পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/২২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নবাগত & >č বিড়ি খেয়ে। আমরা গরীব লোক, নিয়ে যাও দরখাস্তখানা, আজ ন'দিন ছাটাইটি করচি। ধান মঞ্জুর হ'লে তোমায় আরো কিছু দেবো— আরদালি কি ভেবে দরখাস্ত নিয়ে চলে গেল । ছ’ঘণ্টা কারো দেখা নেই—কেউ ডাকে না। সাহেব তো দূরের কথা, আরদালিরও চুলের টিকি আর দেখা যায় না। নকুড় চকত্তি বল্লে—কি ব্যাপার হে, দু'আন পয়সাই গেল এ বাজারে—থাকলে তবুও ছেলেপিলের জন্য দু’খানা গজ টজ নিয়ে গেলে— · এমন সময় সেই ছোকৃরা আরদালি বারান্দায় বেরিয়ে বল্লে-রামলাল বাৰু কার নাম ? নকুড় চক্কত্তি বল্পে—যাও হে, তোমায় ডাক পড়েচে-দেখে এসো—আমার কথাটাও একটু ব'লো। না খেয়ে মরে যাবে ছেলেপিলে— বারান্দ পার হয়ে সামনের সাজানো মাঝারি গোছের ঘরে ঢুকেই আমি সামনে একটি মহিলাকে দেখে একেবারে চমকে গেলাম । খতমত খেয়ে সরে যাব কিনা ভাবচি, এমন সময়ে মেয়েটি হাত তুলে আমায় নমস্কার করলে। আমি আরও থতমত খেয়ে গেলাম। হাতের একখানা কাগজ দেখিয়ে মেয়েটি বল্লে—এ দরখাস্ত আপনি করেচেন ? আমি আপনার নাম দেখে বুঝেচি আর গ্রামের নাম দেখে—আমায় চিনতে পারলেন না ? \ নিজেকে খানিকটা সামলে নিয়ে মেয়েটির দিকে ভালে ক'রে চাইলাম। কোথায় যেম দেখেচি, কিন্তু মনে করতে পারলাম না কোথায় দেখেচি । মেয়েটি মৃদু হেসে বল্লে—আমাদের বাড়ী আপনি গিয়েছিলেম—আমার বাবার নাম শ্ৰীসীতানাথ রায়, কাপাসীপাড়া— আমার সমস্ত শরীর যেন কাঠের মত আড়ষ্ট হয়ে গিয়েচে । এই সেই স্মৃতি, সীতামাখ রায়ের মেয়ে | মেয়েটি আবার বল্লে—আমি আপনাকে আরও দুদিন দেখেচি। দেখেই চিমেছিলাম, একটু সন্দেহ ছিল—আজ দরখাস্তে আপনার নাম দেখে আর সন্দেহ রইল না। উনি একটু বিশ্রাম করচেন। আপনার দরখাস্ত ওঁকে ব'লে মঞ্জুর করিয়েচি—নিয়ে যান। চেহারা খারাপ হয়ে গিয়েচে আগেকার চেয়ে। একটু চা খাবেন f আমি যেন সংজ্ঞা ফিরে পেয়ে বল্লাম—না—না—এখন থাকৃ— মেয়েটি হাত তুলে নমস্কার ক’রে বল্লে-এবার এখানে এলে কিন্তু আবার দেথা করবেন। ওঁকে বলেচি আমার বাপের বাড়ীর দেশে আপনার পিসিমার বাড়ী। অধিষ্ঠি আসবেন, চা খাবেন সেদিন-- 鬱 আমি দরখাস্ত হাতে নিয়ে বার হয়ে এলাম। সন্তায় ছ'মণ ধানের পারমিট পেয়েছি। স্ত্রী-পুত্র এখন দু’মাস খেয়ে বঁাচবে।