পাতা:বিভূতি রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড).djvu/৪৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


5vՀ বিভূতি-রচনাবলী একটা বর্ণ পার হয়ে বোনাইগড়ের পথে এদের কাছে গিয়েছিলাম। একটা বিশাল শাল গাছের তলায় এরা বলে ভাল রান্না করছিল ঘটিতে । ভাত আগেই রান্না হয়ে গিয়েছিল। চারিধারে নিজন জঙ্গল । ভীষণ শীত । জিজ্ঞেস করলাম—কি নাম ? কোথা থেকে আসচো ? ওরা বাংলা বোঝে না । হো ভাষার মধ্যে উড়িয়া ভাষার ক্রিয়াপদ মিলিয়ে এদের কথা ভাষা । যা বলে, তার মানে যে তার গাড়োয়ান, কাঠ বইবার জন্তে যদি গাড়ীর দরকার হয়, সেজন্তে জঙ্গলে কাজ খুঁজতে এলেচে । সঙ্গে ওদের দেখলুম শুধু একখানা করে খেজুর পাতার বোন চেটাই, একখানা পাতলা রেজাই, একটা ছাড়ি আর একটা ঘটি । ” জিজ্ঞেস করলাম—কোথায় শোবে রাত্রে ? —এইখানে । গাছতলায় । —হাতীর ভয় আছে এখানে জানো ? কাল রাত্রে আরাকুসিদের বড় বিব্রত করেচে। —আগুন আছে বাবু। 魏。 —জাগুন তো আরাকুলিদেরও ছিল, বুনো হাতী আগুন মানেনি। দাত দিয়ে ও-বছর একটা লোককে গিথে ফেলেছিল মাটির সঙ্গে । সাবধানে থাকাই ভালো । —না বাবু, হাতীর ভয় করলে আমাদের চলবে না। কোথায় যাবো বাৰু ? —এই ভীষণ শীতে শোবে এই গাছতলায় ! —আমরা চিরকালই তাই করি। আগুনের ধারে শুলে শীত লাগবে লা । এর কিছুই গ্রাহ করে না, না বুনো হাতী, না এই দুৰ্দ্দান্ত শীত, না এই অন্ধকারে আরণ্যস্বজনীর নিজনতা। এই সব বন্য অঞ্চলে এরা মানুষ, আজন্ম যাতায়াত করচে এই বনপথে, বৃক্ষতলে নিশি যাপন এদের দৈনন্দিন অভ্যেস। ওদের ভাল নামলো! শুধু ডাল আর ভাত শালপাতায় ঢেলে খেতে লাগলো। ডালের মধ্যে সাদা সাদা কি ভাসচে দেখে বল্লাম—ওগুলো কি ভালে ? —পেকূচি। —সেটা কি ? --स्रेण । –তাই বা কি ? বুঝলাম না জিনিসটা । মনে হোল কোনো জংলী ফলটল হবে । পরে বনবিভাগের হিন্দিজানা কৰ্ম্মচারী নিকোডিম ছোকে জিজ্ঞেস করতে জানলুম, জিনিসটা ছোল মানকচু। এই হোল ভারতবধ । ভারতবর্ষকে বুঝতে হোলে এই সব লোকের সঙ্গে মিশতে হবে। DD BBB BBB BBS BB BB BBB BBS BBB BB DD DD BBB BBS BBBB HDD DS DD DBB BSiD DD D DttB BB BBB BB BBB BBB D DD 'नेिक श्राई ४७ ।। g