পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৪৯০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরোজপুর এই মিথ্যা কথা রাজার মনেতে লাগিল । নদীর উচ্ছন্ন কর রাজ আজ্ঞ দিল। ' বিশারদমত সাৰ্ব্বভৌম ভট্টাচার্ষ্য । স্ববংশে উৎকল গেলা ছাড়ি গৌড়রাজ্য ” ইত্যাদি। জয়ানন্দের পিতা হুবুদ্ধিমিশ্র চৈতগুদেবের একজন প্রিয়ভক্ত ছিলেন এবং জয়ানন্দ নিজেও মহাপ্রভুর কৃপালাভ করিয়াছিলেন । এরূপ স্থলে, তিনি যে সকল তাৎকালিক কথা লিখিয়tছেন, তাহ অবিশ্বাস করিবার কারণ নাই। অধিক সম্ভব, মুসলমানের দেীরাত্ম্যে খৃষ্টীর ১৫শ শতাবীর প্রথমভাগেই অনেক ব্রাহ্মণসস্তান সমাজচ্যুত হইয়াছিলেন। ইহা অসম্ভব নহে, নবদ্বীপের নিকটবর্তী পীরলিয়াগ্রামেই ঐরুপ সমাজচ্যুত ব্রাহ্মণের বাস ছিল, তঁtছাদের উৎপাতে তখনকার সর্বপ্রধান ব্রাহ্মণসমাজ নবদ্বীপ বিশেষরূপ আক্রাস্ত হইয়াছিল। ঐ সকল সমাজচ্যুত ব্রাহ্মণগণ গৌড়ের মুসলমান রাজদরবারে প্রতিপত্তিলাভ করিয়াছিলেন। তাহদের উৎপাত লক্ষ্য করিয়াই জয়ানন্দ লিখিয়াছেন যে, নবদ্বীপ উচ্ছন্ন যাইবার উপক্রম হইয়াছিল এবং কুলাচাৰ্য্যগণ লিখিমীছেন যে ‘বসুন্ধর দগ্ধ হইয়াছিল। রাষ্ট্ৰীয় ব্রাহ্মণাদির সামাজিক ইতিহাস পর্যালোচনা করিলে অনায়াসেই জানা যায় যে, বিশেষ বিশেষ স্থান বা ব্যক্তিবিশেষের নাম হইতে বিভিন্ন সমাজ বা থাকের উৎপত্তি হইয়াছে। এরূপস্থলে "পীরলিয়া গ্রাম হইতে পীরালী থাকের উৎপত্তি কল্পনা করা অসঙ্গত নহে। পূৰ্ব্বে পীরালীদিগের উৎপত্তি সম্বন্ধে যে প্রবাদ উদ্ধৃত হইয়াছে, তাহাতে জানা যায় যে, প্রায় সাড়ে চারিশত বর্ষ হইল, পীরালী থাকের উৎপত্তি হইয়াছে। এদিকে জয়ানমের সাময়িক উক্তিত্বারাও ঐ সময়ে পৗরলিয়া গ্রামীদের উৎপাতের কথা পাওয়া যাইতেছে। পৗরালীদের মধ্যে অনেক সদ্বংশীয় ও সদাচারসম্পন্ন হিন্দু থাকিলেও অনেকে আবার যবন বলিয়াই গণ্য হইয়াছিল। এই কারণ ঐ সকল যবনধৰ্ম্ম পীরালীর ঐক্ষেত্রের জগন্নাথমন্দিরে প্রবেশ করিবার অধিকার ছিল না ; তাহ ১৮০৯ খৃষ্টাব্দের ৪ আইনের ৭ ধারা হইতে জানা যায়। পরে ১৮১০ খৃষ্টাব্দের ১১ অাইন দ্বারা নিষিদ্ধজাতির তালিকা হইতে পীরালী নাম তুলিয়া দেওয়া হইয়াছে। যাহা হউক ঐ নিষিদ্ধ পীরালীর সহিত কলিকাতার সুপ্রসিদ্ধ ঠাকুরগোষ্ঠীর কোন সম্বন্ধ আছে কি না, তাহা বুঝা গেল নাগ । পরোজপুর, বাঙ্গালার বাখরগঞ্জ জেলার একটা উপবিভাগ। ভূপরিমাণ ৬৯২ বর্গমাইল । গ্রামসংখ্যা ৯৪৫টী। কাছনা নদীতে দস্তাবৃত্ত্বিদমনের জন্ত এই উপবিভাগ স্থাপিত হয় ।

