পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৬৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পুরাণ ( ব্রহ্মবৈবর্ত) বানের সহিত দৈবকী ও বামুদেবের সংবাদ, ৯২ খ্ৰীকৃষ্ণপ্রেরিত উদ্ভবের বৃন্দাবনে আগমন, বৃন্দাবন-দর্শন এবং তৎকর্তৃক ঐরাধিকার স্তব, ৯৩ রাধিক এবং উদ্ধবের কথোপকথন, ৯৪. উদ্ধবের প্রতি রাখার সর্থীর উক্তি, উদ্ধবের কলাবতী উপাখ্যান-কথন, ৯৫ রাধিকার খেদবর্ণন, ৯৬ উদ্ধবের প্রতি রাধার উপদেশ, ৯৭ রাধা এবং উদ্ধবের সংবাদ, ১৮ মথুরায় উদ্ধবের প্রত্যাগমন, ভগবান সমীপে তাহার বৃন্দাবন-বাৰ্ত্তাকথন, ৯৯ বসুদেবসমীপে গর্গের রাম ও কৃষ্ণের উপনয়নপ্রস্তাব, তথায় ঋষিগণের গমন, বসুদেব কর্তৃক প্রকৃতিবৃত্তান্তকথন, ১•• বসুদেব সমীপে দেবদেবীর সমাগম, ১০১ কৃষ্ণ ও বলরামের উপনয়ন, তথায় সমাগতগণের স্ব স্ব গৃহে গমন, ১০২ সান্দীপনি মুনির নিকট কৃষ্ণ ও বলরামের বেদ অধ্যয়ন, মুনিপত্নীকৃত তাহীদের স্তব এবং গুরুদক্ষিণাদান, ১৯৩ দ্বারাবতী-নিৰ্ম্মাণ-জন্ত বিশ্বকৰ্ম্মার প্রত্যুপদেশকথন-প্রসঙ্গে শ্ৰীকৃষ্ণের বাস্তুগুভাশুভ বিবরণাদিকথন, ১০৪ খ্ৰীকৃষ্ণ সমীপে ব্ৰহ্মা এবং সনৎকুমার প্রভৃতি দেবগণের সমাগম, শ্ৰীকৃষ্ণের দ্বারকাপ্রবেশপূৰ্ব্বক উগ্ৰসেন প্রভৃতির সহিত কথোপকথন, ১• ৫ রুক্মিণীর বিবাহে ভীষ্মকরাঞ্জ প্রতি শতাননীবাক্য এবং তচ্ছ বণে কৃষ্ট রুক্মিণীর বাক্য, ১৯৬ রেবতী ও বলদেবের বিবাহ, শ্রীকৃষ্ণের কুণ্ডিন নগরে গমন এবং শাস্ব রাজার ভগবদধিক্ষেপ, ১ •৭ হলধর কর্তৃক রুক্মিণীর পরাজয়, শ্ৰীকৃষ্ণের অধিবাস, বিবাহ-প্রাঙ্গণে শুভাগমন, ভীষ্মকরজিকৃত শ্ৰীকৃষ্ণের স্তব, ১৯৮ রুক্মিণীসম্প্রদান, ১৯৯ খ্রীকৃষ্ণের সহিত অরুন্ধতী | প্রভৃতির কথোপকথন, বরযাত্ৰিগণের বধু ও বর লইয়া দ্বারকায় গমন, ১১০ ভগবানের নিকট হইতে নন্দ ও যশোদার কদলীবন-গমন, রাধা এবং যশোদার সংবাদ, ১১১ যশোদার প্রতি রাধিকার ভক্তিজ্ঞান উপদেশ এবং কৃষ্ণের রাম প্রভৃতি নামনিরুক্তিকথন, ১৯২ রুক্মিণীর গর্ভাধান, কামজন্ম, কামকর্তৃক শম্বর দৈত্যবধ, রতি এবং কামের দ্বারকায় গমন, শ্ৰীকৃষ্ণের ষোড়শ সহস্ৰ কামিনীর পাণিগ্রহণ, তাহাদিগের অপত্যসংখ্যা, কুৰ্ব্বাসাকে শ্ৰীকৃষ্ণের কন্যা-সম্প্রদান এবং দুৰ্ব্বাস কৃত শ্ৰীকৃষ্ণের স্তব, ১১৩ কৈলাসগত দুৰ্ব্বাসার পাৰ্ব্বতীর উপদেশে পুনরায় দ্বারকায় গমন, শ্ৰীকৃষ্ণের হস্তিনায় গমন, জরাযন্ধ ও শাববধ, ও দস্তবক্ৰ-বধ, কুরুপাগুবযুদ্ধে फूछांद्र-शब्रभ, فينة" পারিজাত-হরণ, সত্যভামাকে গুণাকৰ্ত্তত মৰ্কথন, ১১৪ উষা ও অনিরুদ্ধের স্বপ্নসমাগম, চিত্ৰলেখা কর্তৃক অনিরুদ্ধ-হরণ এবং উষা ও অনিরুদ্ধের গন্ধৰ্ব্ববিবাহ, ১১৫ রক্ষক-মুখে উষার