পাতা:বিশ্বকোষ একাদশ খণ্ড.djvu/৭১৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


श्रृंझां१ (?ङ्गन ऎठडङ्ग ) ' - -ـــــــــــــــــسیسیپیسیصد কবিবরজিনসেনাচার্যাবধার্থমাসে। মধুদ্রিমণি ন বাচ্যে নাভিস্বনেঃ পুরাণে । তদন্থ চ গুণভাচার্য্যোবাচো বিচিত্রাঃ সকলকৰিকীন্দ্রব্রাতসিংহে জয়স্তি ॥” ৪•(উত্তরপুং ৭৭ পৰ্ব্ব) উক্ত শ্লোকগুলির তাৎপর্যা এই—মহাপুরুষরূপ রত্নসমূহের আকর মূলসত্যন্ধপ সমুদ্রে সেনবংশের উৎপত্তি ; সেই সেনংশে বাদিমদহস্তিসমূহের ৰিজাসনকারী মহাবীরের সেনাগ্রণী স্বরূপ সেই সেনবংশে বীরসেন ভট্টারক জন্মগ্রহণ করেন, জ্ঞান ও চারিত্র তাহাতে মূৰ্ত্তিমান এবং শিষ্যগণের প্রতি তিনি অমুগ্রন্থপরায়ণ । রাজন্তবর্গ তাঁহাকে প্রণাম করিবার সময় যখন র্তাহীদের মুখাজ আনিত করিতেন, তখন তাহার নখচন্দ্রকিরণে উছ নবত্র লাভ করিয়া বিকাশ পাইত। ভিক্ষুবৃক্ষ প্রতি পদে চুবোধ্য সিদ্ধিতুপদ্ধতি’ নামক গ্রন্থের তাহার রচিত টীকা পাঠ করিয়া অবলীলাক্রমে অর্থগ্রহণ করিতেন । বীরসেনের পর জিনসেন পট্টস্থ হইয়াছিলেন, রাজা অমঘোবর্ষ ইহার পদে লুষ্ঠিত হইয় আপনাকে পবিত্র মনে করিয়াছিলেন । জিনসেন নানাবিদ্যাপারদর্শী, বাদিগণের যুক্তিনিরাশ করিতে সুদক্ষ, সিদ্ধান্তসমূহের প্রকৃত তত্বজ্ঞ, আখ্যানবৰ্ণনপটু, গ্রন্থসমূহের সমস্তাভেদে সুনিপুণ এবং মহাকবি বলিয়া গণ্য ছিলেন। র্তাহার দশরথ নামক জনৈক সমধৰ্ম্ম পণ্ডিত ছিলেন, তাহার অতি প্রাঞ্জল ৰাখ্যায় সমস্ত শাস্ত্রার্থ মুকুরে মূৰ্ত্তির ন্যায় প্রতিবিম্বিত হইত, সেই ব্যাখ্য' বালকেরাও সহজে বুৰিতে পারিত । ৰিশ্ববিখ্যাত গুণভদ্র এই উভয়ের শিষ্য ছিলেন । তিনি সত্য কি তাহা বুঝিয়াছিলেন এবং যে সমস্ত গ্রন্থে সত্য নিহিত অাছে, তাহাও ব্যাখ্যা করিতে পারিতেন ! তাহার বুদ্ধিবৃত্তি সিদ্ধান্তসমূহের অন্তর্নিহিত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বিষয়গুলিও উৎকৃষ্টরূপে অধ্যাপন করিয়া বিশেষরূপ পরিপক্ক হইয়াছিল । তিনি তপোনিরত ছিলেন এবং তাহার বাক্যে মনুষ্যস্বদয়ের মহান্ধকার দূর হইত। সিদ্ধাস্তের টীকাকার বহুমান্য জিনসেন পুরুর জীবনী ( ঋষভচরিত ) রচনা করেন । এই গ্রন্থে সমস্তপ্রকার ছন্দ ও অলঙ্কারের দৃষ্টান্ত আছে এবং ইহাতে পরোক্ষভাবে সমস্ত শাস্ত্রীয় তত্বের উল্লেখ আছে, এই কাব্য অপরাপর সমস্ত কাব্যকে লজ্জিত করিয়াছিল এবং ইহা উচ্চশিক্ষিত পণ্ডিতমণ্ডলীরও বিশেষ শিক্ষাপ্রদ। জিনসেন যে গ্রন্থ সম্পূর্ণ করিয়া যাইতে পারেন নাই, গুণভদ্র তাহ শেষ করিয়াছিলেন, কিন্তু দীর্ঘকাল অতিবাহিত হওয়াতে র্তাহার গ্রন্থে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বিবরণ প্রদত্ত হইতে পারে নাই, সুতরাং রচনা কতক পরিমাণে সংক্ষিপ্ত হুইয়াছে, এই পুরাণের পাঠকমণ্ডলী, আত্মার বন্ধনাবস্থা কি? কি কারণে এই বন্ধন উৎপন্ন হয়, ইহার পরিণাম কি, পুণ্য এবং পাপের ব্যাখা । [ १$8 ] शूब्रांभ (६ङन छैउग्न )


