পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/১৯৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিৰ্বাণ - [ సెt ] করা উচিত। শ্মশান বহুগুণের আধার। এই শ্মশান সেৰন । দ্বার সাণক বুঝিতে পরিবেন, জীব ও সংসার মিথ্যা । যিনি ব্যান ও প্রজ্ঞ লাভ করিয়াছেন, তিনি নিৰ্মাণ সমীপে উপস্থিত इहेब्रां८झ्न । आदिब्राउ ग३णां८ब्रब्र अनिऊाफफ़िखनषाग्नी श्रब्रभांर्ष डळांमलाऊ श्हेंब्रः षटिक ५षश् उननड़ब्र जश्नांबू ७ यांयि मिथr ৰলিয়া উপলব্ধি হয়। ইছাই নিৰ্ব্বাণ । বক্ষপদ গ্রন্থে লিখিত অাছে,— “খৰ্ত্তী পরমং তপে তিতিকৃখ নিৰ্ব্বানং পরমং বদন্তি বুদ্ধ । নাৎথি রাগসমে অগ্নি নাৎথি দোসসমে কলি । নাৎথি খন্ধাদি সা ফুকৃথা নাৎথি সন্তিপরং সুখং ॥ জিঘচ্‌ছ পরমারোগ সংখার পরমা ফুখী। এতং ঞহ যথাভূতং নিকানং পয়মং মুখম্। উচ্ছিন্দ মেহমত্তনে কুমুদং সারদিকং হব পানিনা । সন্তিমগুগমেব ক্রহয় নিব্বানং সুগতেন দেসিতম্ ॥ সিঞ্চ ভিকৃথু ইমং নাবং সিত্তা তে লছমে সতি। ছেত্তা রাগঞ্চ দোসঞ্চ ততো নিৰ্ব্বানমোহসি ॥” (ধৰ্ম্মপদ ) বৌদ্ধগণ বলিয়া থাকেন, ক্ষান্তিই পরম তপঃ, তিতিক্ষাই পরমনিৰ্ব্বাণ। লোভের স্তায় অগ্নি নাই, স্বেষের স্তায় পাপ নাই, স্কন্ধ সদৃশ দুঃখ নাই, শান্তির ন্তায় সুখ নাই এবং ক্ষুধার স্তায় রোগ নাই। সংস্কারসমূহই পরমদুঃখ । এই সকল যথাভূত বিদিত হইয়া, জীব পরম মুখের আধারস্বরূপ নিৰ্ব্বাণ লাভ করে । হস্তদ্বারা শারদ কুসুম যেরূপ ছিন্ন হয়, সেইরূপ স্বয়ং আত্মাতিমান ছেদন কর । তাহ হইলে, সুগতপ্রদর্শিত নিৰ্ব্বাণরূপ শান্তিমৰ্গে লাভ করিতে পরিবে। হে ভিক্ষু! এই দেহরূপ নৌকা ছেচিয়া ফেল, তাহ হইলে উহা লঘু হইবে। রাগ, দ্বেষ ইত্যাদি ছেচিয়া ফেলিতে পরিলে, নির্বাণ লাভ হইবে । এই সকল বাক্যদ্বারা প্রতীত হইতেছে যে, নিৰ্ব্বাণ লাভ দক্ষিণাত্য বৌদ্ধগণেরও চরম উদ্দেশু। এই নিৰ্ব্বাণপ্রাপ্তির নিমিত্ত র্তাহারাও প্রাণাতিপতাদি দশবিধ অকুশল কৰ্ম্মপথের পরিহার ও চতুরার্যাসত্যের অনুসরণের উপদেশ দিয়াছেন। ধৰ্ম্মপদের মলবগৃগে লিখিত আছে,— “যে পাণমতিপাতেতি মুসাবাদঞ্চ ভাসতি । লোকে অদিল্লং আদিয়তি পরদারঞ্চ গচ্ছতি ॥ সুরামেরয়পানঞ্চ যে নরো অম্লযুঞ্জতি । ইধেহবমেসে লোকসসিং মূলং খনতি অন্তনে ॥” (ধৰ্ম্মপN ) যে ব্যক্তি প্রাণাতিপাত, মুষাবাদ, অদত্তাদান, পরদায়গমন, স্বরাপান ইত্যাদি কার্ঘ্যের অনুষ্ঠান করে, সে ইহলোকেই আন্মোন্নতির মূল বিনষ্ট করিয়া থাকে। নিৰ্বাণ ঘৰ্ম্মপদের যুদ্ধৰগৃগে লিখিত আছে - “হৰুখ হৰুখসমুদাং হন্থখনে চ অতিক্ষয়ং। . জরিয়ঞ্চইউদিকং মগ্রগং কৃষ্ণুপসমগামিনং ॥ 