পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/২২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃণাস্কুর ২০৩ সত্যিই বড় ভালবাসি হেমেনকে। চাদ ওঠে নি, কিন্তু আকাশে খুব মেঘ নেই ; খুব হাওয়া । রাত দশটা—বাসার বারান্দায় বসে লিখ'চ। দূরের সেই মাকাল লভা দোলানে ভিটের কথা মনে পড়চে–বর্ষাকালে খুব জঙ্গল বেড়েচে । আজ বৈকালটি কি অপূর্ব হয়েছিল সেখানে ...কেবল সেই কথা ভাবি ; সেখন থেকে প্রথম জীবন শুরু করেছিলাম—-কঠ পথে চলেচি, কত আলাপী বন্ধুর হাত ধরে—কিন্তু সে জঙ্গলে-ভরা ভিটেট কি ভুলেচি ! ননীকে একদিন সত্যিকার বাংলার রূপ দেখাব ! তারপর সারা রাত আর ঘুম হল না। এত অপূর্ব জোৎস্নাও কলকাতায় আর কখনো দেখি নি যেন—বর্ষাধোঁত নির্মল আকাশে সে কি পরিপূর্ণ জ্যোৎস্নার খেলা ! সারারাভের মধ্যে আমি ঘুমুতে পারলাম না—গুনগুন করে গাচ্ছিলাম— “প্রলয় নাচন নাচলে যখন আপন ভুলে, হে নটরাজ, জটার বাধন পড়ল খুলে" —কেমন একটা অনিন্দ ও উত্তেজনা এল—সারারাতের মধ্যে চোখ বুজল না মোটে । সেদিন নীরদবাবু ও সুশীলবাবুর সঙ্গে মোটরে বহুকাল পরে যশোর গিয়েছিলাম—আবার স্কুলটা দেখলাম,--আবার চাচড়া দেখলাম। শীতের সন্ধ্যায় চাচড়া দশমহাবিদ্যার মন্দির দেখতে দেখতে কি অদ্ভূত ভাব যে মনে জাগছিল—চারিধারের ঘন সবুজ বেত ঝোপ, পুরনো মজা দধি-মঙ্গলের পর মহল নির্জন, সঙ্গীহীন, ধূসর সান্ধা ছায়ার শ্বহীন অথচ গভীর রহস্যময় পাথরপুরীর মত দেখাচ্ছিল। পেছনের ঘাট-বাধানে প্রকাণ্ড দীঘিটাই বা কি অদ্ভুত রাজা রামচন্দ্র থায়ের চাল ধোয় পুকুরই বা দেখলাম কতকাল পরে। একটা সুন্দর প্লট মাথায় এসেচে ।...এই उi७ পুী, বনেদী ঘরের দারিদ্র্য, জীবনের দুঃখ *è–Back-ground-cą R সময়ই পুরাতন দিনের আড়ম্বর ও ঐশ্বর্য—সহস্র tradition—এই সব নিয়ে । সাধনার কথা বলছিলাম কাল কৃষ্ণধনবাবুর সঙ্গে। সাধন চাই। আমি টুইশানি ছেড়ে দেব। অপরাজিত তো শেষ হয়েচে—এইবার ছাপা আরম্ভ হবে—কিন্তু এই সময় সাধনা চাই । ( ১ ) ভাল ভাল উপন্যাসকার ও ছোটগল্প লেখকদের পুস্তক পাঠ। (3 ) of so, Biology s Astronomy xwc5 wta8 বই পড়া । (৩) Philosophy সম্বন্ধে আধুনিক চিন্তাবীরদের বই পড়া। ( 8 ) Sir Thomas Browne 8 Anatole France-R st erfas stri ștz পড়া । 疊 ( ৫ ) চিস্তা, ভ্রমণ, গল্প ও আডিডা—ভাল সম্প্রদায়ে । (৬) পল্লীতে যাওয়া ও Quaintধরনের লোকের সঙ্গে আলাপ । সাধনা ভিন্ন উচ্চ Outlook কি করে develop করে ? খানিকটা মাত্র আমার করেচে —মরও চাই—আরও অনেক চাই ।