পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/২৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


नैंोल [ २७8 ] • শেষে পুনঃ পুনঃ ইহা ঐ রঙ্গের মধ্যে ডুবাইতে থাকিবে, কিন্তু বিশেষ সতর্কতার সহিত এই কাৰ্য্য করিবে। কেননা সম্পূর্ণরূপে আৰ্দ্ৰ হইবার পূৰ্ব্বে যদি তরল পদার্থের বাহিরে উঠান হয়, তাহা হইলে বায়ুস্থিত অম্লজানের সহিত মিশ্রিত হইয়া বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন রং হুইয়া যাইবে এবং পাত্রের নিম্নস্থিত তলানি লাগিলেও রং খারাপ হুইবার সম্ভাবনা । অতএব ভালরূপে বস্থখানি সিক্ত হইলে, অর্থাৎ ইহার সর্বাংশে সাদা নীল প্রবেশ করিলে, শুকাইবার জন্য অন্যস্থানে নাড়িয়া রাখিতে হইবে। এই गमद्र यांगूश् अम्लजन (Oxygen) ७श हद्देउ शहेप्प्लांप्छन (Hydrogen) গ্রহণ করিয়া জল প্রস্তুত করিবে। এই জল বাষ্পরূপ ধারণ করিয়া উড়িয়া যাইবে । অনস্তর সাদা নীল হইতে হাইড্রোজেন বাহির হইলে, ইহা ব্লু-নীল হইয়া বস্ত্রথণ্ডের অভ্যস্তরে প্রবেশ করায়, বস্ত্রখানি রঞ্জিত হইবে। যদি একবারে আশামুযায়ী রং না ধরে, তবে আবার ডুবাইতে হয়। পশমী দ্রব্য রং করিতে হইলে, অগ্রে ইহাদিগকে গরমক্সলে সিদ্ধ করিতে হয়, তাহার পর অল্প উষ্ণ জ্বলে নিক্ষেপ করিয়া অবশেষে রঙ্গের পাত্র মধ্যে ফেলিতে হইবে । রং করিবার পূৰ্ব্বে গাম্বল হইতে রঙ্গের উপরিস্থিত ফেনা ফেলিয়া দিতে হইবে । রং করা হইলে পর, অল্প পরিমাণ আরক মিশ্রিত vrr (Acidulated water) càs estrz règn i fi cost পাকা রং করিবার অাবগুক হয়, তবে ইহা আবার ফট্‌কিরি vitiat ietarttri, ar ritte (Bichromate of Potash) এবং টাটারিক এসিডে (Tartaric acid) জলের সহিত সিদ্ধ করিতে হইবে। ইতিপূর্কে বলা হইয়াছে যে, নীল গাছ ছাড়া ওয়াড প্রভৃতি অন্তান্ত বৃক্ষ হইতেও এইরূপ রং প্রস্তত হইত। এই স্থানে তাছাদের বিস্তারিত তালিকা দেওয়া গেল। পূৰ্ব্বে আল কাতরা (Coal tar) হইতে নীল রং প্রস্তুত হইত। মাগ্রাজের গেলনীল, (Nerium, Indigo), বোম্বাই ও রাজপুতনার বননীল - ( f♥# *****), •łrłońĦl, (Tephrosia Purpuria) & হিমালয়ের পাৰ্ব্বত্য জাতির। বনবেী বা পুষ্পী (Marsdenia tinctoria) zèττ τε φατε zyfrg, I xjxràivo, M. Parviflora q* #RERob falê-felate (Isatis Indigotica) নামক বৃক্ষ হইতে ও নীল প্রস্তুত করে। ইহা ব্যতীত Gymnema Tingens of cobf (Acacia Bugta) ইত্যাদি বৃক্ষজাত পত্রাদি নীল রং প্রদান করিত । ভারতবর্ধ যবনের হস্তগত হইবার পূৰ্ব্বে, প্রজাবৰ্গ করের