পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৪৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পীঠিকা (স্ত্রী) ১পিড়ি, আসন, চৌকী। ২ মূৰ্ত্তি বা স্তম্ভ'- - দির মূলভাগ। ৩ অংশ, অধ্যায়। পাঠ ( স্ত্রী ) পীঠ স্বল্পার্থে উীষ । আসন। চলিত পীড়ী। শব্দয়-) क्रौड़, • ब५ । २ अवशाश्न । हुबनि, Gख्द्र, नरू, cगः। शहै। পীড়য়ডি-তে । লোটু পীড়য়ভু-ভাং । লিটু পীড়য়াঞ্চকার- v চক্রে। লুঙ, অপিপীড়ৎ । অণীপিড়ৎ-ত। পৃষ্ট পীড়য়িযাতি-তে। আ-পীড়। ১ ভূষণ। ২ ক্লেশ। আপীড়য়তি। উদ-পীড় । ১ উৎপীড়ন । ২ ক্লেশ । উৎপীড়য়তি । উপ-পীড়, ১ দৃঢ় গ্রহণ। ২ সংশ্লেষ। উপপীড়য়তি। নি-পীড়, ১ দৃঢ়গ্ৰহণ, ২ সম্পীড়ন । নিপীড়য়তি। নিৰ্ব-পীড়। নিপীড়ন, অবিস্ত্রাদির নির্জলীকরণ। যগ!--নিপীড়য়তি । পীড়ক (পুং ) , যন্ত্রণাদাতা। ২ ব্ৰণ চক্র প্রভৃতি চৰ্ম্মরোগবিশেষ। বালকবালিকাদিগের তালুদেশে পীড়ক রোগ জন্মে। [ তালু পীড়ক দেখ। ] পীড়ন (রী ) পীড়-বাধে অবগাহে বা ভাবে লুই। ১ শস্তাদি সম্পন্ন দেশের পরচক্র স্বারা পীড়ন, পররাষ্ট্রপীড়ন, পরের দেশ অবরোধ। “পীড়নঞ্চৈৰ পাঞ্চাল্যাস্তগ। দূতে পরাজয়ঃ।" ( দেবীভাগ” ৩১২৷১৩ ) ২ দুঃখ দেওয়া । “ভরণং পোষ্যবৰ্গস্ত প্রশস্তং স্বর্গসাধনম্। নরকং পীড়নে চান্ত তন্মাদৃ্যত্নেন তং ভরেৎ ॥” ( দায়ভাগধূস্ত মকুবচন ) ৩ মর্দন, চলিত টিপন, চাপন ইত্যাদি । ৪ উচ্ছেদ । ৫ বিনাশ ॥ ৬ অভিভব । ৭ সাগ্রহগ্ৰহণ ৮ নিপীড়ন । ৯ বায়ুজন্ত ত্ৰণবেদন। ১০ ব্রণের পূ্য নির্গমনার্থ অঙ্গুলাদি দ্বারা পীড়ু অর্থাৎ টেপা । পীড়নীয় (ত্রি) পীড় অনীয়র। পীড়া পীড়ার যোগ । পীড়। (স্ত্রী) পীড়নমিতি পীড়-অঙ, (যিদুভিদাদিভেহি । পী ৩৩১ •৪ ) ততষ্টাপ, । পীড়ন, পর্যায়—বাধ, বাথ, ঃখ, অ্যানন্ত, প্রস্তুতিজ, কষ্ট, কৃচ্ছ. অষ্ঠিীল, আবাধ, আগানগু, রঞ্জ, বেদন, আপ্তি, তেদি, রুজ। (বৈদ্যকরত্নমালা) শরীরাদিতে বহুবিধ রোগ অাছে। শরীরগত রোগই *ौफ़ नाम अलिहिष्ठ । *ौज्रांगांजई कहेनांग्रक । শাস্ত্রোক্ত নিয়ম লঙ্ঘন করিলে পীড়া জন্মে। আত্মার পীড়নকেই পীড়া কহে । দুঃখমাত্রই পীড়া পদবাচা । এই দুঃখ বা পীড়া মাধ্যাত্মিক, আদিদৈবিক ও আধিভৌতিক ভেঙ্গে ত্রিবিধ। [আধাত্মিক প্রভৃতি চুঃখের বিবরণ গুঃখ শবো দেখ।] পীড়ার মুলকারণ অধৰ্ম্ম । অপৰ্ম্ম আচরণে झब्रगृहै জন্মে । দূরদৃষ্টবশতঃই রোগ, শোক প্রভৃতি নানাবিধ পীড়া হয় । [ 8१० যাহাতে দূরদৃষ্ট জন্মিতে ন পারে, এইরূপ আচরণই বিধেয়। { J औज़ा বর্তমান স্থলে