পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/৩৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


جيرسيج-. নেপাল


दांन नाहे । यूजिब्र ब्रांबदांनौ °र्षीख शिग्नांश्रिणन ५द१ ७९ ছইতে লোকমুখে শুনিয়া লিখিয়া থাকিবেন। বাস্তবিক তখনও अ९छवीब्र श्रृङ्का झ्म्न नाहे ।' উক্ত সমালোচনা সমীচীন বলিয়া বোধ হইল না। যে ব্যক্তির “জখ্যাতি নেপালের সর্বত্র ৰিষ্কৃত, উহার মৃত্যুসংবাদ জ্ঞাপনে যে ভুল হইবে, তাহ সম্ভবপর নহে । চীনপরিব্রাজক অংশুবৰ্ম্মার রচিত গ্রন্থেরও পরিচয় দিয়াছেন । এরূপ স্থলে তাহার বিবরণ অমূলক বলিয়া গ্রহণ করিতে পারি না। চীনপরিব্রাজকের পূৰ্ব্বে যে অংশুবর্ণার মৃত্যু হইয়াছিল, তাহাতে জার সন্দেহ নাই। সুতরাং অংশুবৰ্ম্মার খোদিত লিপির অঙ্ক শ্ৰীহৰ্ষসংবতের অঙ্ক বলিয়া গ্রহণ করা যায় না। উহা গুপ্তসংবতের অঙ্ক বলিয়া গ্রহণ করিতে পারি। ইহা মনে করিবার অল্প কারণ অাছে । গুপ্ত সম্রাট্রগণের সহিত যে লিচ্ছবিরাজগণের ঘনিষ্ঠ সম্বন্ধ ছিল, তাহাতে কিছুমাত্র সন্দেহ নাই। ডাক্তার ফ্লিট্‌ অসঙ্কোচে লিথিয়াছেন, “গুপ্তসংবৎ প্রকৃত প্রস্তাবে লিচ্ছবিসংবৎ। লিচ্ছবিরাজবংশের নিকট হইতে আদি গুপ্তরাজগণ সংবৎ গ্রহণ করিয়াছেন, তাহাতে আর আপত্তি উঠিতে পারে না। ... ... --- অামি মনে করি, লিচ্ছবিদিগের মধ্যে সাধারণতন্ত্র বিলুপ্ত ও রাজতন্ত্র আরম্ভ হইতে অথৰা ১ম জয়দেবের রাজারম্ভ হইতেই উক্ত সংবৎ আরম্ভ হইয়াছে’ ’ গুপ্তরাজ লিচ্ছবির সহিত সম্বন্ধস্থত্রে আবদ্ধ হওয়ায়, আপনাকে গৌরবান্বিত জ্ঞান করিলেও, তাহারা যে লিচ্চিবি অব গ্রহণ করিয়াছিলেন, অনুমান তিন্ন ইহার সম্বন্ধে কোন প্রমাণ নাই। বরং লিচ্ছবিগণ গুপ্তসম্বৎ ব্যবহার করিয়াছিলেন, তাহাই অধিক সম্ভবপর বলিয়া বোধ হয় । পাৰ্ব্বতীয় বংশাবলীতে অংশুবৰ্ম্মার কিছু পূৰ্ব্বে বিক্রম’দিত্য-আগমনের প্রসঙ্গ আছে, তাহ নিতান্ত ভিত্তিহীন বলিয়া মনে করি না । ভারতে বহুসঙ্খ্যক বিক্রমাদিত্য রাজত্ব করিয়াছিলেন। [ లూe ] * নেপাল


