পাতা:বিশ্বকোষ ত্রয়োদশ খণ্ড.djvu/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্রহ্মদেশ [ ১৩০ | ব্রহ্মদেশ প্রস্তরাদি পাওয়া যায়। এতদ্ধির মান্দালয়ের ৩৫ ক্রোশ উত্তর পূৰ্ব্বে বহুমূল্য ও উংকৃষ্ট নীল ও চুনী পাথর ভূগর্ভ মধ্যে নিহিত | দেখা যায়। ঐ বিস্তীর্ণ ভূভাগ হইতে উত্তোলিত প্রস্তররাশি । স্নাঙ্গকোষেই রক্ষিত হইয়া থাকে। এখানকার চুনীই সৰ্ব্বদেশ- | বিখ্যাত । নাফ নদীর মোহন হইতে নেগ্রীস অন্তরীপ পর্য্যস্ত । মারাকান বিভাগ বিস্তৃত । ইহার উত্তর ও পুৰ্ব্ব সীমাস্থিত । D BBBBD BBBBBB BBBB BBDD DDS BBBBB উপতাকামে অবতরণ করা যায়। সমুদ্রোপকূলে কতকগুলি । ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দ্বীপ আছে, তন্মধ্যে চেম্বা ও রামরিই প্রধান । এই দ্বীপসমূহ সমধিক উৰ্ব্বর। সান্দাওয়ে হইভে নেগ্রিস পর্য্যন্ত উপকূল বন্দরের উপযোগ । নাফ নদী ব্যতীত এখানে ময়ু, কুলদন, তলক ও আয়েঙ্গ প্রভৃতি কয়েকটা নদী আছে। কুলঙ্গন ব। আরাকান নদীর দক্ষিণকুলে আকায়াব নগর অবস্থিত। পেগু ও ইরাধ ঠীবিভাগক বিশেষ শস্যশালী । এখানে । ঠয়াবতী, েৈলঙ্গ বা রেঙ্গুণ, পেগু ও লিষ্ট্রোঙ্গ প্রভৃতি নদী গ্ৰবা । fছ ত থকা তত্ত্বং নদীর অববাহিকাদেশসমূহ বিশেষ উৰ্ব্বরতা লাভ করিয়াছে। প্রায় ১ ৯৪ - মাষ্ঠল পথ অতিক্রম করিয়া করলে তা নদী বঙ্গোপসাগরে মিশিয়াছে । এই মদীতে প্রায় ৬শত মাইল পর্য্যস্ত নৌকাযোগে গমনাগমন করা যায়। সমুদ্রোপকূলস্থিত ভেনাসেরিম বিভাগ ১•• হইতে ১৮ উত্তর ম ক্ষণশ মধ্যে মবস্থিত। সাপ্লবীন এখানকার প্রধান ললা । ষ্টঃ fর উংপ স্থান অধ্যাপি আবিষ্কৃত ন কইলে ও ' যুনান প্রদেশের নিকট হষ্টতে ইহার খরস্রোত অল্প ভব করা যায়। এই বিভাগের পুৰ্ব্বসীমায় যে পর্বতমালা দৃষ্ট হয়, তাছ পেীঙ্গ -লেঙ্গ পৰ্ব্বতের শাখানাত্র। এই গিরিমাল দ্বারা : ব্ৰহ্ম ও শুামরাজ্য পৃথক্ হইয়াছে। রাজ্যে প্রধানত: তিনটী গিরিশ্ৰেণী বিস্তৃত দেখা যায়। । উকায় সৰ্ব্বপশ্চিমট আরাকানযোম-পৰ্ব্বত্ত—আসাম প্রদেশের নাগাগি রমাল। কষ্টতে মস্তকোন্তোলন করিয়া ক্রমে যেন নেগ্রিস অন্তরীপে শুমাগিয়া মিলিয়াছে। ইহার শেষ শাখায় ‘দদেন নামক পাগোদ । মন্দির ) অবস্থিত। মধ্যস্থলে পেগু- ; বোমা গিরিমালা। ইরাবতী ও সিম্ভেদ উপত্যক ভূমির মধ্য । দেশে অবস্থিম্ভ থাকির ইচ্ছ। উক্ত নদীদ্বন্ধের অববাহিক প্রদেশকে ! বিভক্ত রাখিয়াছে । এই পর্বতমালা উত্তরএন্ধের থেমে-থিন }গরশ্রেষ্টজ সাচুদেশ হইতে দক্ষিণাভিমুখে ইরাবতীর বা দ্বীপ | পান্ত বিস্তৃত হইয়াছে। এখানে একটা পৰ্ব্বতশিখরে ব্ৰহ্মবাণীর বিখ্যাত বেীন্ধউীর্থ ও শেও জগোন মন্দির