পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৫৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পুরাণ তদৰ্থোৎত্র চতুর্লঙ্গসংক্ষেপেন নিবেশিতঃ। পুরাণানি দশাধে চ সাম্প্রতং তদিহোচ্যতে।" " ( রেবামাহাত্মা ১। ২৩-৩e ) এই রেবামীহাস্থ্যে স্পষ্টই আছে--সত্যবতীনন্দন ৰাtল অষ্টাদশ-পুরাণের বক্তা । o

  • অষ্টাদশ পুরাণীনাং বক্ত। ফত্যবতীস্বতঃ ” ( রেবাখ ও )

পদ্মপুরাণে স্বষ্টিখণ্ডেও রেবtমাহাত্মা সমর্থিত হইয়াছে— *প্রবৃত্তিঃ সৰ্ব্বশাস্ত্রাণাং পুরাণস্তাভবত্তদা। কালেনাগ্রহণং দৃষ্ট পুরাণন্ত তদা ৰিভূঃ ॥ ব্যাসন্ধপী তদ ব্ৰহ্মা সংগ্ৰছাৰ্থং যুগে যুগে । চতুলক্ষ প্রমাণেন দ্বাপরে দ্বাপরে বিভূঃ ॥ তদষ্টাদশধ কুত্বা ভূলোকেহস্মিন প্রকাশতে ” (কৃষ্টিখ" ১অঃ ) উপরোক্ত পুরাণ বচনের উপর নির্ভর করিয়। অনেকেই কৃষ্ণদ্বৈপায়ন বেদব্যাসকেই অষ্টাদশপুরাণের রচয়িত বলিয়া মনে করিয়া থাকেন। প্রকৃত কি ১৮ খানি পুরাণ একজনের जैरुङ्ग-७थश्रृङ ? •खिउरुङ्ग छौङ्ग छेश्वम्नध्ठ विध्रोमोशन्न भइोश्वग्न লিথিয়াছেন,— “সকল পুরাণ অপেক্ষ বিষ্ণুপুরাণের রচনা প্রাচীন বলিয়া বোধ হয়। যাবতীয় পুরাণ বেদব্যাস প্রণীত বলিয় প্রসিদ্ধি আছে, কিন্তু পুরাণ সকলের রচনা পরস্পর এত বিভিন্ন, যে এক ব্যক্তির রচিত বলিয়া বোধ হয় না। বিষ্ণুপুরাণ, ভাগবত ও ব্রহ্মবৈবৰ্ত্তপুরাণের এক এক অংশ পাঠ করিলে এই তিন গ্রন্থ এক লেখনীর মুখ হইতে বিনির্গত বলিয়া প্রতীতি হওয়৷ L 4&b. ) দুষ্কর । বিষ্ণুপুরাণ প্রভৃতির সহিত মহাভারতের রচনার এত | বিভিন্নত যে যিনি বিষ্ণুপুরাণ কিম্বা ভাগবত, অথবা ব্রহ্মবৈবর্ত- | পুরাণ রচনা করিয়াছেন, তাহার রচিত বোধ হয় না।” মৎস্তপুরাণে লিখিত আছে— * পুরাণমেকমেবাসীৎ তদা কল্লাস্তরেইনখ । ত্রিবর্গসাধনং পুণ্যং শতকোটিপ্রবিস্তরম্ ॥ নিৰ্দ্দশ্বেষু চ লোকেষু বাজিরূপেণ বৈ ময়।। অঙ্গানি চতুরো বেদাঃ পুরাণং স্তায়বিস্তরম্ ॥ মীমাংসা ধৰ্ম্মশাস্ত্রঞ্চ পরিগৃহ ময় কৃতম্। মৎস্তরূপেণ চ পুনঃ কল্লাদাবুদ কার্ণবে ॥" (৫৩৪-৭ ) মৎস্তপুরাণ স্পষ্টই নির্দেশ করিতেছে যে, সৰ্ব্বপ্রথমে এক খানি পুরাণই ছিল । তাহা হইতে ক্রমে ১৮ খানি পুরাণ উৎপন্ন হইয়াছে । প্রথমে যে ১৮ থানি পুরাণ ছিল এবং ব্যাস ১৮ খানি পুরাণ প্রকাশ করেন নাই, এ সম্বন্ধে পরবর্তী বিষ্ণুপয়াণ ও ব্রহ্মাণ্ডপুরাণের বিবরণ পাঠ করিলেই সন্দেহ পুরাণ ব্ৰহ্মাও