পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/২৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নীলকণ্ঠ ত্ৰিপাঠী ও ভূমিকা লিখেন। স্থার পিতার নাম ভট্টগোপাল এবং পুত্রের নাম ভৰুভূতি। ২ অশোঁচশতকরচয়িতা। ৩ জাখলায়নশ্রেীতদুয়ের একজন টিপ্পনীকারক। ৪ কুওমণ্ডপবিধানরচলিত। • ককপুলপ্রয়োগরচয়িত। ৬ কোকিলাদেবীমাহাম্মাসংগ্ৰহপ্রণেতা। ৭ একজন প্রসিদ্ধ নৈরায়িক । ইনি গাঙ্গাধরীটীকা রচনা করেন। কথিত আছে, পক্ষলক্ষণীক্রোড় ইহার রচিত। ৮ চিমনিচরিত্র নামক সংস্কৃত চরিতপ্রণেতা। ৯ একজন দায়ভাগের টীকাকার। নারায়ণগীত রচয়িতা । ১১ প্রকৃতিবিহারকারিকাসঙ্কলনকারী। ১২ বালার্কপদ্ধতিরচয়িত । ১৩ বিবাহসৌখ্যবর্ণনাপ্রণেতা। ১৪ বৈরাগাশতক নামক একথানি ক্ষুদ্র সংস্কৃত গ্রন্থপ্রণেতা। ১৫ শঙ্করমন্দারসৌরভরচয়িত। ১৬ একজন প্রসিদ্ধ বৈয়াকরণ । ইনি শব্দশোভা নামক একখানি ব্যাকরণ প্রণয়ন করেন । ১৭ শ্রাদ্ধবিবেকের এক টীকাকার। ১৮ একজন প্রসিদ্ধ পৌরাণিক । ইনি সৌরপৌরাণিকমতসমর্থন নামক অতি সুন্দর পুস্তক রচনা করেন । ১৯ স্বরাঙ্কুশভাষ্যকার । ২• একজন বিখ্যাত জ্যোতির্বিদ। ইহার পিতার নাম অনন্ত এবং পিতামহের নাম চিন্তামণি । ইনি অনেক পুস্তক লিথিয়াছিলেন, তন্মধ্যে এইগুলিই প্রধান--গৃহপ্রবেশপ্রকরণটক, গোচরপ্রকরণটকা, গ্রহকৌতুক, এহলাঘব, জৈমিনিস্তত্বটক, সুবোধিনী, জ্যোতিঘকৌমুদী, টোড়রাজ, তাজিক, তিথিরত্নমালা, দৈবজ্ঞবল্লভ, প্রশ্নকৌমুদী, প্রশ্নতন্ত্র, মকরন, মুহূর্তচিন্তামণিটীকা, বর্ষতঃ, বর্ষফল, বিবাহ প্রকরণটক, সংজ্ঞাতন্ত্র, সারণীকোষ্ঠক । ২১ রামভট্টের পুত্র। ইনি কাশিকতিলক প্রণয়ন করেন। ২২ কুণ্ডোদোতরচয়িত, ইহার পিতার নাম শঙ্করভট্ট। ২৩ মহাভারত ও দেবীভাগবতের একজন বিখ্যাত টীকাকার । দক্ষিণাত্যে ইহার জন্মস্থান । পিতার নাম রঙ্গনাথ দেশিক ও মাতার নাম লক্ষী, গুরুর নাম কাশীনাথ ও শ্ৰীধর । ষ্টনি শৈবসম্প্রদায়ভুক্ত। রভুজীয় উৎসাহে ইনি দেবীভাগবতের টীকা লিখিতে প্রবৃত্ত হন। নীলকণ্ঠক (পুং ) চটকপক্ষী, চড়াইপার্থী। নীলকণ্ঠ ত্ৰিপাঠী, একজন বিখ্যাত হিন্দী কবি। খৃষ্টীর ১৭শ শতাব্দীতে কাণপুর জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। কথিত আছে, ইছার পিতা প্রত্যহ এক মন্দিরের দেবীমূৰ্ত্তি দর্শন ও পূজা করিতেন। দেবী তাহার পূজায় সস্তুষ্ট হইয় একদিন তাহাকে দেখা দেন ও ৪ট মঙ্গুষ্যের মস্তক দেখাইয়া, উহারা তাহার পুত্রব্ধ জন্মগ্রহণ করিবে বলিয়া প্রতিশ্রত হন। সময়ে তিনি এই ৪ট পুত্র লাভ করেন,--চিন্তামণি, ভূষণ, মতিরাম, জটাশঙ্কর বা নীলকণ্ঠ। শেষোক্ত ব্যক্তি ডুকটা পুণ্যাত্মার আশীৰ্ব্বাম্বে কবি হন। 