كست تسمحت -

এবং জাত্মা বন্ধনমুক্ত হইয় কিরূপে নিৰ্ব্বাণলাভ করিতে পারে? ইত্যাদি শিক্ষালাভ করিবেন। পাঠকের ধৰ্ম্মবিশ্বাস সুদৃঢ় হইবে এবং কি প্রকারে জালৰ (কৰ্ম্মপ্রবাহ) শেষ করা যাইতে পারে এবং মির্জর কিরূপে হয়, তাছা তিনি বিশেষরূপে জানিতে পরিবেন, এই জন্য মুমুক্ষুগণ এই পুরাণ সৰ্ব্বদা পাঠ কিম্ব। শ্রবণ করিবেন, তদ্বিষয় চিন্তা করিবেন, এই পুরাণ যত্নের সহিত পূজা করিবেন এবং প্রতিলিপি প্রস্তুত করিবেন, গুণভদ্রের প্রধানশিষ্য লোকসেন তদীয় বিপুল প্রভাবশতঃ এই পুস্তক সম্বন্ধে গুরুর আদেশ প্রতিপালন করিয়াছিলেন, তাহার স্বারা উচ্চশ্রেণীস্থ ব্যক্তিগণের মধ্যে এই পুস্তকের বহুল প্রচার হইয়াছিল, সমস্ত শাস্ত্রের সারস্বরূপ এই পুরাণ ধৰ্ম্মবিৎ শ্রেষ্ঠব্যক্তিগণস্বার। ৮২৬ শকে পিঙ্গল সম্বৎসরে ৫ই আশ্বিন ( শুক্লপক্ষে ) বৃহস্পতিবারে পূজিত হইল, এই সময়ে বিশ্ববিখ্যাতকীৰ্ত্তি সৰ্ব্বশত্রুপরাজয়কারী অকালবৰ্ষনৃপতি সমস্ত পৃথিবীর উপর রাজত্ব করিতেছিলেন, তাহার রণহস্তিসমূহ গঙ্গাবারি পান করিয়াও তৃষ্ণ দূর করিতে সমর্থ না হইয়৷ মলয়বায়ুসঞ্চালিত স্বৰ্য্যকরা পৃগু নিবিড় চন্দনবনে প্রবেশ করিত, লক্ষ্মী অপরের আবাসে-অতৃপ্ত হইয়। তাছার হৃদয়ে চিরস্থখাবাস প্রাপ্ত হইয়াছিলেন, তাছার অধীনে লোকাদিত্য অপর নাম চেন্নপতাক বনবাস-প্রদেশের অন্তর্গত বঙ্কপুর শাসন করিতেন, তাহার নামানুসারে శ్రీ স্থান চেল্লপতাক নামে খ্যাত হইয়াছিল, তিনি চেন্নকেতনের পুত্র ও চেল্লধ্বজের কনিষ্ঠ, এবং পদ্মলয়বংশে জন্মগ্রহণ করেন, জৈনধৰ্ম্ম প্রচারে তাহার যথেষ্ট চেষ্টা ছিল । উক্ত প্রশস্তিবর্ণিত অমোঘবর্ষ ও অকালবৰ্ব্ব দাক্ষিণাত্যাধিগতি প্রসিদ্ধ রাষ্ট্রকূটরাজবংশে জন্মগ্রহণ করেন। অমোঘবর্ষের ৭৭৫ ও ৭৮৭ শকে উৎকীর্ণ তাম্রশাসন হইতে জানা যায় ৭৩৫ শকে তিনি সিংহাসনে আরোহণ করেন । এদিকে ৭০৫ শকের রচিত জিনসেনের হরিবংশে লিখিত আছে যে, বল্লভরাজ ( দ্বিতীয় গোবিন্দ ) তাহাকে পূজা করিতেন, এরূপস্থলে জিনসেন তাহার হরিবংশরচিত হইবার পর ৩০ বর্ষের অধিককাল জীবিত ছিলেন। অমোঘ-পুত্র স্বাকলিবর্ধ এই উত্তরপুরাণানুসারে ৮২• শকে রাজত্ব করিতেছিলেন, তাহার ৮২s শকে উৎকীর্ণ তাম্রশাসনও পাওয়া গিয়াছে, সুতরাং উত্তরপুরাণের প্রশস্তি প্রকৃত ইতিহাসমূলক বলিয়া প্রমাণিত হইতেছে। হরিবংশরচনাকাল ৭.৫ শক ও আলোচ্য উত্তরপুরাণের রচনাকাল ৮২• শকের মধ্যে, রাষ্ট্রকূটবংশে কৃঞ্চরাজপুত্র বল্লভ, অমোঘবর্ষ ও অকালবৰ্ষ এই তিনজন রাজার পরিচয় এবং জিনগেন, গুণভদ্র ও লোকসেন এই তিনজন জৈনকবির পরিচয় পাওয়া যাইতেছে। অমোঘবদ্ধ ও আঞ্চলিবর্ষের সময়ে খোদিত শিলালিপি