পাতা:বিশ্বকোষ ত্রয়োদশ খণ্ড.djvu/৭৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বুদ্ধদেব. [ १¢ ] बूकएनष -r -TT যতদিন লোকসমাজে ব্রহ্মচর্য্য কুপ্রচারিত না হইবে ; ততদিন আমি পরিনি ও হইব না ; হে মার, ব্যস্ত হইও না, অ্যাপি । তিন মাসের পর জামি পরিনিৰ্ব্বাণ লাভ করিল।” ● - i অনস্থর বুদ্ধদেব আনণাকে সম্বোধন করিয়া বলেন, হে ; মানন্দ, বিমোক্ষের আটট সোপান বিদ্যমান আছে । (১) ঘাহদের মনোমধ্যে রূপের তাৰ বিদ্যমান আছে, তাহারা বাহ জগতে ন হইবেন । ততদিন আমি পরিনিৰ্ব্বাণগত হইব না, হে মার, ; রূপ দেখিতে পায়, ইহাই বিমোক্ষের প্রথম সোপান । (২) মনো মধ্যে রূপের ভাব বিদ্যমান নাই অথচ বহির্জগতে রূপ দেখিতে পায়, ইহাই বিমোক্ষের দ্বিতীয় সোপান । (৩) মনের ভিতর রূপের ভাল বিদ্যমান আছে অথচ বহির্জগতে রূপ দৃষ্ট হয় না, ইচ। তুতীয় গোপান । (৪) রূপ জগৎ অতিক্রম করিয়া “আকাশ অন স্থ” এইরূপ ভাবনা করিতে করিতে আকাশানন্ত্যায়তনে বিচার কলে ; ইহাই ৰিমোক্ষের চতুর্থ সোপান। (৫) মাকশানস্থায়তন অতিক্রম করিয়া "জ্ঞান জনস্তু" এইরূপ ভাবনা করিতে করিতে বিজ্ঞানান স্থায়তনে বিহার করে, ইহা বিমোক্ষের পঞ্চম সোপান । (৬) বিজ্ঞানানস্থায়িতন অতিক্রম করিয়া “কিছুই মাই” এষ্ট রূপ ভাবন কৰুিস্তে করিতে আকিঞ্চস্তুtয়তনে বিচার করে ; ইহা লিমোক্ষের ৬ষ্ঠ উপায় । (৭) অকিঞ্চস্তায়তন অতিক্রম করিয়া জ্ঞানও নাই । এইরূপ ভাবিতে ভাবিতে নৈব-সংজ্ঞানীসংজ্ঞায়তনে বিহার করে, ইহা বিমোক্ষের ৭ম সোপান । (৮) নৈব সংজ্ঞানীসংজ্ঞায়তন অতিক্রম করিয়া জ্ঞান ও জ্ঞাঙ্গ উভয়ের নিরোধ সাধনপূর্বক সংজ্ঞা-বেদয়িত্ব নিরোধ উপলব্ধি করিয়া বিচার করে । ইহা বিমোক্ষের অষ্টম সোপান । অনস্থর বুদ্ধদেৰ বৈশালীর মুছাবনে কূটাগরিশালায় গমন করেন, তাহার আদেশ অনুসারে আনঙ্গ বৈশালীর সমগ্র ভিক্ষুকে কৃষ্টাগারশালায় আহ্বান করেন। সম্বোধন করিয়৷ বলিলেন, ‘ছে ভিক্ষুগণ, আমি যে ধর্শ্বের উপদেশ প্রদান করিয়াছি ; তোমরা সুন্দরব্রুপে উহা পৰ্য্যালোচনা কর । লোকের হিত ও মুখের নিমিত্ত জগতে ব্রহ্মচর্যা স্ব প্রতিষ্টিত কর । হে ভিক্ষুগণ, আমি তোমাদিগকে যে ধৰ্ম্ম শিক্ষা ब्रिाहि, ठांशद्ध भएषा बकायां* जठबिश्नं९ दिवछ cठांमग्न সম্যকৃরূপে ধারণ করিৰে । সেই সপ্তত্রিংশৎ বিষয় এই – চারিট স্বত্যুপস্থান, চারিট সম্যক প্রহাণ, চারিট খন্ধিপান, পঞ্চ ইঞ্জিয়, পঞ্চবল, সপ্তবোধ্যঙ্গক আই মার্গ। কার অপবিত্র, বেদন দুঃখময়ী, চিত্ত চঞ্চল ও পদার্থসমূহ অলীক, এই প্রকার ভাবনার নাম চতুঃস্থত্যুপস্থান। অর্জিত পুণ্যের