3 * [ २७v' ] SSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSSS নীলকণ্ঠরস _. নীলকণ্ঠদীক্ষিত, একজন বিখ্যাত পণ্ডিত। ইনি খ্যাতনাম অপ্পয়দীক্ষিতের সহোদর আচ্ছ দীক্ষিতের পৌত্র ও নারায়ণ দীক্ষিতের পুত্র। ইনি আনন্যসাগর স্তব, নীলকণ্ঠবিজয়চম্পূ. শিবতস্বরহস্ত, চিত্রমীমাংসা অলঙ্কার, কুতাবধবিবেক প্রভৃতি গ্রন্থ রচনা করেন। নীলকণ্ঠভট, একজন বিখ্যাত পাওঁ, ইনি ব্যবহারস্যুর্থনামক নিবন্ধ রচনা করেন, এই গ্রন্থ মহারাষ্ট্রীয় আইন বলিয়। গণ্য । ২ অার একজন স্মাৰ্ত্ত পণ্ডিত। ইনি শুদ্ধিনির্ণয়নামক গ্রন্থ রচনা করেন। অযোধ্যায় ইহার জন্মস্থান। ১৮৭২ খৃষ্টাব্দে জীবলীলা সম্বরণ করেন। ৩ একজন প্রসিদ্ধ নৈয়ায়িক । ইহার পিতার নাম রামভট্ট, কৌশুিন্যগোত্রে পাণেকণবংশে ইহার জন্ম। ইনি তর্কসংগ্ৰহদীপিকা প্রকাশ রচনা করেন। নীলকণ্ঠমিশ্র ১ পর্যায়ার্ণব নামক গ্রন্থপ্রণেতা। ২ একজন প্রসিদ্ধ হিন্দী কবি, ১৬০৯ খৃষ্টাব্দে দোয়াবে বড়বাকি জেলার অন্তর্গত ছোলাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। নীলকণ্ঠযতীন্দ্র, যতীন্দ্রপ্রবোধিনীনামক ধৰ্ম্মনিবন্ধকার। নীলকণ্ঠরস (পুং ) রসেন্দ্রসারসংগ্ৰহোক্ত ঔষধভেদ। প্রস্তুত প্রণালী,—পারদ, গন্ধক, লেছ, বিষ, চিতা, পদ্মকাষ্ঠ, দারুচিনি, রেণুকা, মুতী, চিত্রক, বিড়ঙ্গ, পিপুলমূল, এলাচ, নাগকেশর, শুঠ, পিপুল, মরিচ, হরীতকী, আমলকী, বহেড়া ও তাম্র সমভাগ এবং সমুদয়ের দ্বিগুণ পুরাতন গুড় একত্র করিয়া চণকপ্রমাণ বটিক প্রস্তুত করিতে হইবে । এই ঔষধ সেবন করিলে কাস, শ্বাস, প্রমেহ, বিষমজর, হিক্কা, গ্ৰহণী, শোথ, পাণ্ডু, মূত্ৰকৃচ্ছ, মূঢ়গর্ভ ও বাতরোগ প্রভৃতি অনুপান বিশেষের সহিত সেবন করিলে ভাল হয়। এই ঔষধ ব্ৰহ্ম কর্তৃক আবিষ্কৃত । ইহা ভিন্ন মহনীলকণ্ঠরস নামে অার একটা ঔষধ আছে । মহানীলকণ্ঠরস প্রস্তুতপ্রণালী—তিমিপিত্তে ভাবিত সীসা ১ তোলা, স্বর্ণ ১ তোলা, রসসিন্দুর, ১৬ তোলা, অভ্র ২৪ তোলা মিশ্রিত করিয়া ঘৃতকুমারী, ব্রাহ্মীশাক, নিসিন্দা, শঠ, মুণ্ডিরী, শতমূলী, গুড় চী, তালমাখন, তালমুলী, বৃদ্ধদারক ও চিত। ইহাদের ভাবনা দিয়া ত্রিফল, ত্রিকটু, মুতী, চিতা, এবাইচ, যাবঙ্গ, জাতিফল, প্রত্যেকের চুর্ণ ৮ তোলা, মিশ্রিত করিয়া ২ রতিপ্রমাণ বটিক প্রস্তুত করিতে হইবে । এই ঔষধ সেবন করিত্বে বতিরোগ, ৪ • প্রকার পিত্তরোগ ও অন্ধু সকল রোগ প্রশমিত ও শতকামিনীরমণে শক্তি হয় । ইহাতে যথেষ্ট মাহরক্ষমত, কন্সপ সদৃশ রূপ, মেধাবী, বলবান, প্রাজ্ঞ, ভীমের স্থায় বিক্রম ও চেষ্টাবালু হয়। এই ঔষধসেবনে বন্ধা