পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৪১৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অভিযাত্রিক S$ND চেয়ে চেয়ে দেখলে কিন্তু কিছু বলতে সাহস করলে না, কেন যে সে কিছু বললে না, তা আমি আজও জানিনে। একাই প্রাসাদের মধ্যে ঢুকে পড়লুম—বিভিন্ন ঘর দেখে বেড়ালুম, কেউ কিছুই বললে না। একটা বড় হলঘরে অনেকগুলো বড় বড় বিলিতি ছবি। হল ঘরটিতে মুন্দর মুনীর কোচ কেদারা পাতা, মুদীর্ঘ ভিনিসিয়ান আয়না দেওয়ালে, সিত্ত্বের কাজ করা পরদ, ভেলভেটে মোড়া গদি, চমৎকার কাপেট পাতা মেজের ওপর। একটি ছোট সুন্দরী খুকি ঘরটিতে বসে প্রাইভেট টিউটারের কাছে লেখাপড়া করচে। খুকিটি এত চমৎকার দেখতে ! আমি প্রাইভেট টিউটারের সঙ্গে আলাপ করলুম। তার বাড়ি কুমিল্লা জেলায়, নামট আমার মনে নেই, আমার সঙ্গে অতি অল্পক্ষণের মধ্যেই তার খুব ভাব হয়ে গেল । তিনি বললেন—আপনাকে দরবার-ঘর দেখাই চলুন। ওখানে সকলকে যেতে দেওয়া হয় ন—ঘর বন্ধ থাকে, দাড়ান চাবিটা আনিয়ে নিই। দরবার-ঘরে ঢুকে তার ঐশ্বর্য ও জাকজমক দেখে মুগ্ধ হয়ে গেলাম। এককোপে উচু বেদীর ওপর হাতীর দাতের সিংহাসন, সোনালী ব্রোকেডের কাজকরা লাল মখমলের গদি মোড়া। পাছে ধূলা-বালি জমে নষ্ট হয় বলে সিংহাসনটি তুলো দিয়ে ঢাকা। দুটি প্রকাও হাতীর দাত সিংহাসনের দুদিকে, দেওয়ালের গায়ে দাড় করানো। মাস্টার মশার বললেন, হাতীর দত্ত-জোড় স্বাধীন ত্রিপুরা রাজ্যের পর্বত্য অঞ্চল থেকে কোনো কুকি সামন্তসর্দার রাজদরবারে নজর দিয়েছিল। — কুকি সামস্তের কোথায় থাকে ? —পার্বত্য অঞ্চলে ওদের জায়গীর, মহারাজ ওদের ফিউডাল চিফ, দরবারের সময়ে কুকি সামস্ত সর্দাররা তাদের জাতীয় পোশাক পরে যখন আসে, সে একটা দেখবার জিনিস ! ওদের সঙ্গে তীর ধন্থক নিয়ে কত অনুচর আসে। সে সময় থাকেন তো দেখতে পাবেন। —কতজন সামন্ত আছে ? —ঠিক বলতে পারবে না, তবে পনেরো কুড়ি জনের কম নয়। ওদের অঞ্চল ওরা নিজেদের ধরনে শাসন করে, ওদের নিজেদের আইন ও রীতি-নীতি সেখানে চলে। বিকেলে আমি "কুঞ্জবন প্যালেসের দিকে বেড়াতে গেলুম। পথে এক জায়গায় একটা ছোট চিড়িয়াখানা আছে মহারাজের । তার মধ্যে Ciret Cat জাতীয় একটি বস্তজন্তু আমার বড় ভালো লেগেছিল। সেটা দেখতে কতকটা বিড়ালের মত—কিন্তু বিড়ালের চেয়ে অনেক বড়। যঙবার গায়ে লাঠি দিয়ে খোচা দেওয়া যায়, ততবার সেটা দাত মুখ খিচিয়ে ‘ফ্যাচ’ করে তেড়ে আসে, BD BBB BBB BBB BBB BB BBS K BB BDD DD DDSDBBB BBS দেওয়া যাবে, ততবার সেটা ঠিক ওই একই রকম ভাবে ফ্যাচ করে তেড়ে আসবেই। ভার ওই ব্যাপারটা দেখা শেষকালে আমার এমন ভালো লেগে গেল যে অতিথিশালা