পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/১৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


भिशङि [ s१७ ] নিরোধপরিণাম দিকৃপতি নিঋতি পূৰ্ব্বকালে বিন্ধাচলের বনমধ্যে নির্কিন্ধা । মদীর তটদেশে বাস করিতেন। ইনি শবরগণের অধিপতি | পিঙ্গাক্ষ নামে খ্যাত। শবরশ্রেষ্ঠ অতিশয় বলবান ও সচ্চরিত্র | লোক ছিলেন । পথিকগণের আপদ দূরীকরণার্থ বহুসংখ্যক সিংহ ব্যাঘ্ৰ নিধন করিয়া পথ নিরাপদ করিয়াছিলেন । বাধবৃত্তি ইহার জীবিকা হইলেও নিষ্ঠুরাচরণে পরায়ুথ ছিলেন ; কখনও বিশ্বস্ত, সুপ্ত, ববায়যুক্ত, জলপানে নিরত, শিশু বা গৰ্ভযুক্ত জীবজন্তু হনন করিতেন না। এই ধৰ্ম্মাত্মা শ্রমাতুর | পথিককে বিশ্রামস্থান, ক্ষুধাতুরকে আহারদান ও দুর্গম । প্রাস্তুরপথে পথিকগণের অনুগমন করিয়া, তাহাদিগকে অভয় প্রদান করিতেন । পিঙ্গক্ষের এবংবিধ আচরণে, সেই প্রান্তরভূমি নগরের তুল্য হইয়াছিল। কোন ব্যক্তি ভয়ে পথিকের পথরোধ করিতে পালিত না । কোন সময়ে নিকটস্থ গ্রামনিবাসী পিঙ্গাক্ষের পিতৃবা, পথিকগণের মহাকোলাচল শুনিয়া, তাহদের ধন অপহয়ণ করিবার অভিলাষে তাহাদিগকে নিধন করিবার জন্য প্রচ্ছন্নভাবে পথ অবরোধ করিয়া রহিল। দৈবক্রমে পিঙ্গাক্ষও সেই দিবস রাত্রিকালে সেই অরণ্যে মৃগয়া করিতে যাইয়৷ অবস্থান করিতেছিলেন । এদিকে রাত্রি প্রভাত হইলে, “হে ধীরগণ শীঘ্র মার, “হে ধীরগণ । আমরা তীর্থযাত্রী, মামাদিগকে মালি ও না, লক্ষ কর । আমাদের যাঙ্ক কিছু আছে, তোমরা সমস্তই লুণ্ঠন কর । আমরা পথিক ও অনাথ, কিন্তু বিশ্বনাথপরায়ণ, সুতরাং তিনিই আমাদের রক্ষাকর্তা। কিন্তু তিনিও দূরে অবস্থিত, আমাদের আর কেহই বক্তাকর্তা নাই। আমরা পিক্ষাঙ্গের ভরসায় সৰ্ব্বদা এই পথে যাতায়াত করিয়া থাকি, কিন্তু তিনি ও এ বন হইতে অনেক দূরে অবস্থিতি করিতেছেন।” এই কোলাহল শ্রবণপূর্বক দূর হইতে ভয় নাই, ভয় নাই বলিতে বলিতে পথিকবন্ধু পিঙ্গাক্ষ আসিয়া উপস্থিত হইলেন এবং বলিতে লাগিলেন, “আমি জীবিত থাকিতে, কোন দুরাচার আমার প্রাণলিঙ্গ-তুল্য পথিকগণকে প্রাণে মারিয়া লুণ্ঠন করিতে অভিলাষ করিয়াছে ? পিঙ্গাক্ষের পিতৃব্য তোয়tথ্য এই বাকা শ্রবণ করিয়া স্বীয় দলস্থ দস্থ্যগণকে পিঙ্গাক্ষের প্রাণবধের অঞ্জ দিল । পিঙ্গক্ষে একাকী এই সমস্ত দস্থ্যদলের সহিত যুদ্ধ করিতে করিতে কোন প্রকারে যাত্রিগণকে আপনার বাসস্থানের মিকট আনয়ন করিলেন, কিন্তু দস্তাগণ কর্তৃক ধনুৰ্ব্বাণ ও কবচ ছিন্ন হইলে, অস্ত্রাঘাতে ক্ষতবিক্ষত শরীর চইয়। দমুনিশে অকৃতকার্যতাবশতঃ ক্ষোভ প্রকাশপূর্বক ইহলোক পরিত্যাগ করি Χ পাতিত কর, নগ্ন কর।” 