পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/১০৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পশ্বাচারী এরূপ ব্যবস্থা আছে যে, সাধকের চক্রাকারে বা শ্রেণীক্রমে আপনাপন শক্তির সহিত ললাটে চন্দন লেপন করিয়া যুগ যুগ ক্রুমে ভৈরব ভৈরবী ভাবে উপবেশন করিবে এবং মধ্যস্থিত কোন স্ত্রীলোককে সাক্ষাৎ কালী বোধ করিয়া মদ্যমাংসাদির দ্বারা তাহার অর্চনা করিতে থাকিবে । কিরূপ স্ত্রীলোককে ঐরুপ পূজা করিতে হয়, গুপ্তসাধনতন্ত্রে তাহার এইরূপ বিধি আছে,— নটস্ত্রী, কপিলী, বেণ্ডা, রাজকী, নাপিতের ভাৰ্য্য, ব্রাহ্মণী, পূদ্র কল্প, গোপকল্প, মালাকার কন্ত এই নয় প্রকার স্ত্রীলোক কুলকক্স । বিশেষতঃ পরপুরুষগামিনী বিদগ্ধ হইলে সকল স্ত্রীই কুলস্ত্রী হয়। রূপবতী যুবতী, সুশীল ও ভাগ্যবতী স্ত্রীলোককে যত্নপূৰ্ব্বক পূজা করিবে, তাহা হইলে নিশ্চিতই সিদ্ধিলাভ হইয়া থাকে (১) । ঐ চক্রগত পরপুরুষেরাই ঐ সমস্ত কুলস্ত্রীর প্রকৃত পতি, কুলধৰ্ম্মে বিবাহিত পতি পতি নহে। পূজাকাল ভিন্ন অল্প সময়ে পরপুরুষকে মনেতেও স্পর্শ করিবে না। পূজাকালে বেগুরি প্তায় সকলের পরিতোষ করিবে । ( উত্তরতন্ত্র ) নিরুত্তর উন্ত্রের অপর একস্থলে লিখিত অাছে,-সাগমোক্ত পতি শিবস্বরূপ, তিনিই গুরু। সেই পতিই কুলস্ত্রীদিগের প্রকৃত পতি। বিবাহিত পতি পতি নয়। কুলপূজায় বিবাহিত পতি ত্যাগ করিলে দোষ হয় না । কেবল বেদোক্ত কার্য্যে বিবাহিত পতি ত্যাগ নিষিদ্ধ হইয়াছে । ( নিরুত্ত্বরতন্ত্র ) সাক্ষাৎ কালীরূপ উক্ত কুলনারীর পূজা করিয়া মদ্যশোধনাদি পূৰ্ব্বক পান করিতে হয় । ললাটে সিন্দুর চিহ্নধারণ এবং হস্তে মদিরাসব ধারণপূর্বক গুরু ও দেবতার ধ্যান মন্ডে মদ্যমাংস ব্যতিরেকে পূজা করিলে তাহ নিষ্ফল হয়। ইহাদের মতে ছয় শক্তিস্বরূপ, মাংস শিবস্বরূপ এবং এই শিব-শক্তির ভক্ত ভৈরব স্বৰূপ । এই তিলের একত্র সমাবেশ হইলে আনন্দ স্বরূপ মোক্ষের উৎপত্তি হয়। ( কুলীর্ণব ) এখানে তন্ত্রোক্ত হিন্দুধর্মের সহিত রোমান ক্যাথলিক খৃষ্টীয় সম্প্রদায়ের মনের ভাবে কতক মিল দেখা যায়। ঠাহীর পিঃককে গৃষ্ট্রের মাংস এবং মন্যুক ডাহার রক্ত বলিয়া গ্রহণ করিয়া থাকেন। (১) রেবর্তীতন্ত্রে চণ্ডালী, যবনী, বৌদ্ধ, রজকী প্রভৃতি চৌধটী প্রকায় ফুলস্ত্রীর বিবরণ আছে। লিকুত্তয়তন্ত্রকায় বলেন, ঐ সকল শব্দ বর্ণ বা ৰণসঙ্কর বোধক নয়, কাৰ্য্য বা গুণের বিজ্ঞাপক, বিশেষ বিশেষ কার্ধ্যের অনুষ্ঠান হেতু সকল বর্ণোস্তব কস্তাই এইরূপ বিশেষ বিশেষ সংজ্ঞ। পাইয়া থাকেন। যেমন...