  • বঙ্গের জাতীয় ইতিহাস ( দ্বিতীয়াংশে ) বিস্তৃত বিবরণ দ্রষ্টব্য।

{ واسنا 8 ] () পীযু পরোজপুর, মঠবাড়ী, ভাণ্ডাস্ক্রিয় ও স্বরূপকাটী নামক স্থানে भूणिप्णच्न शैक्लि श्राहक्क । পীরোত্তর বা পীরাম, মুসলমান সাধু বা ফকিরদিগের লুধিকৃত নিষ্কর জমি। ঐ জমি সম্পত্তিশালী মুসলমানগণ সময় সময় দান করিয়াছেন । - পীল, রোধ, ক্রিানিরোধ, জীভাব। স্থাপি, পরন্মৈ, সক, সেট । লটু পালতি। লোই পীলতু। লিটু পিপীল। লুট গীলিত । পলক (পুং ) পালতি শুভূতীিতি পীল-খুল। ১ রোধক । ২ পিপীলিকা । ( হেমচ• ) ৩ কায়স্থদিগের পদ্ধতিবিশেষ । "আদিত্য বিষ্ণুগুপ্তাশ্চ খিলশ, পীলকন্তথা।" (বঙ্গজকুলা কা” ) পীল । স্ত্রী ) হোমীয় দ্রব্যভেদ । “গুলগুলু পালানলদোংক্ষগন্ধি।” ( অথৰ্ব্বস ৪৩৭৩ ) পীলাজী, পেশব বাজীরাওর একজন মহারাষ্ট্রীয় জানের পুত্র। মহম্মদ শাহের রাজত্বের সপ্তদশ বৎসরে ইতিমধুদ্দৌলা, কামুদ্দীন খাঁ ও পশরৎ জঙ্গের সহিত নরবার প্রদেশে ইহার ঘোরতর যুদ্ধ হয়। যুদ্ধে লীলাঙ্গীর জয়লাভ হইয়াছিল। রপ্তম আলীকে পরাজিত করিয়া তিনি আন্ধদাবাদ ও বয়দার পার্শ্ববর্তী জেলসমূহ লুট করেন। মালব অধিকৃত হইবার পর তিনি যমুনা ও গঙ্গার অন্তর্বর্তী অস্তুৰ্বেদ ( দোয়াব ) রাজ্য অধিকার করিতে আদিষ্ট হন । এই সময়ে নবাব বুর্থান-উল-মুলক্ অস্তর্বের্ণ পার ছইয়। আও। যাইতেছিলেন । উভয় দলে ঘোরতর সংঘর্ষের পর পীলাজী প্রত্যাবর্তন করেন। আহ্মদ শাহ আবদালীর বিরুদ্ধে তিনি ৩ হাজার সৈন্ত লইয়া গমন করেন। পাণিপথক্ষেত্রে দুরাণীর যুদ্ধে তাহার জীবন-লীলার শেষ হয়। পলু (পুং) পালতি প্রতিষ্টভূতীতি পাল-কু ( যুগযুবাদয়শ্চ। উ৭, ১৩৭) ১ গ্রন্থন। ২ পরমাণু ও মতলজ। ৪ অস্থি ৫ তালকাণ্ড । ( মেদিনী ) পলুৰ্গজে ক্রমে কাণ্ডে পরমাণুগ্রহনয়োঃ । পলুস্তালাস্থিথওে চ (বিশ্ব ) শু বাণ । ৭ রুমি। ( ধরণি) ৮ কোঙ্কণাদি দেশে প্রসিদ্ধ ফলবৃক্ষ বিশেষ । চলিত strstts I (Salvadora persica) Tooth-bruss tree fo—* भहांकाँड़े-न्शूि । তৈলঙ্গ-গোবু গুচেষ্ট্র বিরাগও মে-বন। তামিল—কোকু। ভূমিজামি ও আখরোট নামে প্রসিদ্ধ। সংস্কৃত পৰ্য্যায়-গুড়ফল, শ্রংসী, শীতসছ, ধানী, বিরেচন, ফলশাখী, গুাম, করম্ভবল্লভ। ইহার ফলগুণ প্লেয়, বায়ু ও শুষ্মনাশক। পিত্তা, ভেদক । যে পীলু মধুর ও তিক্তরস, তাহা অতিশয় উষ্ণ নছে এবং ত্রিদেtষনাশক । r - থগু ।