পুরাণে" এইরূপ লিখিত আছে— “প্রথমং সৰ্ব্বশাস্ত্রাণাং পুরাণং ব্রহ্মণ স্বতম্। অনন্তরঞ্চ বক্সে ভ্যে ৰেদান্তস্য বিনিঃস্বতা, μ" ( 21αν ) সকল শাস্ত্রের অগ্ৰে ব্ৰহ্ম কর্তৃক পুরাণ উৎপন্ন হইয়াছে, পরে তাহার মুখ হইতে বেদসমূছ বিনির্গত হইয়াছিল। পরে অপর এক স্থলে (৬৫ অঃ ) লিখিত অাছে, বেদব্যাসই একখানি মাত্র পুরাণসংহিতা প্রচার করেন ॥৮ বিষ্ণুপুরাণে স্পষ্ট লিখিত আছে— “আখ্যানৈশ্চাপুপিাখ্যানৈর্গাথাভিঃ কল্পগুদ্ধিতিঃ । পুরাণসংহিতাং চক্রে পুরাণার্থবিশারদঃ ॥ প্রখ্যাতে ব্যালশিষ্যোহভূত হতে বৈ রোমহর্ষণঃ। পুরাণসংহিতাং তস্মৈ দদৌ ব্যাসো মহামুনিঃ ॥ সুমতিশাগ্নিবর্চাশ্চ মিত্রয়ু শংশপায়ন । অঙ্কতন্ত্রণোহথ সাবর্ণি: বটুশিষ্যস্তস্ত চাম্ভবম্ ॥ কাগুপঃ সংহিতাকৰ্ত্ত সাবর্ণিঃ শাংশপায়নঃ। রোমহর্ষণিক চান্ত তিমুণাং মুলসংহিতা ॥ চতুষ্টয়েনাপ্যেতেন সংহিতানমিদং মুনে । আদ্যং সৰ্ব্বপুরাণীনাং পুরাণং ব্রাহ্মমুচ্যতে ॥ অষ্টাদশ পুরাপানি পুরাণগুণঃ প্রচক্ষতে ।” ( বিষ্ণুপু ৩৬১৬-২১ ) তৎপরে পুরাণার্থবিশারদ (ভগবান বেদব্যাস ) আখ্যান, উপাখ্যান, গাথা ও কল্পগুদ্ধিরশ সহিত পুরাণসংহিতা রচন। দুর হুইবে । ஒசி (৭) অধ্যাপক উইলসন ও রাজ রাজেশ্রীলালপ্রমুখ কোম কোন পুয়াবিদ এই পুরাণকে বায়ুপুরাণ মনে করিয়া মহাভ্রমে পতিত হইয়াছেন। এখন বে সমস্ত পুরাণ প্রচলিত আছে, তন্মধ্যে এইখানিই সৰ্ব্বতোভাবে পঞ্চলক্ষণী ক্রাঞ্জ ও সৰ্ব্ব প্রোচীম বলিয়। অনেকেই স্বীকার করিয়াছেন । (৮) ব্ৰহ্মাওপুরাণে চারি সংহিতামূলক পুরাণসংহিতায় প্রসঙ্গ আছে, কিন্তু তাহাতে অষ্টাদশ পুরাণের আদৌ প্রসঙ্গ নাই। বিষ্ণুপুরাণের tौकाकाब्र वैषब्रपाभौब्र भाऊ"aप्रुषार गरिठानt চতুষ্টয়েল সারোদ্ধাররূপ, মিদং বিষ্ণুপুরাণং * * * কেচিত্ত সংহিতানাং চতুষ্টয়েল ইদমদ্যং ব্রাহ্মমুচ্যতে ইতি বদস্তি । অর্থাৎ এই চারিখালি সংহিতার সারোদ্ধারস্বরূপ এই বিষ্ণুপুরাণ, জাবার কেহ কেহ বলেন, এই চারিখানি সংহিতার সাহাৰাে এই আদি স্বাক্ষস্থা হইছে। (s) तिकूनू ब्रांt१ङ्ग छैौकाकाङ्ग औषब्रचांभौ शिशिप्रांरश्न, ‘স্বয়ং দৃষ্টার্থঙ্কথনং প্রাহুয়াখানকং বুধাঃ। শ্ৰুতস্তীর্থস্ত কথমমুপাখ্যামং প্রচক্ষতে । गाक्षींश्च निरृंौeवङ्कठिौडङ्घ: । कन्न७fवः वtखनिनिः।' च्यर्थt९ वङ्ग६ ८णधिग्न! cय नकल दिशग्न रुश शहैब्रttइ, उठांझाग्न नौभ DBBDS BBBBHBD DDB BD BBBBS BBDDDD D BBBDS