পাতা:বিশ্বকোষ ঊনবিংশ খণ্ড.djvu/৬৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঘর্ষ [ ७8● ] বর্ষ ७धयाम श्रांtझ,-खेऊब्र बांडाई अक्बन्न श्रांप्श्ब्र नभाद्र मिर्झौ সরকারে বন্দী হন। র্তাহারা মুক্তিলাভের পর স্বপ্নাদেশ মত ; ভূগর্ভ হইতে দেবমূৰ্ত্তি উঠাইরা পশ্চিমরাঠ পরগণার মন্তর্গত | চিতাবন নামক স্থানে প্রতিষ্ঠা করেন। এখনও উভয় শাখার | লোকের ঐ মূৰ্ত্তির পূজা করিয়া থাকে। অযোধ্যার স্বৰ্য্যবংশীয় | ঠাকুর সর্দারদিগের দ্বারা অযোধ্য হইতে তাড়িত হুইবার পর । তাহাদের সর্দার পিলাসী সিংহ বেগমগঞ্জের অন্তর্গত রামম্বাটে ! আর একটী পবিত্র দেবর্তীর্থ স্থাপন করেন। আর একটী আখ্যায়িকা হইতে জানা যায় যে, জয়পুরের দক্ষিণ-পশ্চিমস্থ মুদী পাচন বা পাচানপুরে তাহাদের বাস ছিল । । এখানে তাহাদের রাজা শালিবাহন রাজত্ব করিতেন । তথা | হইতে তাহার চিতাবনকারিয়া নামক স্থানে আলিয়া ভরজাতিকে তাড়াইয়া দেয় এবং কনোজরাজ-কন্ত পদ্মিনীকে অপহরণ । করিয়া দিল্লীশ্বরকে প্রত্যৰ্পণ করে বলিয় তাহারা পারিতোষিক স্বরূপ ১৬ ক্রোশব্যাপী জায়গীর প্রাপ্ত হয় । বৰ্ব্বারগণ শিশুকন্ত হইলে প্রায়ই মারিয়া ফেলে, যেহেতু ঐ কন্সার বিবাহে তাহদের বিশেষ কষ্ট পাইতে হয়। তাহারা ; সাধারণতঃ পালবার, কচ্ছবাহ, কৌশিক প্রভৃতির কস্ত গ্রহণ করিয়া থাকে । বাল্লিয়ার বর্বারের উজ্জয়িনী, হৈহয়বংশী, নরবাণী, কিন্‌বার, নিকুম্ভ, সেনাগার ও খাটদিগের কস্তাগ্রহণ কবে এবং হৈহয়বংশী, উজ্জয়িনী, নরবাণী, নিকুম্ভ, কিনবার ; বিষেন, বাঈ ও রঘুবংশদিগকে কস্তাদান করিয়া থাকে। আজমগড়ে তাহার ছত্রি বা ভূ ইহার বলিয়া পরিগণিত। দিল্লীর নিকটবত্ত চের নগর হইতে আগত বলিয়া এই নামে পরিচিত হইয়াছে। সর্দার গোরক্ষদে ও ( ১৩৩৬-১৪৫৫ খৃ: ) তাহাদিগকে আজমগড়ে আনয়ন করেন । s বলি (ত্রি ) বু ( বৃদ ভ্যাং বিন। উণ, ৪৫৩) ইতি বিন। ঘস্মর। ( উজ্জল ) বর্বর (পুং ) বু বাহুলকাৎ বৃরচ, বৃক্ষবিশেষ, বাবলা গাছ। । পৰ্যায়-যুগলাক, কন্টালু, তীক্ষকণ্টক, গোপৃঙ্গ, পংক্তিবীজ, দীর্ঘকন্ট, কফান্তক, দৃঢ়বীজ, অঙ্গভক্ষ। গুণ-কষায়, উষ্ণ, কফ, কাস, আমরক্ত, অতীসার, পিত্ত্ব, দাহ ও অৰ্শরোগনাশক । o [ বাবলা দেখ। ] বশ্যন (পুং) জন্দভাষায় এই শব্দ বরেশমন লিখিত হইয় থাকে ভোজক্ষত্ৰাহ্মণ দেখ ] বর্ষ, বর্ষ, ( বৃষ,) ১ সেচন, বর্ষণ। ২ হিংসা । ৩ ক্লেশ। ও গর্ভগ্রহণ ঐশ্বৰ্য্য। ভাদি পরহ্মৈ সক” সেট। বর্ষতি। লিট, ববর্ষ। লুঙ, অববর্ষৎ। বর্ষ স্পেং কী বুঝতে ইতি বুৰু সেচনে (অজিীে ভাবীনামুপ সংখ্যানম্) ইতি অচ, অথবা ব্ৰিয়তে প্রার্থীতে ইতি বৃন্স ( বৃ তৃ বছি ছনি কমি কষিভ্যঃ সঃ। উ৭, ৩৬২) ১ বৃষ্টি, জলবর্ষণ। “বিদ্যুৎস্তমিতবর্ধেষ্ণু মহোল্কানাঞ্চ সংপ্লবে। आरुणिरूभनथांब्रप्माङजू भश्छडबौ९ ॥