পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/২৯৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মৌরীফুল ২৬৭ মোক্ষদা সকলের সামনে সেই বাটিটা দেখাইয়া বলিতে লাগিলেন, স্তথো ভোমরা সকলে, তোমরা ভাব শাশুড়ী-মার্গ বড় দুষ্ট-নিজের চোখে দেখে নাও ব্যাপার, কি সর্বনাশ হয়ে যেত এখনি, যদি আমি না দেখতাম—দোহাই বাবা তারকনাথ, কি ঠেকানই আজ ঠেকিয়েছ এক-উঠান লোক—সকলেই শুনিল রামতনুর দুরন্ত পুত্রবধূ স্বামীর ভাতে বিষ না কি মিশাইয়া খাওয়াইতে গিয়া ধরা পড়িয়াছে। কেউ অবাক হইয়া গেল, কেউ মুচকি হাসিয়া বলিল—ও সব আমরা অনেককাল জানি, আমরা রীত দেখলেই মাহৰ চিনি, তবে পাড়ার মধ্যে বলে এতদিন--- কে একজন বলিল-জিনিসটা কি তা দেখা হয়েছে?-- মোক্ষদা ঠাকরুণের গাল-বাদ্যের রবে সে কথা চাপা পড়িয়া গেল । গাঙ্গুলী মহাশয় রামতনুকে বলিলেন—গুরু রক্ষণ করেছেন ! এখন যত শীগগির বিদেয় করতে পার তার চেষ্টা করে, শাস্ত্রে বলে, দুষ্ট ভার্যে। আর একদিনও এখানে রেখে না। সমস্ত দিন পরামর্শ চলিল । সন্ধ্যার সময় ঠিক হইল কাল সকালেই গাড়ি ডাকিয় আপদ বিদায় করা হইবে, আর একদিনও এখানে না, কি জানি কখন কি বিপদ ঘটাইবে । বিশেষত: পাড়ার মধ্যে ও-রকম দজ্জাল বউ থাকিলে পাড়ার অন্ত অন্য বউ-ঝিও দেখাদেখি ঐরকমই হইয়া উঠিবে। সেদিন রাত্রে মুশীলাকে অন্ত একঘরে শুইতে দেওয়া হইল-ইহা মোক্ষদা ঠাকরুণের বন্দোবস্ত—কাল সকালেই যখন যেখানকার আপদ সেখানে বিদায় করিয়া দেওয়া হইবে, তখন আর তাহার সঙ্গে সম্পর্ক কিসের ? রাত্রে শুইয়া শুইয়া কত রাত পর্যন্ত তাহার ঘুম আসিল না। ঘরের জানালা সব খোলা, বাহিরের জ্যোৎস্না ঘরে আসিয়া পড়িয়াছিল। তাহার মনে কাল ও আজ এই দুইদিন অত্যন্ত কষ্ট হইয়াছে—সে স্বভাবত নির্বোধ, লাঞ্ছনা ভোগের অপমান সে ইহার পূর্বে কখনও তেমন করিয়া অনুভব করে নাই, যদিও মারধর ইহার পূর্বে বহুবার খাইয়াছে। তাহার একটা কারণ এই যে আজ ও কলিকার দিনের মত শ্বশুরশাশুড়ী ও এক-উঠান লোকের সামনে এভাবে অপমানিতাও সে কোনদিন হয় নাই। তাই আজ সমস্ত দিন ধরিয়া তাহার চোখের জল বাধ মানিতেছে না-কাল মার খাইয়া পিঠ কাটিয়া গিয়াছে ও হাত দিয়া ঠেকাইতে গিয়া হাতের কাচের চুড়ি ভাঙ্গিয়া হাতও ক্ষতবিক্ষত হইয়াছে। তাহার সেই স্বামী, ষে স্বামী পাচছয় বৎসর পূর্বে এমন সব রাতে তাহাকে সমস্ত রাত ঘুমাইতে দিত,ন, সে পান খাইতে চাহিত না বলিয়া কত ভুলাইরা পান মুখে গুজিয়া দিত—সেই স্বামী এরূপ করিল ? পান খাওয়ানোর কথাটিই মুশীলার বার-বার মনে আসিতে লাগিল। রাত্রের জ্যোৎস্না ক্রমে আরও ফুটিল। তখন চৈত্রমাসের মাঝামাঝি, দিনে তখন নতুন-কচিপাত"-ওঠা গাছের মাথার উপর উদাস অলস বসন্ত-মধ্যাহ্ন ধেীয়া ধেীয়া রৌদ্রের উত্তীয় উড়াইয়া ८दफ़ांब्र-“नेौर्ष हैौर्ष निन७णि अंत्यू-अंश्न-श्ब्रङिद्र षषा निब्र कगिब्रा कणिब्रां नौब्र थांद्वद्रब्र