পাতা:বিশ্বকোষ ঊনবিংশ খণ্ড.djvu/১৪৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


r” लकूक [ x86 कलशं লঘুহস্তবৎ (ৰি) লঘুত্ত সদৃশ। ক্ষিপ্রকারী । লঘুহারিত, হারিত ঋষি-প্রবর্তিত স্মৃতিশাস্ত্রতেন। লঘুহৃদয় (ত্রি ) চঞ্চল চিত্ত। অস্থির মতি। লঘুহেমছুদ্ধ (স্ত্রী) বর্ষেস্থা। লালকি, ছোট ডুমুর । ( রাজনি• ) লঘুকরণ (র) হালক কর, কমান। ২ গণিতোক্ত बह বিশেষ । লক্তি (খ্ৰী) উক্তি নৰখন বেন। লঘূখানত (ৰি) সৰে উখন সমর্থ। ২ উত্তম স্বাস্থ্যসম্পন্ন (dood-health) (વિr sબગ્સ ) লঘূদ্ধশ্বরিক (শ্ৰী ছোট । ( রাজনি• ) लवृऔद्र (शै) अशैवड । नषूमि (५) अजिलविश्ववर्डिंड पङिडन । লাদুড়িম্বরাহা (স্ত্রী) লঘু উচ্চুম্বরিক, ছোট ডুমুর। লঘুনন্দ (ত্ৰি ) লঘু আননো যস্ত। ১ জর আনন্দযুক্ত। (পুং ) ২ অল্প-আনন্দ । লৰ্বানন্দরস (গ) রসৌৰশবিশেষ। প্রস্তুতপ্রণালী-পার, গন্ধক, লৌহ, বিষ, অত্র প্রত্যেক ১ ভাগ ; মরিচ ৮ ভাগ, সোহাগা চারিভাগ, ভৃঙ্গরাজ ও অন্নবেতসের রসে সাতবার ভাবনা দিয়া ২ রতি পরিমাণ ৰটা করিতে হইবে। অমুপান পাশের রস । এই ঔষধ সেবনে পাণ্ডু, অরুচি, মনাগ্নি, গ্রন্থণী, জর ও বাতশ্লেষ্মরোগ আগু প্রশমিত হয়। ( রসেন্দ্রসারস, পাণ্ডুরোগাধি• ) ২ বাতব্যাধি রোগোক্ত ঔষধবিশেষ। প্রস্তুতপ্রণালী-পারা, গন্ধক, লৌহ, অভ্র, বিষ প্রত্যেক একভাগ, মরিচ ৮ তাগ, সোহাগা চারিভাগ, ভৃঙ্গরাজ ও দাড়িমের রসে প্রত্যেকট পীচ বার ভাবনা দিয়া দাড়িমের ক্ষাথে বট প্রস্তুত করিতে হইবে । অনুপান দোষ অনুসারে স্থির করিতে হয়। এই ঔষধসেবনে ভ্রম ও দাহের সহিত বাতব্যাধি বিনষ্ট হইয়া থাকে। ( রসেস্ত্রসারস • বাতব্যাধিরোগাধি• ) লঘাৰ্য্যসিদ্ধান্ত (পুং ) আৰ্য্যসিদ্ধান্তের সংক্ষিপ্ত গ্রন্থ। লৰুশিন (ত্ৰিশ অল নাপাৰ বা বা অশ্নতি আনি। লঘুভোজী, অন্নভোজী, যাহারা লঘুপাক বা ভোজন করে। লাহার (ত্রি) লঘু আহার ব্য। লভোলী, যিনি অল্প আহার করেন। (পুং ) ২ লঘু ভোজন । লম্বী (স্ত্রী) গৰু-উপ- লাঘবযুক্ত, অতি ক্ষুদ্রা। ২ সান্দনভেদ। ৩ পৃষ্ণ, পিড়িংশাক । ৪ হস্তিকোলী। লঙ্ক ( পুং ) ব্যক্তি বিশেষ । (পাণিনি ৪।১।৯৯) লঙ্কক, মম্বের ভ্রাতা। পূর্ণ নাম অলঙ্কার। (প্রক%রিত) XVII ויסי লঙ্কটঙ্কট (স্ত্রী) ১ মুকেশ রাক্ষসের মাতা ও বিদ্যুৎকেশের কণ্ঠা। ( ब्रांबाग्रभ१॥