“ (भन्न als०७) ২ জৰীপাংশ। ৩ জৰীপ। এ পৃথিবীন্থ সমস্ত দ্বীপের ভূবিভাগ। 银 পৌরাণিক ভূ-বৃত্তান্ত পাঠে জানা যায়, পৃথিবী সাতটা দ্বীপে বিভক্ত। উক্ত সপ্ত দ্বীপের নাম, যথা-জন্তু, প্লক্ষ, শান্মলি, কুশ, ক্ৰৌঞ্চ, শাক ও পুষ্কর। এই সাতটা দ্বীপের মধ্যে আবার এক একটী দ্বীপেরও বিভাগ বিভিন্ন নামে বিভক্ত। সেই সেই নামধেয় বিভিন্ন ভূবিভাগের নামই বর্ষ। বর্ষসমূহের নাম, সংস্থানবিবরণ, পরিমাণ এবং তত্বত্য অধিবাসী প্রভৃতির বৃত্তান্ত ক্রমে পরে বিবৃত হইতেছে। শ্ৰীমদ্ভাগবতে লিখিত আছে, প্রিয়এতের রথচক্রে সাতটা থাত হইয়াছিল, ঐ সপ্ত থাতই কালে সাতটি সমুদ্ররূপে পরিণত হয়। সেই সপ্তসাগর দ্বারাই পুৰ্ব্বোল্লিখিত জন্তু প্রভৃতি সপ্ত দ্বীপ বিরচিত। উক্ত দ্বীপসমূহের পরিমাণ পূৰ্ব্ব পুৰ্ব্ব দ্বীপের বিস্তার অপেক্ষ উত্তরোত্তর দ্বিগুণ। ঐ সকল দ্বীপ সমুদ্র সমূহের বাহিরে চারি দিকে বিস্তৃত। যেমন সমুদ্রসমূহের বাহিরদিকে এক এক সমুদ্র। ঐ সমুদ্রসমূহের নাম-লবণোদ, ইক্ষুরসোদ, মুরোদ, বৃতোদ, ক্ষীরোদ, দধিজল, ফুগ্ধোদ এবং শুদ্ধোদ। এই সাতটা সাগর পূৰ্ব্বোক্ত দ্বীপসমূহের পরিখ স্বরূপ। ঐ সমস্ত সাগরপরিবৃত দ্বীপসমূহের যে পরিমাণ, তন্তুল্য যথায়ুপূৰ্ব্ব এক একটা সাগর এক একটা দ্বীপের সমান। এই সকল সাগর অসঙ্কীর্ণ ভাবে ভিন্ন ভিন্নরূপে বাহিরের দিকে৮ ব্যাপৃত,—অভ্যস্তবে নহে। প্রিয়ত্রতের পত্নীর নাম বর্হিস্মতী । তাহার সাতট পুত্র, সকল পুত্ৰই সচ্চরিত্র। ঐ সকল পুত্রের নাম—অষ্ট্ৰীধ, ইঋজিহা, ইশ্ববাহ, হিরণ্যরেত, ঘূতপৃষ্ঠ, মেধাতিথি ও বাতিহোত্র। এই সাতটা পুত্রকে প্রিয়ত্ৰত এক এক করিয়া উল্লিখিত এক এক দ্বীপের আধিপত্যে অভিষেক করেন। প্রিয়ত্রতের তাৎকালিক কীৰ্ত্তি বর্ণনপ্রসঙ্গে পুরাকালে এইরূপ শ্লোক গীত হইয়াছিল যে, এক ঈশ্বর ভিন্ন কে প্রিয়ত্ৰতরুত কাৰ্য্যের অমুকরণ করিতে পারে ? তিনি অন্ধকার দূর করিবার জষ্ঠ ভ্রমণ করিতে করিতে নিজ চক্রাগ্র দ্বারা সাতটা সমুদ্র খনন করিয়াছিলেন । তিনি বিভাগক্রমে দ্বীপ রচনা করিয়া পৃথিবীর সংস্থান নির্ণয় করিয়া গিয়াছেন এবং প্রাণিবর্গের বিপদ বারণ বা অসুবিধা দূরীকরণজস্ত নদ, নদী, পৰ্ব্বত, বর্ষ প্রভৃতি দ্বারা প্রত্যেক দ্বীপের সীমা নির্দেশ করিয়া দিয়াছেন ।