পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/১০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিত্যকৰ্ম্মন [ ১০৯ ] নিত্যকৰ্ম্মৰ এইরূপ সমাস বা যোগশক্ষা সঙ্গতই হয় না। সুতরাং বুঝিতে হইবে একটা সৰ্ব্বপ্রসিদ্ধসৰ্ব্বকারণ, পরম ও প্রসিদ্ধ নিত্য আছে । সেই নিত্য পদার্থই পরমাণুরও কারণ, তাহার অপর নাম ব্ৰহ্ম। পরমাণু ও সেই পরমকারণ ব্ৰহ্ম অপেক্ষ স্থল ও অনিত্য। ( বেদান্তদ” ২ অ” )। একমাত্র পরব্রহ্মই নিত্য, তিনিই সকলের কারণ, তাহ হইতেই এই জগৎ উৎপত্তি হইতেছে, তাহাতে স্থিতি করিতেছে এবং পরে তাছাতেই লীন হইবে। সাংখ্য মতে পুরুষ নিত্য, প্রকৃতি নিত্য । বেদান্তদর্শনে এই প্রকৃতিবাদও নিরাকৃত হইয়াছে। [বেদান্ত দেখ । ] নিত্যকৰ্ম্মন (ক্লী) নিত্যং কৰ্ম্ম। বিহিত কার্যভেদ। যে সকল কাৰ্য্য বিহিত হইয়াছে, এবং যে সকল ক্রিয়ার অনুষ্ঠান না করিলে প্রতাবায়ভাগী হইতে হয়, তাহার নাম নিত্যক, যেমন সন্ধা, ইহা শাস্ত্রে বিহিত হইয়াছে, যদি এই কার্যের অনুষ্ঠান না করা যায়, তাহা হইলে প্রতাবায় ( পাপ )ভাগী ইষ্টতে হয়। "নিত্যং নৈমিত্তিকঞ্চৈব নিত্যনৈমিত্তিকস্তথা। গৃহস্থস্ত ত্রিধ কৰ্ম্ম তন্নিশাময় পুত্ৰক ৷ পঞ্চযজ্ঞাশ্ৰিতং নিত্যং যদেতৎ কথিতং তব । নৈমিত্তিকং তথা চান্তত পুত্ৰজন্মক্রিয়াদিকম্।” ( শ্রাদ্ধতত্ত্বধৃত মার্কণ্ডেয়পু” ) গৃহস্থদিগের তিন প্রকার কৰ্ম্ম—নিত্য, নৈমিত্তিক ও নিত্য- | নৈমিত্তিক। পঞ্চযজ্ঞাদি কাৰ্য নিত্য, পুত্ৰজন্মপ্রভৃতি জাত নৈমিত্তিক, পৰ্ব্ব শ্রাদ্ধাদি নিত্য-নৈমিত্তিক। পঞ্চযজ্ঞ প্রভৃতি কাৰ্য্য সকল গৃহস্থের নিত্যকৰ্ম্ম, নৈমিত্তিক এবং কাম কৰ্ম্মভিন্ন । যে সকল কার্যের বিষয় শাস্ত্রে বিহিত হইয়াছে, সেই সকল কৰ্ম্ম নিত্য। এই নিত্য কৰ্ম্ম প্রত্যেক ব্যক্তিরই অবহু কৰ্তব্য। সমর্থ ব্যক্তি যদি নিত্য কৰ্ম্মের অঙ্গুষ্ঠান না করে, তাহা হইলে । পতিত হয়, এক পক্ষ নিত্য কৰ্ম্ম ত্যাগ করিলে প্রায়শ্চিত্তাহ হয়। এক বৎসর নিত্যকৰ্ম্ম পরিত্যাগ করিয়াছে, এইরূপ লোকের i মুখাবলোকন করিতে নাই। দৈবাৎ দর্শনে স্বৰ্য্যদর্শন এবং | স্পর্শ করিলে স্নান করিতে হয় । "নিত্যানাং কৰ্ম্মণাং বিপ্র তস্ত হানিরহর্নিশম্। অকুৰ্ব্বন বিহিতং কৰ্ম্ম শক্তঃ পততি তদিনে ॥ প্রায়শ্চিত্ত্বেন মহতা শুদ্ধিমপ্লোতানাপদি । পক্ষাং নিত্যক্রিয়াহানেঃ কৰ্ত্ত মৈত্রেয় মানবঃ ॥ সংবৎসরং ক্রিয়াহানির্যন্ত পুংসোহভিজায়তে । তস্তাবলোকনাৎ স্বৰ্য্যো নিরীক্ষ্যঃ সাধুভিঃ সদা ৷ পৃষ্টি স্নানং সচেলন্ত শুদ্ধিহেতুর্মহামুনে ॥” (বিষ্ণুপু৩১৮অ') X ২৮ এই সকল দিনে নিত্যকৰ্ম্ম করিতে নাই। ইহার বিধয় কালিকাপুরাণে এইরূপ লিখিত আছে, জামুর উৰ্দ্ধদেশে ক্ষত । হইলে নিত্যকর্মের অনুষ্ঠান করিতে সাই, জাঙ্কুর’ অধোদেশে রক্তস্রাব হইলে নৈমিত্তিক কর্ণ নিষিদ্ধ। ক্ষৌরকর্শ্ব বা মৈথুনে ধূমোগার অর্থাৎ টোয়াঢেকুর উঠিলে বা বমন হইলে নিত্যকৰ্ম্ম করিবে না। কোন দ্রব্য ভোজন করিয়া অজীর্ণ হইলে অথবা কোন বস্তু ভোজন করিয়া নিত্য কৰ্ম্মের অনুষ্ঠান করিতে নাই । জননাশোচ বা মরণাশৌচ হইলে নিত্যকৰ্ম্ম পরিত্যাগ করিবে । ফল মূলাদি যাহা ঔষধের জন্তু কল্পিত হয়, তাহ ভোজন করিয়া নিত্যকৰ্ম্ম করা যাইতে পারে। কিন্তু ঔষধ ভিন্ন ফলাদি বা জলপান করিয়া নিত্যকৰ্ম্ম করিবে না। জলেীক, গুড়পাদ, কুমি এবং গণ্ডুপদাদি জীবকে ইচ্ছাপূৰ্ব্বক হস্ত দ্বারা স্পর্শ করিলে নিত্য কৰ্ম্মের অধিকার থাকে না। গুরুনিনা করিলে বা স্বহস্তে ব্রাহ্মণকে প্রস্থার করিলে বা রেতঃপাত হইলে নিত্য কৰ্ম্মানুষ্ঠান বিধেয় নহে । ( কালিকাপু ৫৫ অ” ) । নিত্যকৰ্ম্ম সকলের যদি অক্ষমতাহেতু অঙ্গহানি হয়, তাহ। হইলেও ফল নিষ্পত্তি হয়, অর্থাৎ কার্যসিদ্ধি হয়, তদুটবলক্ষণ্য ফলের অভাব হয় এই মাত্র । “নিত্যকৰ্ম্মণি অশক্যাঙ্গবৈগুণোহপি ফলনিম্পত্তিঙবর্তীতি” (কাতা শ্রেীত• ১।২।৪৮ ) বিধিপূৰ্ব্বক নিত্যকৰ্ম্মের অনুষ্ঠান করিলে, নিত্য যে সকল পাতক হয়, তাহ নিরাকৃত হয়, গৃহস্থ সকল প্রতিদিন যে পঞ্চযজ্ঞের অনুষ্ঠান করেন, এই পঞ্চযঞ্জ দ্বারা পঞ্চসুনাকত পাপ নিরাকৃত হয়। এই জন্ত প্রত্যেকরই নিত্যকন্মের অনুষ্ঠান করা অত্যাবগুক । বেদোক্ত নিত্যকৰ্ম্মের অকরণে এবং স্নাতক ত্রতের লোপকরণে অহোরাত্র উপবাসরূপ প্রায়শ্চিগু করিতে হইবে । “বেদোদিতানাং নিত্যানাং কৰ্ম্মণাং সমতিক্রমে । স্নাতকব্রতলোপে চ প্রায়শ্চিত্তমভোজনৰ্ম্ম ॥” ( মনু ১১২০৪ ) প্রতিদিন যে সকল কার্যের অমুষ্ঠান করা যায়, তাহাকে নিত্যকৰ্ম্ম বা প্রাত্যহিক কৰ্ম্ম বলা যায়। নিত্যকৰ্ম্মে কি কি কার্য্যের অনুষ্ঠান করা উচিত, তাহ আহিকতবে বিস্তৃতরূপে লিথিত হইয়াছে। প্রাতঃকাল হইতে পুনরায় প্রাতঃকাল পর্যন্ত যে যে কার্য অনুষ্ঠেয়, তাহাই লিখিত হইয়াছে বলিয়, উহ আহ্নিকতত্ব বলিয়া অতিহিত । অতি সংক্ষিপ্তভাবে ইহার একটু আলোচনা করির দেখা যাউক । প্রথমে প্রাতঃকৃত্যের অনুষ্ঠান আবশুক । “ব্রান্ধে মুহূর্বে বুধ্যেত স্বরেদেবান্‌ দ্বিজামৃষীণ।” (আহিকতত্ত্ব) ব্রাহ্ম মুহূর্বে জাগরিত হইয়া দেবতা দ্বিজ ও ঋবিদিগকে