পাতা:বিভূতি রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৪৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


80e বিভূতি-রচনাবলী তার পায়ের কাছে রাখলুম। তিনি সেটা হাতে তুলে নিয়ে কোথায় ষেন রেখে দিলেন। মূখের ভাৰ দেখে মনে হল আমার প্রতি যথেষ্ট প্রসন্ন হয়েচেন । সাধুজী বেদান্তের ব্যাখ্য' আরম্ভ করে দিলেন—মায়া কি, অধ্যাত্ম কি, ইত্যাদি। আমার সে সব গুনবার আগ্রহের চেয়েও তার মুখে তার ভ্রমণকাহিনী শুনবার আগ্রহই ছিল প্রবলতর। কিন্তু সাধুজীর মনে কষ্ট দিতে পারলুম না—আধঘণ্টা ধরে চুপ করে বসে খেদাস্তব্যাখ্যা স্তনবার পরে আমি তার কাছে বিদায় নিয়ে আবার মন্দিরের পিছনে একখানা পাথরের ওপরে এসে বসলুম। তখন সূর্য অস্ত যাচ্চে। রক্ত স্বর্যাস্তের আভ পড়েচে গঙ্গার বুকের বীচিমালায়, গৈবীনাথের মন্দিরচুড়ার ত্ৰিশূলের গায়ে, এপারের গাছপালায়। জামালপুরের মারফ পাহাড় পশ্চিম আকাশের কোলে নীল মেঘের মতে দেখাচ্চে । গৈবীনাথের মন্দিরের ঠিক নীচে পাহাড়ের গারে একটা ছোট গুহা আছে, সেটাও দেখে এসেচি। তার মধ্যে এমন কিছু দেখবার নেই। তবে এই রকম রক্তাত অপরাত্ত্বের আকাশতলে পাহাড়ের ওপরে পা ঝুলিয়ে গঙ্গায় এবং গঙ্গার অপর-তীরবর্তী স্থবিস্তীর্ণ চরভূমির দিকে চোখ রেখে নিরিবিলি বসে থাকার বিরল সৌভাগ্য ঘটেছিল বলেই গৈবানাখ-তীর্থদর্শন আমার সফল হয়েছিল । কতক্ষণ বসে থাকবার পরে হঠাৎ কথন জলে চাদের প্রতিবিম্ব উজ্জ্বলতর হয়েচে দেথে চমক ভাঙলো। সন্ধ্যার কিছুক্ষণ পরে ট্রেন—সেবার যে ট্রেনে কাজরা থেকে এসেছিলাম ভাগলপুরে । এদিকে মনে প্রবল বাসন রাত্রিটা এখানে থাকলে ভালো হয়। জগত্যা সাধুবাবাজার কাছেই আবার গেলাম। তিনি শুনে বললেন—মন্দিরের মোহাস্তজীকে একবার বলে দেখ । অামি তোমাকে বড়জোর একখানা কম্বল দিতে পারি, অঙ্ক কিছুই নেই আমার । মোহাস্তজীকে গিয়ে ধরলাম। আমার আবেদন শুনে তিনি বোধ হয় একটু বিস্মিত BBBBDJDBBD SDDDB BB BBBS BBSBBB BBB BB BBBS BBBB BBBB থাকতে পারে । কিন্তু তোমার সঙ্গে বিছানা আছে ? —কিছু নেই, তবে সাধুজ একখানা কম্বল দেবেন বলেচেন । —এখানে গঙ্গার বুকে রাত্রে বেশ শীত পড়বে, খোলা বারান্দায় শুয়ে থাকতে পারবে ? —খুব । ও আমার অতোস আছে। আপনি থাকবার অনুমতি দিলেই হয়। —থাকে, কিন্তু খাবে কি ? —কিছু দরকার নেই। --তোমার খুশি । কিন্তু সেখান থেকে জ্যোৎস্নায়াত্রে গঙ্গার তরঙ্গভঙ্গ দেখা আমার অদৃষ্ট ছিল না— সাযুজাঁর কাছে আবার ফিরে গিয়ে দেখি মুঙ্গেরের এক শেঠজি সেখানে বসে। আমার প্রস্তাব শুনে শেঠজি জামায় প্রতিনিবৃত্ত করবার চেষ্টা করতে লাগলেন। তিনিও স্টেশনে যাবেন, তার