পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিশ্বকোষ৷ একাদশ ভাগ। পর্তুগীজ পর্তুগীজ পর্তুগীজ, পর্তুগালের খৃষ্টান অধিবাসী। পর্তুগাল দেখ। ] যখন ভারতে ইংরাজ, ফরাসী ও ওলন্দাজগণের নাম মাত্র জানা ছিল না, তৎপূর্কে পর্তুগীজগণ ভারতের উপকূলে বণিকরূপে আসিয়া অসাধারণ রাজশক্তির পরিচয় দিয়াছিল। কত শত পর্তুগীজ ভারতীয় রমণীর পাণিগ্রহণ করিয়া সংসারী হইয়াছিল— তাছারাই সৰ্ব্বপ্রথম পাশ্চাত্য-সভ্যতা ভারতে অনুপ্রাণিত করিয়া কত ভারতবাসীর মতিগতি ফিরাইয়া দিয়াছিল। তাহদের প্রভাব দক্ষিণাতের পশ্চিম উপকূলে আজও পরিলক্ষিত হয়। পর্তুগীজদিগের কঠোর উৎপীড়ন, মোহন প্রলোভন, বিশ্বাসঘাতকতা ও প্রবল প্রতাপ আজও ভারতবাসী বিস্মৃত হন নাই । তাহীদের সহিত ভারতবাসীর কিরূপে সম্বন্ধ হইয়াছিল, তাহাই বলিব। পর্তুগীজজাতির উন্নতির মূল পর্তুগীজ-রাজকুমার ডস্ হেনরিক। [পর্তুগাল দেখ। ] তাহারই যত্নে ও অর্থানুকূল্যে পর্তুগীজগণ নীনাদেশ আবিষ্কার, বাণিজ্য বিস্তার ও বহু রাজ্যধিকার করিতে সমর্থ হইয়াছিল। রোমক সাম্রাজ্যধ্বংসের পর য়ুরোপীয় বাণিজ্য অনেকটা পরহস্তগত হয়। এ সময়ে আরবজাতিই ভারতের সহিত য়ুরোপীয় বাণিজ্যের সকল অধিকার লাভ করিয়াছিল। পালেস্তিনের মহাধৰ্ম্মযুদ্ধের পর স্পেনদেশে মুসলমানের হাতে ভারতীয় অপূৰ্ব্ব বিলাসী দ্রব্যসমূহের পরিচয় পাইয়া যুরোপীয় রাজগণ বিমুগ্ধ হইয়া ছিলেন এবং মণিরত্নাকর ও বিলীলভাণ্ডার ভারতের প্রকৃত সন্ধান পাইবার জন্ত অনেকেই ব্যাকুল হইয়াছিলেন। তাঁহারই ফলে পর্তুগীজ রাজকুমার ডম্ হেনরিক ভারতাবিষ্কারে মনোযোগী হন। ১৪১৮-২০ খৃষ্টীকে তিনি প্রথমতঃ পোটোসান্টে ΧΙ ہـیـیـپـیـ ও মদির দ্বীপ আবিষ্কার করেন। ইহার পর তিনি প্রতিবর্ষে আফ্রিকা-উপকূলে ছোট ছোট জাহাজ পাঠাইতে লাগিলেন। সে সময়ে পোপ খৃষ্টান-জগতের সর্বময় কর্তা। যুরোপীয় রাজন্তবর্গ সকলেই তাহার নিকট অবনত। কাজেই কুমার হেনরিক তাহার নিকট প্রার্থনা করিলেন, পোপের আদিষ্ট খৃষ্টানধৰ্ম্ম প্রচারদ্বারা আবিষ্কৃত জনপদবাসীর অজ্ঞান অন্ধকার দূর করাই তাছার প্রধান উদ্বেগু, অতএব তাহার এই অনুরোধ, তিনি যে সকল নূতন নূতন দেশ আবিষ্কার ও অধিকার করিবেন, তাহ যেন পৰ্তুগালরাজেরই অধিকারভুক্ত থাকে। পোপ ও র্তাহার সদস্যগণ সকলেই হেনরিকের প্রার্থনা অযুমোদন করিলেন। হেনরিকের ভ্রাতা ও পর্তুগালরাজ্যের অভিভাবক ডম্পদ্রোও তাহাকে এই ক্ষমতাপত্র দিলেন যে, এই সমুদ্র-অভিযানে পর্তুগালরাজের যাহা কিছু লাভ হইবে, তাহার পঞ্চমাংশ হেনরিক্ পাইবেন এবং তাহার ছাড় ভিন্ন কেহই আর ঐরুপ অভিযানে অগ্রসর হইতে পরিবেন না । হেনরিক্ কিরূপে বস্তুরাজ্য আবিষ্কার করেন, তাহাও একটু বলা উচিত। যে দেশের প্রথম সন্ধান হইত, সেই দেশের ক একজন স্ত্রীপুরুষকে লিসবন নগরে ধরিা আনা হইত। র্তাহীদের সহিত কেহ বন্দীর মত ব্যবহার করিত না। বরং পর্তুগালের স্বাধীন প্রজাগণ অপেক্ষ যথেষ্ট যত্ন আদর করা হইত। তাহদের ভরণপোষণের জন্ত যথেষ্ট ভূসম্পত্তি দেওয়া হইত। তাছার বিদেশী হইলেও সুন্দরী পর্তুগীজ-রাণীর সহিত বিবাহ দেওয়া হইত। কোন কোন সন্ধান্ত বিধবা মহিল ঐৰূপ বন্ধিনীরমণীকে আপনার পোয্যকস্তারুপে গ্রহণ