গর্ভশ্রবণে কৃষ্ট বাণের প্রতি মহাদেব প্রভৃতির হিত উপদেশ, বাণামুরের Xİ [ ૭86. ] ১৬২ পুরাণ (ব্রহ্মবৈবর্ত) যুদ্ধযাত্রা এবং বাণ ও অনিরুদ্ধ-সংবাদ, ১৬ বাণের প্রতি भनिम्नएकत्र जोगीब्र गक पश्षिहङ्गीर्डन, श्रषद्र कर्छुक রতিহরণ-বৃত্তান্তকথন এবং অনিরুদ্ধ কর্তৃক বাণ-পরাজয়, ১১৭ গণেশ্বর প্রতি মুহাবের অনিরুদ্ধ-পরাক্রমকীৰ্ত্তন, ১১৮ জুতমুখে শ্ৰীকৃষ্ণের আগমন-সংবাদ-শ্রবণে মহাদেৰ এবং পাৰ্ব্বতীর কৰ্ত্তব্য বিষয়ক পরামর্শ, ১১৯ বাণের সভায় বলির আগমন, ছয় ও বলির কথোপকথনে হয় কর্তৃক বৈষ্ণবগণের প্রশংসা, হরি ও বলির কথোপকথনে বলিঙ্কত শ্ৰীকৃষ্ণের স্তব এবং শ্রীকৃষ্ণের বলিকে অভয়দান, ১২• যাদব এবং অস্থর-সৈঙ্গেয় যুদ্ধবর্ণনা, বৈষ্ণবজয়-উৎপত্তিকখন এবং শ্ৰীকৃষ্ণের নিকট বাণের পরাভব, ४२४ श्रृंशोणप्लांखाएमांमः१, २२२ शभडक-फे°tथjॉन, २२७ निझ|শ্রমে রাধী কর্তৃক গণেশপূজা, ১২৪ রাধিকার প্রতি গণেশৰাক্য, তাহাকে পাৰ্ব্বতীয় বরদান, পাৰ্ব্বতীয় আজ্ঞায় সখীগণ কর্তৃক রাধার সুবেশাদিকরণ, রাধিকার তেজে বিন্মিত হইয়া সিদ্ধাশ্রমदांनैौ ¢लरुऊां★tsग्न उँांशंग्न गमैौt* श्रां★मम ५११ अक्रांशिङ्गठ রাধিকার স্তব, ১২৫ মহাদেব কর্তৃক বামুদেবের জ্ঞানলাভ, ब्रांणश्रम-यष्क्षग्न अशूर्छांम, ५२७ ब्रांशाङ्करषद्र शूनद्राग्न जन्प्रिणन, রাধাকর্তৃক শ্ৰীকৃষ্ণের স্তবাদিকথন, শ্ৰীকৃষ্ণের প্রতি রাধিকার বিনয়গর্ভ বিবিধ প্রশ্ন এবং তাহার প্রতি কৃষ্ণের আধ্যাত্মিক জ্ঞানোপদেশকথন, ১২৭ রাধাকৃষ্ণের বিহার এবং যশোদার আনন্দ, ১২৮ নন্দের প্রতি শ্ৰীকৃষ্ণের কলিধৰ্ম্মকথন, গোকুলবাসীর রাধার সহিত গোলোকে গমন, ১২৯ ভাওঁীর-বনে আগত ব্ৰহ্মাদি কর্তৃক শ্ৰীকৃষ্ণের স্তব, যদুকুলধ্বংস, পাণ্ডবগণের স্বর্গরোহণ, ভাগীরথীর প্রতি ভগবতীর বরদান এবং গোলোকরোহণ, নারদের বদরিকাশ্রম হইতে ব্ৰহ্মলোকে গমন, স্বঞ্জয়-কগুীর সহিত বিবাহ ও বিহার, সনৎকুমায়-উপদেশে তপস্তায় গমন, তাহার প্রতি শঙ্কুর উপদেশবাক্য এবং নারদের মুক্তি, ১৩১ বহি এবং সুবর্ণের উৎপত্তিকথন, ১৩২ সমাসে ব্ৰহ্মাদিথগুচতুষ্টয়ার্থ নিরূপণ, ১৩৩ মহাপুরাণ এবং উপপুরাণ-লক্ষণকথন, মহাপুরাণের শ্লোকসংখ্য, উপপুরাণের নামকীৰ্ত্তন, ব্রহ্মবৈবর্তের নামনিরুক্তিকথন, তাহার মাহাত্মাবর্ণন, শ্রবণফল এবং শ্রবণক্রমে যথাক্রম অমুকীৰ্ত্তন। এখন কথা হইতেছে, উক্ত ব্ৰহ্মবৈবর্তকে প্রকৃত পুরাণ ব৷ আদি ব্রহ্মবৈবর্তৃপুরাণ বলিয়া গ্রহণ করিতে পারি কি না ? মৎস্যপুরাণের মতে— "রথন্তরস্ত কল্পস্ত বৃত্তান্তমধিকৃত্য যৎ । সাবর্ণিনা নারদীয় কৃষ্ণমহোত্মাসংযুতম্ ॥ যত্র ব্রহ্মবরাহস্ত চরিতং বর্ণতে মুহুঃ । তদষ্টাদশসহস্রং ব্রহ্মবৈবৰ্ত্তমুচ্যতে।” J) 0