সংরক্ষণ, জগন্ধ পুণ্যের উপার্জন, পূর্বসঞ্চিত পাপের পৱিত্যাগ ও নুতন পাপের জরুৎপত্তি ; এই চারিপ্রকার চেষ্টার বুদ্ধদেব স্টাহাদিগকে ; -T নাম চতুঃসম্যক প্রহাণ। অসামাঙ্ক ক্ষমতা লাভের নিমিৰু অক্তিলাষ, চিন্তা, উৎসাই ও অন্বেষণকে চারিটা খড়িপাদ বলে। শ্রদ্ধা, সমাধি, বীর্যা, স্থতি ও প্রজ্ঞা এই পাচটার নাম পঞ্চ ইঞ্জিয় । এই পাচ পদার্থ আবার পঞ্চবল নামেও অভিঞ্চি ও হয়। স্মৃতি, ধৰ্ম্ম, পরিচয়, বীর্য, প্রীতি, প্রশন্ধি, সমাধি ও উপেক্ষ এই সাতটার নাম সপ্তবোধ্যঙ্গ। সম্যক দৃষ্ট, সম্যক ংকর, সম্যক্বাক্, সম্যক্ কৰ্ম্মান্ত, সম্যগাজীব, সমগ ব্যায়াম, সম্যকৃতি ও সম্যক্ সমাধি এই আটটার নাম অষ্ট আর্য্যমাৰ্গ । এই সপ্তত্রিংশং পদার্থ লইয়া আমি ধর্ণের ব্যৱস্থা করিয়াছি । তোমরা এই ধৰ্ম্ম সম্যকৃরূপে আলোচনা কর ও লোকসমাজে প্রচার কর । হে ভিক্ষুগণ, আমি তিন মালের পর পরিনিৰ্ব্বাণ লাভ করিল। তোমরা সাবধান হইয়া কার্য্য কয় । অনন্তর তিনি বক্ষ্যমাণ গtথা গান করিলেন –-আমার বয়স পলিপৰু হইয়াছে, জীবনের অল্প অবশেষ আছে, সমস্ত ত্যাগ করিয়া আমি চলিয়া যাইব, আমার নিজের আশ্রয় জামি স্থির করিয়াছি । হে ভিক্ষুগণ, তোমরা অপ্ৰমত্ত সমাহিত ও সুশীল হs ; স্থিরসংকল্প হইল স্বীয় চিত্ত পৰ্য্যবেক্ষণ কর । যিনি প্রমাণপরিপূক্ত হইয় এই ধৰ্ম্মে বিহার করিবেন, তিনি জন্ম ও সংসারের উচ্ছেদ করিয়া ফুঃখের চিরধ্বংস করিবেন ॥১ অনন্তর যুদ্ধদেব ভিক্ষুগণ সমভিব্যাহারে গুগু গ্রামে উপস্থিত হন। সেখানে ভিক্ষুগণকে সম্বোধন করিয়া তিনি বলেন, ‘হে ভিক্ষুগণ, শীল, সমাধি, প্রজ্ঞ ও বিমুক্তি এই চতুঃপদার্থের অনুশীলনবশতঃ লোকসকল সংসারপথে দীর্ঘকাল সংধাবন করে ।” ● তদনস্থর বুদ্ধদেব হস্তিগ্রাম, জাম্রগ্রাম, জম্বুগ্রাম ও ভোগ লগরে সথাক্রমে গমন করেন । তিনি ভোগ নগরে আনন্দচৈত্যে বিহার করিতে করিতে ৰলিয়া ছিলেন “হে ভিক্ষুগণ, যদি কোন ভিক্ষু আসিয়া তোমাদিগকে বলেন, তিনি অমুক বাক্যটা ভগবানের মুখে শুনিয়াছেন বা ভিক্ষুসংঘের নিকট ঐ বাক্যের উপদেশ পাইয়াছেন, অথবা কোন জাবালে কয়েকজন স্থবির ভিক্ষু মিলিত হইয়। উছাকে উক্ত বাক্য ৰলিয়াছেন অথবা কোন বিজ্ঞান ভিক্ষর মুখ হইতে ঐ বাক্য গ্রহণ করিয়া८झ्न, ठtछ शहेrण ८डांभद्रां ॐांशांग्र कथांग्र थ५भङ: श्राह ( . ) পৰুিৰোনামান্য श्रृंब्रिड१ मजलीविकृ१ ।। भराछ cवा नभिन्नाभि कड१८ब नद्रगनडcना ॥ जश्रमसtनडिशाख शनैश! cहtथ डिकूचtवt ! श्मशifुष्ठण१२छन्न लf्रखश् चक्षुषि ॥ ८वी हेमहि६ ५ई दिनtप्र जनमएसोविtइशृनछि ॥ পৰা জাতিসংপায়ং দুর্খলুসত্বং করিলগৰি ।”