পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/৩৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


�ዓm বিভূতি-রচনাবলী করবে তোমরা-বাওনের। আমাদের ছোট জেতের হাতে ও সাজে না। পূজো কত্তে নেই জামাদের । —তুমি তো তালো লোক । —কে বললে আমি ভালো লোক ? —সবাই বলে, আমি শুনিচি । —তুমি যখন বলচে বাবাঠাকুর, তখন ভালোই হবে । এই সময় আমার মাসতুতে ভাই ফিরে এসে আমায় ডাক দিল, তার সঙ্গে আমি বাড়ী চলে গেলাম। বাড়ী যাওয়ার আগে ওরা আমাকে তাল দিলে, শসা দিলে, আবার আসতে বলে দিলে । পাগল ঠাকুরের সঙ্গে আমার এই প্রথম দেখার পরে প্রায় পাঁচ বছর কেটে গেল। মাসিমার বাড়ীর সেই গ্রামে আমার যাওয়া ঘটে নি এই পাচ বছরের মধ্যে । ১৯১৩ সালে তৃতীয় শ্রেণীতে প্রমোশন পেয়ে ইস্কুলের ঝক্কি কিছুদিন এড়াবার জন্যে চলে গেলাম আবার মালিমার বাড়ী । মাসিম বললেন—এসো, এসে বাবা । বুড়ো মাসিকে ভুলেই গেলে । থাক-থাক—বেঁচে शाहक, ौर्षछौरौँ श्७ । আমার মনে আছে, দু-একটা কথার পরে আমি বুড়ীকে জিজ্ঞেস করলাম—মাসিম, সেই পাগল ঠাকুর আছে তো ? মাসিমাকে বুড়ী বললাম বটে কিন্তু তিনি সত্যিকার বুড়ী এখনও ঠিক নন। যৌবনে তিনি সুন্দরী ছিলেন । আমি যখনকার কথা বলচি তখনও তিনি তত মোটা হন নি, বেশ দোহার, মুঠাম চেহারা, ফর্দা রং, বড় বড় চোখ। মাথার চুল কেবল ছোট করে ছেটে ছিলেন বিধবা হওয়ার পর । দেহে জরার আক্রমণের কোনো চিহ্ন তখনো স্পষ্ট হয়ে ওঠে নি। তার ওপর মাসিম ছিলেন গ্রাম্য জমিদারের ঘরের বধু । চাল-চলনে একটা সেকেলে বনেদী ও BttBDD DBBS BBB BBBB BSBB BBBB BBBS BBBB BBBB DDD বললেন—কে ? ও সেই পাগল ঠাকুর—ই্য, বেঁচে আছে । কেন, তার খোজে তোমার কি দরকার ? . এখানে "তোমার কথাটার প্রয়োগ যে বিরক্তিস্থচক তা আমার বুঝতে দেরি ছেলে না । মাসিম জমিদারের বাড়ীর বোঁ । তার বোনপো যে তাদেরই গ্রামের এক ছোট জাতের গুরুর লঙ্গে মিশৰে এটা তার ভালো লাগলো না। অবিপ্তি এটুকুও বলা উচিত যে গুন নামেই তখন জমিদার, কিছুই ছিল না তখন, সংসারে বিষম টানাটানি চলছিল, তাও জানতাম। নতুবা নন্দ জমিদারের ছেলে হয়ে কাটা'র হাট থেকে বেগুন বয়ে আনবে কেন भिं हांd? ? # बानिवाब arभन्न जवाब गिांव-चांबांब ८करना शबकब्र ८नहे नषांrन । cनबांद्र