(3) “And no objection could be taken by the Early Gupta kings to the adoption of the era of a royal house, in their connection with which they took special pride, I think, therefore, that in all probability the so called Gupta era is Lichchhavi era, dating either from a time when the republican or tribal constitution of the lichchhavis was abolished in favour of a monarchy; or from the commencement of the reign of Jayadeva I., as the founder of a royal bonse in a branch of the tribe that had settled in Nepal." (Fleet's Corpus Inscriptionum indisarwn, Vol. III. intro. y. ia6.) তন্মধ্যে ধিনি নেপালে গমন করেন, তিনি গুপ্ত সংবৎ-প্রৱৰ্ত্তক প্রথম গুপ্তসম্রাট। তাছার নাম চজগুপ্ত বিক্ৰমাদিত্য। তিনি ( নেপালেয় ) লিচ্ছৰিয়াজ-কুহিত কুমারদেবীর পাণিগ্রহণ করেন। এই সম্বৰ সুত্রে গুপ্তসম্রাটু জাপনাকে বিশেষ সন্মানিত মনে করিয়াছিলেন, এই জন্তই বোধ হয় তাহার মুদ্রার ‘गिष्झ्दब्र' dहे cशोद्भरुग्ण*ौं भश cथांनिष्ठ रुहेबांएइ । फेड़ লিচ্ছবিরাজত্বহিত কুমারদেবীর গর্ভেই গুপ্তসম্রাটু সমুদ্রগুপ্ত জন্মগ্রহণ করেন । এই গুপ্তসম্রাট বাহুবলে নেপালাদি সমস্ত সীমান্ত নরপতিগণকে আপনার বশে জানিয়াছিলেন, তাহা তাহার জালাহাবাদে উৎকীর্ণ খোদিত লিপিতে স্পষ্টাক্ষয়ে বিৰোধিত হইয়াছে। কিন্তু নেপালের লিচ্ছবিরাজগণ কোন সময়ে যে গুপ্তরাজগণকে পরাজয় করিয়াছিলেন, এ পর্যন্ত তাহার কোন প্রমাণ পাওয়া যায় নাই। এরূপ স্থলে সমুদ্রগুপ্তের পিতা ও লিচ্ছবিরাজজামাতা চন্দ্রগুপ্ত বিক্রমাদিত্য কর্তৃক নেপালে (গুপ্ত ) সংবৎ প্রচলিত হইয়াছিল, তাছারই অঙ্কট আভাস পাৰ্ব্বতীয় বংশাবলী হইতে পাওয়া যাইতেছে। ংশাবলীতে লিখিত আছে, ‘অংশুবৰ্ম্মার শ্বশুর বিশ্বদেব যখন নেপালের রাজা তৎকালে বিক্রমাদিত্য নেপালে গিয়াছিলেন ও নিজ অন্ধ প্রবৰিত করিয়াছিলেন।’ এই অংশ এইরূপ পাঠ করিলে বোধ হয় আর কোন ঐতিহাসিক গোল থাকে ন— “চন্দ্রগুপ্ত বিক্রমাদিত্যের শ্বশুর বুধদেব () যখন নেপালের রাজা ( অংশুবৰ্ম্ম তখনও রাজকীয় উচ্চ পদ লাভ করেন নাই ) তৎকালে চন্দ্র গুপ্ত বিক্রমাদিত্য নেপালে গিয়া কুমারদেবীর পাণিগ্রহণ করেন ও তথায় আপনার অন্ধ চালাইয় আসেন ।” প্রথম গুপ্তসম্রাটু চন্দ্র গুপ্ত বিক্রমাদিত্য ৩১৯-২• হইতে ৩৪৭-৪৮ খৃষ্টাব পৰ্য্যস্ত রাজত্ব করেন । ইহার মধ্যে তিনি কোন সময় নেপালে গিয়াছিলেন। লিচ্ছবিরাজ মানদেবের শিলালিপি হইতে জানিতে পারি, তিনি ৩৮৬ শকে ( ৪৬৪ খৃষ্টাব্দে ) রাজত্ব করিতেছিলেন । বৃষদেব তাহার প্রপিতামহ। তিন পুরুষে এক শতাব্দী ধরিলে, যে সময় গুপ্ত সম্রাটু নেপালে আগমন করেন, সেই সময়েই আমরা বৃষদেবকে লিচ্ছবিরাজাসনে অধিষ্টিত দেখি। ইহাতে এই বোধ হয়, পাৰ্ব্বতীয় বংশাবলী-রচয়িত বৃধদেব স্থানে "বিশ্বদেব’ এই প্রামাদিক পাঠ গ্রহণ করিয়া থাকিবেন। বৃত্বদেবের পর ৩৫ গুপ্তসংবতে অর্থাৎ ৩৫৪-৫ খৃষ্টাকো মহাসামস্ত অংগুবৰ্ম্মার অভু্যদয় । পণ্ডিত ভগবানলাল প্রভৃতি উপরোক্ত পণ্ডিতগণ লিখিয়াছেন, ‘প্রথমে প্রথমে তিনি রাজোপাধি