পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বেলা দশটা। ছাত্রের দল ইতিমধ্যে আসিতে শুরু করিয়াছে, ৰঙুলোকের ছেলের মোটরে, মধ্যবিত্ত ও গরিব গৃহস্থের বাড়ীর ছেলেরা পদব্রজে। স্কুলের পুরানো চাক্ষর মথুরাপ্রসাদ ছেড়া ও মলিন থাকির চাপকান পরিয়া তৈরী, চাপকানের হাতের কাছটাতে রাঙা স্বতায় একটা ফুটবলের শিল্ডের মত নকশার মধ্যে ইংরেজী ‘এম' ও 'আই' অক্ষর দুইটি জড়াপটি খাইয়া শোভা পাইতেছে ; কারণ, স্কুলের নাম মডান ইন্‌ষ্টিটিউশন, যদিও হেডমাস্টার ক্লার্কওয়েল সাহেবের ব্যক্তিগত চিঠির উপরে ছাপানো আছে “ক্লার্কওয়েল্স মডান ইনষ্টিটিউশন", আসলে সেটা ভুল ; কারণ, স্কুলটি সাহেবের নিজের নয়, অনেক দিনের পুরানো স্কুল, কমিটীর হাতে আছে, ক্লার্কওয়েল সাহেব আজ পনেরো বছর এখানকার বেতনভোগী হেডমাস্টার মাত্র। এই স্কুল-বাড়ীর দোতলার পিছন দিকের তিনটি ঘর হেডমাস্টারের থাকিবার জন্য BB BDDYBBB BBB BBBBS BBB BBS BBS BB BBBB BBB BBB ষাটের কাছাকাছি, মাথার চুল সাদা, মোটাসোটা, সৰ্ব্বদা ফিটফাট হইয়া থাকেন, টাইট এদিক ওদিক নড়িবার জো নাই, শাটের সামনেট নিখুত ইঞ্জি করা, চকচকে কলার, ভাল কাটছাটের কোট, পেন্টালুনের পা দুটিতে চমৎকার ভাঙ্গ, যাহাকে বলে ‘নাইফ-এজ-ক্রিজ ' —ছুরির ফলার মত সরু খাজ। সাহেব অবিবাহিত, কেউ কেউ বলে সাহেবের স্ত্রী আছে, কিন্তু সে সাহেবের কাছে থাকে না। তবে এখানে মিস সিবসন নামে একজন তরুণী ফিরিঙ্গী মেম সাহেবের সঙ্গেই থাকে, কেউ বলে সাহেবের শালী, কেউ বলে কী রকম বোন, কেউ বলে আর কিছু-মিস্ সিবসনও স্কুলের টীচার, নীচের ক্লাসে ইংরেজী পড়ায় ও উচ্চারণ শেখায়। মিস সিবসনের নামে এ স্কুলে নীচের ক্লাসের দিকে ছোট ছোট ছেলের বেশ ভিড়। আশপাশের অবস্থাপন্ন গৃহস্থেরা মেমসাহেবের কাছে পড়িতে পাইবে ও নিখুত ইংরেজী উচ্চারণ শিখিতে পাইবে, এই লোভে ছেলেদের এই স্কুলে ਦੂਿ করে। বেলা দশটা বাজিতে না বাজুিতে ছোট ছোট ছেলেরা স্কুলের সামনের কম্পাউণ্ডে ছুটাছুটি করিতেছে, মারামারি করিতেছে, হৈ-চৈ চীৎকার লাফালাফি দাপাদাপি জুড়িয়া দিয়াছে। হঠাৎ দোতলার জানালাপথে ক্লার্কওয়েল সাহেবের মুখখান বাহির হইল ও বিষম ৰাজখাই চিৎকার শোনা গেল : ও ইউ মথুরা, স্টপ দি নয়েজ-বাবালেীগকো চুপ করমে বোলো— মুহূর্ভে সব চুপ। ছেলেরা মুখ উচু করিয়া হেডমাস্টারকে দেখিয়া লইল, এবং এ ওর মুখের দিকে চাহিয়া যে বাহার মাৰ্ব্বেল পকেটের মধ্যে পুরিয়া ফেলিল ও উম্ভত ঘুষি নামাইল । —মথুরা—এই মথুরা