আর ছেলেখেলা নয় ? মন্মথকে একদিন হাসিয়া সব কথা খুলিয়া বলে। মন্মথ শুনিয়া অবাক হইয়া গেল, বলিল—এসব কথা আগে জানাতে হয় আমাকে। মন্মথ সত্যই খুব খাটিল । নিজের দেশের বার লাইব্রেরিতে চাদ তুলিয়া প্রায় পঞ্চাশ টাকা আনিয়া দিল, কলেজে প্রফেসারদের মধ্যে চাঁদা তুলিয়া ফেলিল, অল্পদিনের মধ্যে অপ্রত্যাশিতভাবে অনেকগুলি টাকা আসিতে দেখিয়া অপু নিজেই আশ্চর্য হইয়া গেল। কিন্তু বাকী বেতন একরূপ শোধ হইলেও তখনও পরীক্ষার ফি-এর এক পয়সাও জোগাড় হয় নাই, মন্মথ ও বৌবাজারের সেই ছেলেটি বিশ্বনাথ—দু’জনে মিলিয়া ভাইস-প্রিন্সিপ্যালকে গিরা ধরিল, অপূর্বকে কলেজের বাকী বেতন কিছু ছাড়িয়া शिtङ इहेरद । এদিকে ঔষধের কারখানায় থাকিবার সুবিধার জন্ত অপু পুনরায় কারখানার ম্যানেজারের নিকটে গেল। এই মাসভিনেক ৰদি সেখানে থাকিবার সুবিধা পায়, তবে পরীক্ষার পড়াটা