পূজ। ত্রব্য দেখিয়া যে কোন বর্ণোদ্ভব। কস্তা DDDD BBB BBS DDDD DDD BBBS BB BBDD BBBDS রমণী আপনাকে পথচারীর নিকট গোপন করে, তাহাকে গোপিনী ञां८ब अलिहिष्ठ कग्नः शन्न देऊjiप्रिं । [ 5 ہ $ ] পশ্বাচারী - مسيسيبيسيسيبي يعد করিয়া পান করা বিধি । ( প্রাণতোষিণী ) হস্তে সুরাপাত্র ধারণ করিয়া তদগতচিত্তে এইরূপ বন্দনা করিতে হয়— "শ্ৰীমস্তুৈরবশেখরপ্রবিলসচ্চন্দ্রীযুতপ্লাবিতং ক্ষেত্রাণীশ্বরযোগিনীমুরগণৈঃ সিদ্ধৈঃ সমারাধিতম্। আনন্দার্ণবকং মহাত্মকমিদং সাক্ষাৎ ত্রিখণ্ডামুতং বন্ধে শ্ৰীপ্ৰথমং করাঘুজগতং প্রাপ্তং বিশুদ্ধিপ্রদম্ ॥"(খামারহস্ত) এইরূপ বিশেষ বিশেষ মন্ত্রদ্বারা পাঁচবার পাত্রের বন্দন করিয়া পাঁচ পাত্র গ্রহণ করিবে, পরে যে পৰ্য্যস্ত ন ইঞ্জিয় সকল ( দৃষ্টি ও মন ) চঞ্চল হয়, সেই পৰ্য্যন্ত পান করিতে থাকিবে । ইহার পর পান করিলে পশুপান করা হয় জানিবে । চক্রীদের কল্যাণ ও তদীয় বিপক্ষদের বিনাশ উদ্দেশে শান্তিস্তোত্র পাঠ করিবে এবং তদন স্তুর আনন্দস্তোত্র পাঠ করিয়া অগুণক কুলকার্যের অনুষ্ঠান করিবে । কুলভৈরব স্বরূপ সাধক মদ্যপান করিয়া স্তব পাঠ করিবে এবং কুলস্ত্রীসংসর্গে প্রবৃত্ত হইয়া কুলকার্য্যের অনুষ্ঠান করিতে থাকিবে । অতঃপর মাননোল্লাসের অরিস্ত হয় । ( এই ব্যাপারের সবিশেষ বর্ণনা অত্যন্ত অশ্লীল, কুলীৰ্ণবে পঞ্চমখণ্ডে ইহার ব্যবস্থা লিখিত আছে । ) মসুয্যের মন যত বিকৃত হউক না কেন, তথাপি লোকের সাক্ষাতে এতাদৃশ কৰ্ম্ম করিতে লজ্জা বোধ হয়। প্রাণতোষিণীতন্ত্রে লিখিত হইয়াছে, চক্রমধ্যে মদিরামুগ্ধ ব্যক্তিদিগকে দেখিয়া হাস্ত ও নিন্দা করিবে না এবং ঐ চক্রের বাৰ্ত্ত ৰাহিরে প্রকাশ করিবে না, তাহীদের নিকটে ভোজন করিবে, অহিত আচরণে বিরত থাকিবে, ভক্তিপূৰ্ব্বক তাহাদিগকে রক্ষা করিবে এবং যত্নপূর্বক গোপন করিয়া রাখিবে । তন্ত্রমধ্যে লতাসাধনাদি অারও অধিকতর লজ্জাকর ও ঘূণাকর ব্যাপারের উল্লেখ আছে । তাহ! লিখিয়া জানাইবার উপযুক্ত নহে। সামান্ততঃ লতাসাধনে একটা স্ত্রীলোককে ভগবতী জ্ঞান করিয়া মদ্যপানাদি সহকারে তাহtয় সাধন। করিতে হয়। ইহাতে তাহার শরীরের গুহাগুহ নানাস্থানে মন্ত্রজপ এবং আপনার ও তাঁহার অঙ্গ বিশেবের পুজা বন্দনাদি পুরঃসর স্ত্রীপুরুষঘটিত ব্যাপারানুষ্ঠানের পরাকাষ্ঠী প্রদর্শিত হইরা থাকে। তন্ত্রবিহিত সুরাপান ও পরস্ত্রীগমন প্রভৃতির স্থায় মারণ, উচ্চাটন প্রভৃতি নরহত্য ও পরপীড়া ও শাস্ত্রীয় ক্রিয়ার মধ্যে গণিত হইয়াছে * । উপরে যে নানা প্রকার সাধকের কথা লিখিত হইল, তাহ পশ্বাচারী ও বীরাচারী উভয় সম্প্রদায়ের মতসিদ্ধ ; কিন্তু শৰসাধনই বীরাচারীদিগের প্রধান সাধন । [ বীরাচারী দেখ । ]

  • “শাস্তিষপ্তস্তম্ভননি বিম্বেবোচ্চাটনে তথ। ।

মায়ণং পরমেশানি বট কৰ্ম্মেমং প্রকীৰ্ত্তিতম্।।” (যোগিনীতন্ত্র পুঃ খ: )