পরিবর্তে ফসলের কিয়দংশ জমিদারকে প্রদান করিত। সম্রাট अकदब्रभांश् u३ अभी ॐारेमा निद्रा, मिग्रमिड कब्रश दरलीदख मैौल করেন। অকবরের মৃত্যুর পর এবং ইংরাজগণের অধিকারের পূর্কে, এই কর আদায়ের সময় প্রজার প্রতি যথেষ্ট অত্যাচার হইত। মূল জমিদার কোন ব্যক্তির উপর যতদুত সস্তব, অধিক মূল্য গ্রহণে বন্দোবস্ত করিয়া, কর আদায়ের ভার দিতেন। দ্বিতীয় ব্যক্তি আবার তৃতীয়ের নিকট ঐরুপ বন্দোবস্ত করিতেম। এই প্রকারে সামান্ত কৃষিজীবিগণের কঠিন পরিশ্রমলব্ধ অর্থ হইতে অনেক অলস ও বিলাসিগণ অসদুপায়ে অর্থোপার্জন করিত। যখন শ্বেতকায় রাজপুরুষগণ এদেশের সিংহাসন অধিকার করিলেন ; তখন র্তাহারা দেখিলেন যে, এরূপ করগ্রহণপ্রথার সংস্করণ হওয়া আবশুক, এবং যাহাতে একেবারে মালিকের নিকট খাজনা পৌঁছে, সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখা কর্তব্য। এই মৰ্ম্মে তাহারা খাজনা সম্বন্ধে অনেক নুতন আইন বিধান করিলেন। মিঃ ম্যাক্ডোনেল বাঙ্গালীর নীলচাষ এবং রাইয়ুতিবন্দোবস্ত সম্বন্ধে লিখিয়াছেন যে, এদেশে তিনপ্রকার নীলচায়ের বন্দোবস্ত ছিল ; যথা—জিরাট, আসামীবর এবং খুসী। জিরাটীতে নীলকর স্বয়ং বেতনভোগী কৃষক দ্বারা নীল উৎপন্ন করাইয়া থাকেন। আসামীবর নিয়মে জমি প্রজার দখলে থাকে, প্রজা স্বয়ং ইহাতে নীল জন্মাষ্টয়া জমিদারের নিকট বিক্রয় করে। কিন্তু জমিদার বিধা প্রতি নির্দিষ্ট কর হইতে কিঞ্চিৎ বেশী দাবী করিতে পারেন না। খুশ্ৰণী অনুসারে প্রজার আপন ইচ্ছামত নীল চাষ করে । এ প্রথা অনুসারে প্রজা জমিদারের নিকট কোন সুত্রে দায়ী বা বাধ্য নহে। মনুসংহিতায় ব্রাহ্মণ কর্তৃক নীলের চাষ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ হইয়াছে। নীলের বীজ হইতে একপ্রকার তৈল প্রস্তুত হয়, এই তৈল ঔষধাৰ্থে ব্যবহৃত হয় } নীলের রস মুগী ও স্নায়বিক রোগে ব্যবহৃত হয় । যক্ষ্ম। কাশীতে ও ক্ষত স্থানে ইহার প্রয়োগ দেখা যায়। রাসয়ণিক প্রক্রিয়াকালে নীল অনেক প্রয়োজনে লাগে । অনেক প্রসিদ্ধ যুরোপীয় ডাক্তার নীলের নানাপ্রকার গুণের বিষয় উল্লেখ করিয়া গিয়াছেন ; তন্মধ্যে ক একট নিম্নে দেওয়া গেল । দীর্ঘকালস্থায়ী মস্তিষ্করোগে দেশীয় চিকিৎসকের নীলরস ব্যবহার করেন। প্রস্রাব বন্ধ হইলে নিমপাতার পুলটিস প্রয়োগে প্রস্রাব হয় । ইহা খনিজ দ্রব্যজাত বিষনিবারক, অশ্বগণের ক্ষতনাশক, উদরাধান এবং প্রস্রাবের সহকারী। পশুদিগের রোগে এই রঙ অনেক সময় উপকারক। শেকো বিষ নিবারণের জন্য কোথাও কোথাও নীলের শিকড়ের কথি দিয়া থাকে । [ নীলী ও নীলিকা দেখ ]