পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/২৪৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


పరీక বিভূতি-রচনাবলী সে চাইতে বাবে ? এত বেহায় সে এখনও হয় নি। তার বাবা চণ্ডীমণ্ডপ থেকে হেঁকে বললেন—ও পুটি, হাতায় করে একটু আগুন নিয়ে এস মা= চণ্ডীমণ্ডপের দোর পর্যন্ত গিয়ে ও শুনলে ওর বাবা আর একজন অজ্ঞাত লোকের মধ্যে নিম্নোক্ত কথাবার্তা : —তা হলে পালকির বন্দোবস্ত দেখতে হয়— —আজ্ঞে পালকি কোথায় মিলবে ? ষোলডুবুরির কাহারপাড়া নিৰ্ব্বংশ। পালকি যইবার মাছুয নেই এ দিগরে । —তবে ঘোড়ার গাড়ী নিয়ে এস বনগা থেকে । —এ কাদা-জলে দশ টাকা দিলেও আসবে না। আসবার রাস্তা কই ? —ওরা বিদেশী লোক । বর আসবার ব্যবস্থা আমাদেরই করে দিতে হবে, বুঝলে না? আমরাই পরিচি নে, ওরা কোথায় কি পাবে ? হিম হয়ে বসে থেকে না। যা হয় হিললে লাগিয়ে ভাও একটা । —আচ্ছা বাবু, বলদের গাড়ীতে বর আনলি কেমন হয় ? —আরে না না—সে বড় দেখতে খারাপ হবে। সে কি—ন না। শুন্‌চি ওরা ইংরিজি বাজন। আনচে। বলদের গাড়ীর পেছনে ইংরিজি বাজনা বাজিয়ে বর আসবে, তাতে লোক হাসবে । —কেন বাবু তাতে কি ? বলদের গাড়ীতে কি আর বর যায় না ? একেবারে আপনাদের বাড়ীর পেছনে এসে থামবে—সেই তো ভালো । —বলদের গাড়ীতে বর যাবে না কেন ? সে কি আর ভদ্রলোকের বর যায় ? তা ছাড়া পেছনের ওপথ আইবুড়ো পথ । ওখান দিয়ে বর আসবে না, সামনের তেঁতুলতলার রাস্ত দিয়ে বরকে আনতে হবে। তুমি আজই যাও দিকি যষ্ঠতলা। সেখানে ক’ঘর কাহার আছে শুনিচি। সেখান থেকেই পালকি আনাতে— —সে যে এখান থেকে তিনকোশ সাড়ে তিনকোশ রাস্ত বাবু। পুটি সেখানে আর দাড়ালো না। স্থবোধ আসবে বর সেজে বলদের গাড়ীতে ? হি— ছি—সে বড় মজা হবে এখন। ধুতরো ফুলের মালা গলায় দিয়ে ? দৃশুটা মনে কল্পনা করে নিয়েই হাসতে হাসতে পুটির দম বন্ধ। —ও তিমু-তিন্থ রে-শোৰু শোন একটা মজার কথা— তিন্থ চার বছরের খুড়তুতে ভাই। উঠোনের নীচে দিয়েই যাচ্চে । সে মুখ উচু করে ওর দিকে চেয়ে বললে—কি লে ভিডি ? —জানিস্ ? এই আমাদের বাড়ী বর আসবে— ? آReسے . -- –ধ্যা-রে । ধুতরো ফুলের মালা পরে বলদের গাড়ী চেপে ইংরিজি বাজনা বাজিয়ে— हि-श्-ि