8॥२७) २ नकांद्र कछ । লঙ্ক (স্ত্রী) রমস্তেহস্তামিতি রম্ বাংলকাং কং রপ্ত লাং (উণ, ৩৪• ) টাপ, রক্ষঃপুরী, রাবণের রাজ্য। জ্যোতিঃশাস্ত্রমতে এই লঙ্ক পৃথিবীর মধ্যভাগে অবস্থিত। “লঙ্কাঙ্কমধ্যে যমকোটিরস্তাঃ প্রাকৃপশ্চিমে রোমকপত্তমঞ্চ । অধস্ততঃ সিদ্ধপুরং সুমেরুসেীমোহথ ৰাম্যে বড়র্বানলশ্চ।” ( সিদ্ধাস্তশিরোমণি ) অগ্নিপুরাণে লিখিত আছে যে, লঙ্কাপুরী ত্রিংশ যোজন বিস্তীর্ণ, এই পুরীর প্রাকার সকল মুবর্ণনির্মিত। দক্ষিণসমূদ্রের তীরে ত্ৰিকূট নামে একটা পৰ্ব্বত আছে, ঐ পৰ্ব্বত্বের শিখরে মধ্যম সমুদ্র সমীপে আট বহুদিন পরিশ্রম করিয়া ইন্ত্রের জন্য এই পুরী নিৰ্ম্মাণ করেন । এই পুরীতে পক্ষিগণও গমন করিতে সমর্থ মহে । রাক্ষসগণ সুখে এই পুীতে বাস করিত। রাক্ষসেরা অমরাবতী সদৃশ এই লঙ্কানগরী প্রাপ্ত হইয়া ভয়ানক দুরাধৰ্ষ হইয়াছিল। “ত্রিংশযোজনবিস্তীর্ণাং স্বর্ণপ্রাকায়তোরণাম। দক্ষিণস্তোদধেস্তরে ত্ৰিকূটে নাম পৰ্ব্বত: । শিখরে তস্ত শৈলস্ত মধ্যমাম্বুধিসন্নিধে । পতত্রিভিশ্চ শ্রীপাং টাছিয়াং চতুর্দিশম্ ॥ শক্ৰাৰ্থং মৎকৃত পূৰ্ব্বং প্রযত্বাং বহুবৎসরৈঃ। বসন্তু তত্র যুদ্ধৰ্ষা: সুখং রাক্ষসপুঙ্গবাঃ ॥ লঙ্কাপ্পুর্গং সমায়াপ্ত শত্রা শক্রদনাঃ। জুরাধৰ্য ভবিষ্যস্তি রাক্ষসৈর্বাহুভিবৃতা: ॥” ( অগ্নিপু• কপিলদর্শন নামাধ্যায় ) রামায়ণে লিখিত আছে যে, দক্ষিণসাগরের তীরে ত্রিকূট নামে একটা পৰ্ব্বত আছে, তাহার শিখরে অমরাবতীর স্থায় বিশালা লঙ্কানামে একটী পুরী আছে। ঐ রমণীর পুরী হেমময় প্রাকার ও পরিখায় পরিবৃত এবং তোরণ সকল সুবর্ণ ও বৈদুৰ্য্যমণিদ্বারা রচিত ও সকল স্থান যন্ত্রসমূহে মুসজ্জিত । রাক্ষসদিগের বাসের জন্ত বিশ্বকৰ্ম্ম অতি যত্নসহকারে এই পুরী নিৰ্ম্মাণ করেন। রাক্ষসগণ এই পুরীতে বাস করিয়া অতিশয় দুৰ্দ্ধৰ্ষ হইয়াছিল। পরে বিষ্ণুর ভয়ে রাক্ষসগণ এই পুরী পরিত্যাগ করিয়া পাতালে আশ্রয় গ্রহণ করে। কিছুদিন এই পুরী রাক্ষসগৃষ্ঠ অবস্থায় থাকে। to পরে কুবের বিপ্রবার আদেশে ਸੰਬਰ हहेब्र তথায় অবস্থান করিতে থাকেন। পরে রায়ণ যখম তপোবলে বলীয়ান হইয়া উঠিল এবং জানিতে পারিল যে, লঙ্কাপুরী আমাদের পূর্বপিতৃপুরুষের নিবাসভূমি। তখন রাবণ