পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৩৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


- পশ্চাত্যদর্শন بر اساس مسسسسسسسس মুখই (Happines") জীবনের শ্রেষ্ঠ মঙ্গল । মুখের প্রকৃতি একরূপ, তন্নির্দিশকালে বলিয়াছেন, বিভিন্ন প্রকৃতি অনুসারে ऋ५७ दिडिग्न । मश्रबाब्र भट्ञ हेक्षिशखाऊ श५ eाइड श४ মহে, কারণ পশুরাও এই সুখে অধিকারী। প্রজ্ঞাজাত সুখ মানবের প্রকৃত মুখ, প্রজ্ঞানিয়ন্ত্রিত কাৰ্য হইতে (Rational) যে মুখোৎপত্তি হয়, অর্থাৎ যে শুখ এই কৰ্ম্মের ফলস্বরূপ (Result and not the end in view), cost irrors of 1. ধৰ্ম্মবৃত্তি বা সদগুণ (Notion of virtne) কি তৎসম্বন্ধে আরিষ্টটল বলেন যে, প্রজ্ঞাজাত কৰ্ম্মের পুনঃ পুনঃ অমুশীলনশতঃ যে গুণের বা প্রকৃতির উদয় হয়, তাহাই ধৰ্ম্মবৃত্তি (virtue) : প্রত্যেক কার্য্যই যথাযথ ফলাকাঙ্ক্ষা করিয়া সাধিত হইয়া থাকে ; কিন্তু কাৰ্য্যের ফল যদি যথাযথ না হইয়া মাত্রায় গল্প (Defect) কিংবা অধিক (Excess) হয়, তাহা হইলে কাৰ্য্যটী অসম্পূর্ণ হইয়াছে বলিতে হইবে। ফলের অল্পত এবং আধিক্য এই উভয়ের মধ্যপথ অনুসরণ (Observance of a due mean) ধৰ্ম্মবৃত্তির প্রকৃতির স্বরূপ । এই মধ্যরাশি (Mean) সকলের পক্ষে সমান নহে, সুতরাং ধৰ্ম্ম সকলের পক্ষে একরূপ নহে। পুরুষের ধৰ্ম্ম একপ্রকার, স্ত্রীর অন্ত প্রকার এবং বালকের ধৰ্ম্ম উভয়ের ধৰ্ম্ম হইতে স্বতন্ত্র । জীবনের ভিন্ন ভিন্ন অবস্থানুসারে ধৰ্ম্মবৃত্তি সকলও বিভিন্ন । অবস্থার বৈচিত্রা হেতু সমুদায় ধৰ্ম্মবৃত্তিগুলি নির্ণয় করা সুকঠিন, সেই জন্ত জীবনের স্থায়ী ভাব সকল হইতে প্রধান প্রধান ধৰ্ম্ম-" গুলি আরিষ্টটল নির্দেশ করিয়াছেন। যেমন সুখ ও দুঃখ উভয় পদার্থই সংসারে দেখিতে পাওয়া যায়। এই উভয়ের নৈতিক মধ্যাবস্থা (Moral mean) নির্দেশ করিতে হইলে বলিতে হইবে যে দুঃথকে ভয় করা ও অমুচিত এবং ভয় একবারে ন করা ও অঙ্কুচিত, এই উভয়ের মধ্যপথ দৃঢ়ত (Fortitude) । মুথের প্রতি ঔদাসীগুও বাঞ্ছনীয় নহে এবং সুখের প্রতি অত্যসক্তি ও তদ্রুপ, এই উভয়ের মধ্যপথ মিতাচার (Temperance)। এইরূপ উপায় অবলম্বন করিয়া, আরিষ্টটল ধৰ্ম্মবৃত্তিগুলি নির্দেশ এবং তাহাদের শ্রেণীবিভাগ করিয়াছেন। তিনি বৈজ্ঞানিক হিসাবে এই গুলি আলোচনা করেন নাই, সাধারণভাবে আলোচনা করিয়াছেন মাত্র। ধৰ্ম্ম কিংবা সুখ, আরিষ্টটলের মতে, সামাজিক কিম্বা রাজনৈতিক জীবন ভিন্ন ব্যক্তিগত জীবনে অসম্ভব । মানবের ধৰ্ম্মাধৰ্ম্ম অন্যান্ত মানবের সহিত সম্বন্ধ হইতে উৎপন্ন হইয়া থাকে, মানবের মুথ ও তদ্রুপ অদ্যান্ত মানবসাপেক্ষ । সমাজ ব্যতীত সানবের মানবত্ব কোথায় ? অম্লান্ত প্রাণীর গুtয় একট প্রাণী [ రిaసి ] মাত্র। মানব জন্মাবধিই একটী সামাজিক জীব (Corporate SuSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSS த_ being) ; cनहे जछ c8है ब ब्रांजाउज शडि वा पर" (Fumily) अरभच महान्। बाखिा7उ जैौदन ७हे ब्रांजटैमङिक औदरमब्र সামান্ত অংশমাত্র। প্লেটোর স্থায় জাষ্টিটলের মতে মানবजैौबरनब्र ध्मडिक फेब्रठि य१९ नन्गूठिा विशांन कब्र ब्रांछाउtजग्न अदशकॐषा ; किढ़ cगई छना ठिन दाख्ञि१ोङ ५ीसृ१ ११**ऊ স্বাধীনতার একবারে বিলোপ সাধনের পক্ষপাতী নছেন। রাজ্যতন্ত্র তাছার মতে একটা সম্প্রদায় নছে (Unity of being), সম্প্রদায়-সমূহের সমবায়ে উৎপন্ন। জ্ঞানী বাকিদিগের দ্বারাই শাসনতন্ত্র পরিচালিত হওয়া উচিত। অগ্নিষ্টটল #two (Monarchy) or wsswfoss (Aristocracy) শাসন-প্রণালীদ্বয়ের পক্ষপাতী।. তাহার মতে যে রাজ্য ধৰ্ম্ম*ग्निष्क्रांणिऊ, ७८कद्र शांब्र! श्छेक वां ठनषि८कब्र बांब्राहे इफेक, সেই রাজ্যই উত্তম। দার্শনিক হিসাবে কোন শাসনতন্ত্র উত্তম, তাহ। নির্ণয় করিতে প্রয়াস পান নাই । তিনি দেশ-কালপাত্রায়ুসারে শাসনতন্ত্রের নিয়োগ করিতে বলিয়াছেন । * আরিষ্টটলের মৃত্যুর পর তদীয় সম্প্রদায়ভুক্ত পণ্ডিতের তদীয় দর্শনের বেশী উন্নতি সাধন করিতে পারেন নাই। আৱিষ্টটল স্থাপিত দৰ্শন-সম্প্রদায়ের নাম পেরিপেটিটিক সম্প্রদায় (Peripatetic School) I stoff wroioși gry fattig refą এই সম্প্রদায়ে বিশেষরূপ লক্ষিত হয়। পণ্ডিত ষ্ট্রাটো (Strato) আরিষ্টটলোক্ত দ্বৈতবাদ পরিহার করিয়া প্রকৃতিকেই (Nature) সকল পদার্থের কারণ এবং নিয়ন্ত বলিয়া গিয়াছেন। আরিষ্টটলের পরে যে সকল দার্শনিক সম্প্রদায়ের স্বষ্টি হয়, ঐ সকল সম্প্রদায়ে প্লেটে ও আরিস্টটলের দর্শনের দ্যায় সাৰ্ব্বভৌম ভাব দৃষ্ট হয় না। সোফিষ্টদিগের স্তায় তাহদের ও আত্মাই (Self or subject) দর্শনের প্রধান লক্ষ্য হইয়া উঠে, কিন্তু সোফিষ্টদিগের ন্যায় এই আত্মার প্রকার সঙ্কীর্ণ ব্যক্তিত্বে পর্য্যবসিত হয় নাই । এই সকল দর্শন সম্প্রদায়সমূহের মতে যাবতীয় জাগতিক পদাৰ্থ আত্মসম্প্রসারণের সহায়ভূত। যে পদার্থ আত্মার পক্ষে আবণ্ডক নহে, তাহার অস্তিত্ব নিষ্ফল। এরূপ দার্শনিক মত সঙ্কীর্ণ এবং একদেশদর্শী হইলেও, পূৰ্ব্বে যেমন দর্শনমতবাদ ও মন্থয্যের ধৰ্ম্ম ও সামাজিক জীবন স্বতন্ত্র ছিল, আরিষ্টটলের পরবর্তী দর্শন-সম্প্রদায়সমূহে দর্শন জ্ঞানপ্রদায়ক শাস্ত্রবিশেষ মাত্র মা হইয়া জীবনের সহিত একীভূত হইয়াছিল। ’ আরিষ্টটলের পরবর্তী চারিট দার্শনিক সম্প্রদায় প্রসিদ্ধ,— ষ্ট্রোইকু দর্শন, এপিকিউরীয় দর্শন, স্কেপটিকদর্শন এবং নিওপ্লেটনিক দর্শন। যথাক্রমে ইহtদের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দেওয়া शाहे८डtझ ।