পাতা:বিশ্বকোষ ঊনবিংশ খণ্ড.djvu/১৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


s ल? [ ১৩৮ ] লগ্ন কালে জাতক ভূমিষ্ট হওয়ায় ধনুৰ্লয়ে তাহার জন্ম হইয়াছে স্থিরীরত হইল। যদি জাতক রাত্রি ৯ টার সময় না জন্মিয় রাত্রি ২ টার সময় জন্মগ্রহণ করিত, তাহা হইলে পর পর লগ্নমান ক্রমশঃ যোগ করিতে হইত। ,এইরূপ নিয়মে লৱস্থির করিতে হয়। বিভাগে জন্ম হইলে সুৰ্য্যোদয়কাল হইতে ধরিয়া লগ্ন স্থির করিতে হয় । § লগ্নস্থর না হইলে জাতকের ফলাফল কিছুই নির্ণত হয় না, এইজন্য বিশেষ যত্নসহকারে লগ্ন নিরূপণ করা আবশ্যক, লগ্ন নিরূপিত হইলে নিঃসন্দেহ শাস্ত্রোক্ত ফল ফলিয়া থাকে । অনেক জ্যোতির্বিদ লগ্নের প্রতি বিশেষ লক্ষ্য না করিয়া ফল নির্ণয় করিয়া থাকেন, কিন্তু সেই ফল কিছুতেই মিলে না। এইজন্য শাস্ত্রে লগ্নপরীক্ষার বহুবিধ উপায় নির্দিষ্ট হইয়াছে, অতিসংক্ষিপ্ত ভাবে ইহার বিষয় আলোচিত হইতেছে । অনেক সময়ে এইরূপ ঘটনা হইয়া থাকে যে, যখন কোন শিশু জন্ম গ্রহণ করে, তখন সেখানে ঘটিকা যন্ত্র না থাকায় অথবা নিশ্চিতরূপে সময় নিরূপণ করিতে না পারায় আধুমানিক সময় ধরিয়া লগ্ন স্থির করা হয়, কিন্তু আনুমানিক সময় ধরিয়া যে লগ্ন নিরূপিত হয়, তাহা প্রকৃত কি না, তাহ পরীক্ষার নানা উপায় আছে। যথা— সঙ্গেস্থলগ্নপরীক্ষা । বৃষ, কৰ্কট, কন্যা, বিছা, মকর ও মীন ইহার অন্যতম লগ্ন হইলে ধাত্রী সধবা এবং প্রস্থতি দ্বিবস্ত্রী হইয়া প্রস্থত হয় ; মেষ, মিথুন, সিংহ, তুলা, ধমু ও কুন্তু ইহার অন্ততম লগ্ন হইলে ধাত্রী বিধবা এবং প্রস্থতি একবস্ত্র হইয়া প্রস্থত হইয়াছে জানিতে হইবে । “যুগে চ সধবা ধাত্রী অযুগে বিধবা স্থত। অযুগ্মাবস্থমযুগং যুগ্মায়ুং ক্রমাধৈঃ। (বৃহজ্জাতক) জাতকচন্ত্রিকায় বর্ণিত হইয়াছে যে, মেষ, সিংহ ও ধনু লগ্নে জন্ম হইলে স্থতিকাগৃহ বাটীর পূৰ্ব্বভাগে ও স্বতিকাগৃহের স্ত্রীলোকসংখ্যা ৫ জন ; কস্তা, বৃষ ও মকর লগ্নে সুতিকাগৃহ বাটীর দক্ষিণাংশে ও স্ত্রীলোকসংখ্যা ৪ জন; কুন্ত, তুলা ও মিথুন লগ্নে স্থতিকাগৃহ বাটীর পশ্চিমাংশে ও স্ত্রীলোক সংখ্যা ৭ জন; মীন, কর্কট ও বৃশ্চিক লগ্নে স্থতিকাগৃহ বাটীর উত্তরাংশে ও স্ত্রীলোক" ৩, ৬ বা ৭ জন জানিতে হইবে। মেষ, কৰ্কট, তুলা,বিছা ও কুম্ভ ইহাদের মধ্যে একটা জন্মলগ্ন অথবা লগ্নের উদিত নবাংশ রাশি স্বরূপ হইলে বাস্তবাটীর পূৰ্ব্বদিগভাগে ; ধন্থ, মীন, মিথুন ও কষ্ঠা লগ্ন হইলে উত্তরদিকে ; বৃষ লগ্ন হইলে পশ্চিমদিকে ; সিংহ ও মকর লগ্ন হইলে বাস্তত্ব