88 লেন । এই জনাই সেই পিঙ্গাক্ষ নৈখতেশ্বর রূপে দিকৃপতি হইয়া, নৈখতে অবস্থান করিতেছেন। (কাশীখ,) . নিখাখি (পুং ) নিরূ-খ-খকৃ। সামভেদ । ( উজ্জলদত্ত ) নিরেক (পুং ) ১ চিরকালব্যাপা, চিরসম্বন্ধীয় । ২ খালি নয়, পরিপূর্ণ। ( মহীধর ) নিরোদ্ধব্য (ত্রি) নি-কুধ-কৰ্ম্মণি তৰা । আবরণীয়। লোকসমূহের যথেচ্ছাচারবারণের নিমিত্ত রক্ষণীয়। যাহারা অন্যায়াচরণ করে, রাজা তাহাদিগকে রোধ করিবেন। “আশয়াশোপদানাশ্চ প্রভূতসলিলাকরাঃ । নিরোদ্ধব্যাঃ সদা রাজ্ঞা ক্ষীরিণশ্চ মীরস্থাঃ ॥" ( ভারত শান্তিপৰ্ব্ব ৮৬১৫ ) ২ প্রতিরোধনীয় । নিরোধ (পুং ) নি-রধ-ঘএ ১ নাশ । ২ গতি প্রভৃতির প্রতি রোধ । ৩ নিগ্ৰহ । “ন নিরোধে ন চোৎপত্তি ন বন্ধে ন চ সাধকঃ । ন মুমুক্ষু ন বৈ মুক্ত ইতোষ পরমার্থত ॥" (সাংখ্যপ্র"ত শ্রুতি) ৪ নিরদ্ধাখ্য চিত্তাবস্থাভেদ । চিত্তের একাগ্রাবস্থায় কেবল বহিবৃত্তি নিরোধ হয়, কিন্তু নিরোধাবস্থায় সকল বৃত্তি নিরোধ হইয়া থাকে। চিত্তনিরোধ করিতে হইলে, অভ্যাস ও বৈরাগ প্রয়োজন। কেবল অভ্যাস ও বৈরাগ্যদ্বারা চিত্তবৃত্তি নিরুদ্ধ হয় । [ নিরদ্ধ দেখ। ] চিত্ত নিরুদ্ধ হইলে নিবীজসমাধিলাভ হয় । নিরোধক (ত্রি ) নিতরাং রুণদ্ধি নি-রুধ-খুল। ১ নিরোধ কারক । নিরোধন ( কী ) নি-রাধ লুটি। ১ কারাগারাদিতে প্রবেশদ্বারা গতিরোধ। ২ বিষয়সংপ্রচার রহিতকরণ । নিরোধপরিণাম (পুং ) পাতঞ্জলোক্ত পরিণামবিশেষ । ইহার বিষয় পাতঞ্জলদর্শনে এইরূপ লিখিত আছে— “বুখাননিরোধসংস্কারয়োরভিভবপ্রান্তৰ্ভাবে নিরোধক্ষণচিত্তান্বয়ে নিরোধপরিণামঃ ” (পাত ৩৯ ) চিত্তের ক্ষিপ্তাদি রাজসিক পরিণামের নাম বুখান এবং কেবলমাত্র বিশুদ্ধসত্ত্ব পরিণামের নাম নিরোধ। চিত্তের সম্প্রজ্ঞাত অবস্থা ও পরবৈরাগ্য অবস্থা—এই দুই অবস্থাও যথাক্রমে বুখান ও নিরোধ। এই দুই পরিণামের সংস্কার যখন, যথাক্রমে অভিভূত ও প্রাচুভূত হয়, অর্থাৎ যখন বুথিান সংস্কার অভিভূত হইয়া গিয়া নিরোধসংস্কার পুষ্ট হয়, চিত্ত তখন নিরোধ নামক অবসরের অনুগত হয়। তাদৃশ আত্মগত্যের অর্থাৎ সেই প্রকার অবসরপ্রাপ্তি বা তুষ্ট্ৰীস্তাবপ্রাপ্তির নাম নিরোধপরিণাম । "i یری