শারীরিক পীড়ার বিষয় অতি সংক্ষেপে আলোচিত হইল। বাত, পিত্ত ও শ্লেষ্মাই সকল রোগ বা পীড়ার মূল। সকল পীড়াচেই ইহীদের লক্ষণ দেখিতে পাওয়া যায়। এই জগৎ যেরূপ সত্ত্ব, রজঃ ও তমঃ এই তিন গুণ ব্যতিরেকে থাকিতে পারে না। তদ্রুপ দেহস্থিত রোগসমূহ बापू, भिख ७ रुन ७हे डिम बाडौड किङ्करङहे अप्स्न न । দোষ, ধাতু এবং মলের পরস্পর সংসর্গস্তেদে, স্থানভেদে এবং কারণ ভেদে দেহস্থ রোগ বিবিধ প্রকার হইয়া থাকে। সপ্তধাতু দুষিত হইয়া যে সকল রোগ উৎপন্ন করে, তাছাদের রসঙ্গ, রক্তজ, মাংসজ, মেদজ, অস্থিঞ্জ, মজ্জ এবং শুক্রজ প্রভৃতি নাম দেওয়া যায়। ইহাদের মধ্যে রসধাতু দূষিত হইলে মনে অশ্রদ্ধা, অরুচি, অপাক, অঙ্গমর্গ, জর, হৃল্লাস, অক্ষুধা, শরীরের গুরুত, পাণ্ডু, হৃদ্রোগ, মার্গের উপরোগ, কৃশস্ত, মুখের বিরসতী, অবসন্নতা, অকালে ত্বকের সঙ্কোচ ও কেশপঙ্ক হওয়া প্রভৃতি বিকার জন্মে। শোণিত দূষিত হইলে কুষ্ঠ, পীড়ক, বিসপ, নীলিকা, তিল, বাঙ্গ, গুচ্ছ, ইন্দ্রলুপ্ত, প্লীহা, গুল্ম, বাতরক্ত, অর্শঃ ও রক্তপিত্ত প্রভৃতি রোগোৎপত্তি হয় । মাংস দুষিত হইলে হইলে অধিমাংস, মৰ্পদ, অধিষ্টি হব, গলগণ্ডিক প্রভৃতি মাংসসংঘাত প্রভৃতি বিকার ; মেদ দূষিত হইলে গ্রন্থি, বৃদ্ধি, গলগগু, অৰ্ব্বদ, ওষ্ঠ প্রকোপ, মধুমেহ, অতিস্থূলতা ও অতিশয় ঘৰ্ম্মনিগম প্রভৃতি বিকৃতি ; অস্থি দূষিত হইলে অধ্যস্তি, অধিদত্ত, অস্থিতোদ ও কুনখ প্রভৃতি বিকার এবং মজ্জা দূষিত হইলে তমোদৃষ্টি, মূৰ্ছ, ভ্রম, শরীরের গুরুত, উরু, ও জঙ্ঘার স্থূলতা প্রভৃতি পীড়া জন্মে। শুক্র দুষিত রোগে ক্লীবতা, শুক্রাশ্বরী ও শুক্রমেই প্রভৃতি পীড়া এবং মলাশয় দুষিত হইলে ত্বকুরোগ, মলকুদ্ধ বা অতিশয় নিঃসরণ প্রভৃতি পীড়া উপস্থিত ছয় । শারীরিক কোন ইঞ্জিয়ের স্থান দুষিত হইলে ইন্দ্রিয়-কার্যের অপ্রবৃত্তি অথবা অস্বাভাবিক প্রবৃত্তি হইয় থাকে। দোষ কুপিত হইয়া শরীরের সর্বস্থানে ধাবিত হয়। শরীর মধ্যে যে স্থানে সেই কুপিত দোষের সংসর্গে অন্য দোষ বি গুণ হইয়া পড়ে, তৎস্থানেই পীড়ার উৎপত্তি দেখা যায়। এইরূপ সন্দেহ হয় যে জর প্রভৃতি রোগ বায়ু, পিত্ত ও কফ এই তিন দোষকে নিতা আশ্রয় করিয়া থাকে। কিন্তু নিরস্তর অtশ্রয় একান্ত অসম্ভব, কারণ তাছা হইলে সকল প্রাণীকেই নিত্য পীড়িত থাকিতে হয়। বায়ু, পিত্ত ও কফ জরের প্রকৃত লক্ষণ হইলেও উছ অবাস্তুরভাবে জ্বরাদিতে নিয়ত লিপ্ত থাকে না । যেমন ধিন্থাৎ, বাত, বঞ্জ, বর্ষ আকাশ ব্যতীন্ত প্রকাশ পায় না, অপচ স্তাহারা নিত্য আকাশে