অৰস্থিত। } পেীঙ্গ-লেঙ্গ সামক পৰ্বতমাল। সিম্ভোঙ্গ ও লালবীন উপত্যক দ্বয়ের মধ্যে বিস্তারিত। তেঙ্গ-গু প্রদেশের সন্নিকটে ইহার কএকটী শিখর ৬ হাজার ফিটেরও অধিক উচ্চ । এখানে কএকট ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র হ্রদও দেখিতে পাওয়া যায়। তন্মধ্যে রেঙ্গুণের নিকটবৰ্ত্তী কন্দ-গ্যি, হানজাদ জেলার তৃ হ্রদ ও বেসিন জেলার ইট হ্রদই উল্লেখযোগ্য। পেগু ও সিত্তৌজ এবং রেজুন ও ইরাবতীনদীর সংযোজক ইট থাল বাণিজ্য ও কৃষিকার্থ্যের বিশেষ উন্নতিসাধন করিয়াছে। এসিয়৷ মহাদেশের দক্ষিণভাগে তিনটা প্রায়োদ্বীপ সমুদ্রবক্ষে বিলম্বিত অাছে। আরব ও ভারতভূমের সহিত প্রাচীন জগতের ঐতিহাসিক ঘটনাবলী যেরূপ সমাশ্রিত, এই ব্ৰহ্মদেশের তদ্রুপ কোন ঐতিহাসিক বৈভব নাই । বিদ্যোল্পতি, ধৰ্ম্ম বা বাণিজ্যবিস্তারের কোন প্রসঙ্গই দেখা যায় না । মহাভারতে সভাপর্কে “শৰ্ম্মক” ও “বৰ্ম্মক” নামক দুষ্ট ট দেশের উল্লেখ আছে । কেহ কেহ এই ফুটিকেই যথাক্রমে শুাম ও ব্রহ্মদেশ বলিয়। নিন্দেশ করেন । মহাভারতের সময় এইস্থান কিরাতদিগের দেশ ও ভগদত্তের অধিকারভুক্ত ছিল । ভারতে আর্য্যহিন্দুগণের উপনিবেশ স্থাপিত হইবার পরে যে বাণিজ্য প্রভাব পূৰ্ব্বে মুদুর চীন এবং পশ্চিমে ইজিপ্ত প্রভৃতি স্থানে বিস্তারিত হইয়াছিল, তাহার কিছু যে ব্ৰহ্মরাজ্যে প্রবেশ লাভ করে নাচ, তাই বা কে বলিবে ? কেবল টলেমির ভূগোল বৃত্তান্তে এই স্থানের An ea Chersonesus অর্থাৎ সুবর্ণভূমি নাম পাওয়া যায় মাত্র। পূৰ্ব্বোক্ত প্রাঞ্জোম্বাপ-দ্বয়ের ন্যায় এখানেও ধীরে ধীরে ধৰ্ম্মপ্রভাব বিস্তৃত হইয়াছিল, কিন্তু দুঃখের বিষয় সেই ধৰ্ম্মস্রোতে ভাসিয়া ও অধিবাসিবৃন্দ আনন্দ লাভ করিতে পারে নাই । অহিংসার মহিমা উপলব্ধি করিতে ন পারিয়। তাছার প্রতিহিংসাবিষে জর্জরিত হইয়া আপনাদের বাসভূমি রণক্ষেত্রে পরিণত করিয়াছিল। পরম্পরের উন্নতিতে ঈর্ষ্যাম্বিত হইয়া তাহারা পার্শ্ববর্তী রাজ্যসমূহ ছারখারে দিয়াছিল। ইংরাজরাজ প্রথমে ত্রহ্মের ষে অংশ অধিকার করেন, তাহাতে আরাকান, থা-ডুন, মার্ভাবান ও পেগু প্রভৃতি চারিট রাজ্য ছিল । এই চারিটা স্নাঙ্গোর ইতিবৃত্ত চন্ধতে জানা যায় যে, এখানকার রাজগণ আপনাদিগকে ভারতীয় হিন্দুবংশোদ্ভব বলিয়া পরিচয় দিতেন । তাহাঙ্গের ধৰ্ম্ম ও শাস্ত্রগ্রন্থ যে ভারত হইত্তে আনীত হইয়াছিল, তাহাতে সন্দেহ নাই । এক সময়ে যে এখানে ভারতীয় সংস্রব ঘটিয়াছিল, টলেমি-লিখিত ইরাবতা নৰীয় ‘ৰ’ দ্বীপবংশবন্ত্রী স্থানসমূহের ভৌগোলিক তালিক। হইতে তাছার বিশেষ প্রমাণ পাওয়া যায়। কোনরূপ স্বপ্রাচীন ইতিহাস না থাকিলেও রেঙ্গুণ ও রামন্ত্রদেশ হইতে