পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/৩৮৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অসাধারণ ●ጫ¢ সঙ্গে সঙ্গে আমার শরীরে কি যেন একটা অদ্ভূত ভাৰ হোলো। একটা অদ্ভূত আনন্দের ভাব, লে মুখে বলে বুঝিয়ে দিতে পারবো না, বিশেষতঃ তখন আমি বালক, বিশ্লেষণ ও তুলনা করে দেখবার ক্ষমতা ছিল না। এখন এক একবার ভাৰি, পাগল ঠাকুরের পায়ের ধুলো নেওয়াটা হয়তো একটা ছুতো—আমাকে স্পর্শ করবার জন্যেই ও পায়ের ধুলো নিতে চেয়েছিল । তারপর ও একটা গান করলে । গান আমার মনে নেই, কিন্তু বেশ গলার স্থর ওর । গান গাইতে গাইতে ওর চোখে জল এল, গাল বেয়ে জল পড়তে লাগলো । ‘ও আমার হৃদ-কমলের পরমগুরু সাই—এই কথাটা বার বার ছিল গানুের মধ্যে। গান শেষ করেও বার বার বলতে লাগলো—কিছু খাওয়াতে পারলাম না, বাবাঠাকুর । একটা পাকা তাল নিয়ে যাও, বড় করে দিতে বলো তোমার মাসিমাকে । আমার ভয় এখন সম্পূর্ণরূপে কেটে গিয়েছিল। আমি বললাম—তুমি কি কর এখানে ? পাগল ঠাকুর হা হা করে হেসে উঠে আমার দিকে চাইল। তারপর সস্নেহ স্বরে বললে— বাবাঠাকুরের কথা শোনো । হাসতে হাসতে মরি যে ! খুব আনন্দ জুটিয়ে দিলেন সন্দেবেলা গুরুগোসাই । বলে কিনা—কি কর ? আমি এখানে থাকি বাবাঠাকুর । আর কি করবো ? গুরুগোসাইকে ডাকি । —কে লে ? —ওই, ওই— পাগল আঙুল তুলে আকাশের দিকে দেখিয়ে বললে—উনি। আমার খুব ভালো লাগছিলো এই অদ্ভুত লোকটাকে । এই অল্পক্ষণের মধ্যেই আমি তার দিকে যথেষ্ট আকৃষ্ট হয়ে পড়েচি দেখলাম । এই সময় সন্ধ্যের অন্ধকার নামলো । গায়ের রোয়া আর দেখা যায় না। ও উঠে দোরে জল দিয়ে ধুনো জাললে। উঠোনের একটা ইটের মতো উচুমতো জায়গাতে প্ৰদীপ নিয়ে রেখে দিলে। আমি বললাম—তোমাদের তুলসীগাছ নেই ? —কেন বাবাঠাকুর ? —জামাদের বাড়ী আছে। মাসিম পিদিম দেয় সন্দেবেলা । —তুলসী রাখি নে তো বাবাঠাকুর । গুরুগোসাঁই ওই পি'ড়িতেই, আছেন। তুলসী কি হবে ? —তুমি পূজো কর না বুঝি ? তুলসী পাতা না হোলে পূজো হয় না। পাগল ঠাকুর হেলে বললে—হয় বাবা, হয়। কেন হবে না ? লব ফুলে, সৰ পাতাতেই র্তার পূজো হয়। তবে পূজোআচ্চা আমি করি নে বাবা । —কর না ? —ন, বাবাঠাকুর । আমি ছোট জাত, বুনো। তেনার পূজো কি বত্তে পাৱি আমি ? DDDttDD gB BBB DD DDB BB BBD DttD D DD BBBB BB BBS