翰 এতং খেী সরণং খেমং এতং সরণমুত্তমং। এতং সরণমাগষ্ম সম্বন্ধুকথা পমুক্ষতি ॥” (ধৰ্ম্মপদ ) ছুঃখ, দুঃখের উৎপত্তি, দুঃখের ধ্বংস ও দুঃখ নিয়োধো*ांब्रक अडेविश श्रांर्षभर्शि, toहे कळूब्रांर्य जडाई ८थब्रशङ्ग ७ ऊंख्भ श्रृंग्न", हेश्रङ्ग श्रृंव्रभहे गर्षझ१४ इहेरठ विभूखिणाख করা যায় । পরমৎথজোতিকাগ্রন্থে লিখিত আছে – “এৎথ পন সোতাপত্তিমগৃগং ভবেত্ব দিটুঠি-বিচিকিচ্ছ পহানেন পহীনাপায়গমনো সত্তখত্ত্ব পরমে সোতাপরে নাম হোতি। সকদাগামি মগ্‌গং ভাবেত্ব রাগদোসমোহানং তমুকরত। সকদাগামি নাম হোতি। সকিদেয ইমং লোকং অনাগস্ত ইংথ স্তং অরহত্তং ভাবেত্বা অনবসেসকিলেসপহানেন অরহ নাম হোতি খীণাসবো ।” ( পরমৎথজোতিক ) চতুরার্যাসত্যের অমুগামী ব্যক্তি দৃষ্টি বিচিকিৎসা প্রহাণদ্বারা স্রোত আপল্ল, রাগ, দ্বেষ ও মোহের ক্ষর দ্বারা সরুদাগামী একবার মাত্র সংসারে প্রত্যাবর্তনপূর্বক অনাগামী এবং পরিশেষে সৰ্ব্বক্লেশের প্রহাণদ্বারা ক্ষীণাসব হইয়া অৰ্ছৎপদ লাভ করেন। যাহারা দশবিধ অকুশল কৰ্ম্মপথ ত্যাগ করিয়াছেন এবং অষ্টাবিধ আৰ্য্যমার্গের অনুসরণদ্বারা চতুরার্যাসত্যের সম্যক্ উপলব্ধি করিয়াছেন, তাহারাই জীবনের পবিত্রতা দ্বারা ংসার-স্রোত অতিক্রম করিয়াছেন, তাহারাই স্রোত-মাপন্ন নামে অভিহিত । র্তাহাদিগকে এ সংসারে সাতবার প্রত্যাগমন করিতে হইবে, কিন্তু তাহীদের নির্বাণ নিশ্চিত। নরকের দ্বার তাহাদের সম্বন্ধে চিরবৃদ্ধ। র্যাহারা রাগ, দ্বেষ ও মোহের সম্পূর্ণ ক্ষয় করিয়াছেন, তাহারা সরুদাগামী নামে অভিহিত । তাহাদিগকে এ সংসারে একবার মাত্র প্রত্যাগমন করিতে হইবে। তৎপরেই নির্বাণ লাভ হইবে। অনাগামিদিগের এ ংসারে আর প্রত্যাগমন করিতে হুইবে না। র্তাহারা বহুবৎসর শুদ্ধাবাস ব্রহ্মলোকে বাস করিয়া, আমিত্ব জ্ঞানের নিরোধদ্বারা নিৰ্ব্বাণ লাভ করিবেন । বাকৃকৰ্ম্মকায়গুদ্ধ ঘটুপারমিতাপ্রাপ্ত অর্থৎগণ দেহত্যাগ মাত্রেই নিৰ্বাণলাভ করেন । অৰ্হত্বই চরম ও পুর্ণপবিত্রতার অবস্থা। এই অবস্থায় ধৰ্ম্মাধৰ্ম্ম, রাগদ্বেষ ইত্যাদি নিমূল হইয়া যায়। অৰ্হতের আর এ সংসারে জন্মগ্রহণ করিতে হইবে না। র্তাহার দেহমাত্র অবশিষ্ট থাকে, কিন্তু সে দেহে পাপাদি প্রবেশ করিতে পায়েনা। তাহার অস্তিত্ববীজ পুৰ্ব্বেই শুষ্ক হইয়া গিয়াছে এবং জীবনপ্রদীপ পূৰ্ব্বেই