দক্ষিণভাগে স্থতিকাগৃহ হইবে । স্থিরলগ্নে জন্ম ইষ্টলে স্থতিকাগৃহের একটা আর ; ছাত্মক লঙ্গে দুইটা বার, এবং চরলগ্নে হইলে বহু দ্বার হয়। বৃহজ্জাতকে আরও উক্ত হইয়াছে যে, কেন্দ্রস্থিত বলবান গ্রহ যে দিকের অধিপতি, স্মৃতিকাগৃহের দ্বার সেই দিকে নির্ণয় করিবে। কেন্দ্রস্থিত বহু গ্ৰহ বলবান হইলে বহদ্বার হয়, আর যদি কেঞ্জে গ্রহ না থাকে, তাহা হইলে জন্মলগ্ন হইতে রাশিদিক্ অনুসারে স্থতিকাগৃহের স্বার নির্ণয় করিবে । মেষ ও বৃষলগ্নে স্থতিকাগৃহের পূর্বভাগে, মিথুন লগ্নে অগ্নিকোণে, কর্কট ও সিংহলগ্নে দক্ষিণভাগে, কন্যালগ্নে নৈঋত কোণে, তুলা ও বৃশ্চিক লগ্নে পশ্চিমভাগে, ধভুলয়ে বায়ুকোণে, মকর ও কুম্ভলগ্নে উত্তরভাগে এবং মীনলগ্নে ঈশানকোণে শিশুর প্রসব ও শয্যাস্থান নিরূপণ করিতে হয় । শিশুর মস্তক পতন স্বারা লগ্ন রাশির যে দিক্‌, সেই দিকেই শিশুর মস্তক পতিত হয়, অর্থাৎ মেষ, সিংহ ও ধৰ্ম্ম লগ্নে পূৰ্ব্বশির ; বৃষ, কস্তা ও মকর লগ্নে দক্ষিণশির ; মিথুন, তুলা ও কুম্ভ লগ্নে পশ্চিমশির ; কর্কট, বৃশ্চিক ও মীন লয়ে উত্তরশির হইয়া ভূমিষ্ঠ হয়। কোন কোন মতে লগ্নস্থ গ্রহ অথবা লগ্রাধিপতি গ্রহ যদি বলবান হয়, তাহ হইলে সেই গ্রহের যে দিক সেই দিকে প্রসবগৃহ বা প্রসবগৃহের দ্বার এবং শিশুর মস্তক পতন নিরূপণ করিতে হইবে । আবার কোনও মতে লগের স্বাদশাংশপতির দিক্ হইতে স্থতিকাগৃহের দ্বার নিরূপিত হয়। রাপ্তাধিপ গ্রহের স্থিতি অনুসারে লগ্নপরীক্ষা -চন্দ্র যে রাশিতে থাকেন, সেই রাশির অধিপতি গ্রহ জন্মকুগুলীচক্রে যে রাশিতে অবস্থিতি করেন, সেই রাশিতে অথবা সেই রাশির পঞ্চম বা নবম রাশিতে কিংবা সপ্তম রাশি হইত্তে পঞ্চম বা নবম রাশিতে জন্ম লগ্ন হইবে । এই নিয়ম প্রায় অধিকাংশ স্থলেই মিলিতে দেখা যায়। চন্দ্র রাগুধিপতির অবস্থিতি স্থান হইতে উক্ত যে ৬টী স্থানে জন্মলয়ের সম্ভাবনা লিখিত হইল, ইহার কোনরূপ ব্যতিক্রম হইলে পূৰ্ব্বাপর রাশিতেই লগ্ন হইয়া থাকে। “চন্দ্ররাগুধিপো যত্র তক্তি কোণমথাপি বা । তৎসপ্তমং ক্রিকোণং বা জাতলগ্নমুদাহৃতম্।” রবিস্থিত নক্ষত্র অনুসারে লগ্নপরীক্ষা।—যদি দিবা দুই প্রহরের মধ্যে জন্ম হয়, তাহা হইলে রবি যে নক্ষত্রে আছেন, সেই নক্ষত্রে অর্থাৎ সেই নক্ষত্রঘটিত যে রাশি অথবা রবিস্থিত নক্ষত্র হইতে সপ্তম নক্ষত্রে যে রাশি হয়, সেই রাশি জন্মলগ্ন হয় । দিব! দুই প্রহরের পর সক্ষ্য পৰ্য্যস্ত রবিভোগ্য নক্ষত্র হইতে স্বাদশ লক্ষত্রঘাটত যে রাশি সেই রাশিই জন্মলগ্ন হয়। যন্ধ্যার পর