পাতা:বিশ্বকোষ দশম খণ্ড.djvu/৫০১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্থা (ইতিহাস} গোত্মসূত্রের পরই বাৎস্তায়ন-ভাব্য দেখিতে পাই। বাৎস্তায়ন মুনি যে ভাষা করিয়াছেন, অনেক নৈয়ারিকের বিশ্বাস, ভাষ্যগ্রন্থসমূহের মধ্যে তাঁহাই প্রথম। কিন্তু আমাদের বিশ্বাস, বাৎস্তায়লভাষ্য রচিত হইবার পূৰ্ব্বে এবং গোতমের মত সুত্রে নিবন্ধ হইবার পরে, কোন কোন ভাষ্য বা স্থায়বিবরণমূলক গ্রন্থ প্রচলিত হইয়াছিল, তাঁহ বাৎস্তারনের স্থায়ভাষা ও উপবর্ষের মীমাংসা-ভাব্য হইতে কতকটা বুঝ যায় । বাৎস্তায়ন যে দশাবয়ববাদী নৈয়াল্পিকগণের উল্লেখ করিয়াছেন, গোতমের পূৰ্ব্বে দশাবয়ববাদ প্রচারিত থাকিলে অবগুই তিনি উল্লেখ করিতেন, তিনি এ সম্বন্ধে নিরক্তত্ব থাকাতেই আমাদের বিশ্বাস, পঞ্চাবয়বাত্মক স্থায়সুত্র প্রচারিত হুইবার বহুপরে উক্তমত প্রচারিত হইয়া থাকিবে । বাৎস্তায়ন সেই দশট অবয়বের নাম এইরূপ উল্লেখ করিয়াছেন। যথা— জিজ্ঞাসা, সংশয়, শক্য প্রাপ্তি, প্রয়োজন, সংশয়বুদাস, প্রতিজ্ঞ, হেতু, উদাহরণ, উপনয় ও নিগমন। কোন সময়ে এই দশট অবয়ব স্বীকৃত হয়, তাহ স্থির করা অতি কঠিন । জৈনদিগের স্বাদশাঙ্গসমূহ মধ্যে পঞ্চাবয়বের অতিরিক্ত কোন কোন অবব্লবের আভাস পাওয়া যায়। এস্থলে ভগবতীপুত্রের নাম উল্লেখ করা যাইতে পারে। এরূপ স্থলে বোধ হয় জৈননৈয়ায়িকগণ প্রথমে অতিরিক্ত অবয়ব স্বীকার করেন । পাশ্চাত্য এবং এদেশীয় কোন কোন পণ্ডিতের মতে বাৎস্তায়ন খৃষ্টীর পঞ্চম শতাব্দীতে জীবিত ছিলেন। কিন্তু আমরা বাৎস্তায়নকে এত আধুনিক লোক বলিয়া গ্ৰহণ করিতে পারি না। খৃষ্টীয় যষ্ঠশতাব্দীতে বাসবদত্তাকার সুবন্ধু মল্লনাগ, ন্যায়স্থিতি, ধৰ্ম্মকীৰ্ত্তি ও উদ্যোতকরের নাম উল্লেখ করিয়াছেন। স্থায়বাৰ্ত্তিককার উদ্যোতকরাচার্য, দিড়াগাচার্যোয় মত খণ্ডন করিয়া বাৎস্তায়নের মত স্থাপন করিয়াছেন । এদিকে আবার দিভূগোচার্ষ তাহার “প্রমাণসমুচ্চত্বে” বাৎস্তায়নের মত নিয়াস করিবার জন্ত সাধ্যমত চেষ্টা করিয়াছেন । সুতরাং বাৎস্তারন দিভূগের পূর্ববর্তী তাহাতে সন্দেহ নাই। এখন দেখা ধাউক, দিভূগি কোন সময়ে আবিভূত হইয়াছিলেন। মোক্ষমূলার প্রমুখ সংস্কৃতবিদগণ ঘোষণা করিয়াছেন, কালিদাসের সমসাময়িক প্রসিদ্ধ বৌদ্ধ নৈরায়িক দিওঁাগাচাৰ্য্য* খৃষ্টীয় ধষ্ঠ শতাব্দীতে জীবিত ছিলেন । ষ্টাছাদের যুক্তি এই—

  • মল্পিমাপ মেঘদূতের টাকার দ্বিভূগেৰে কালিদাসের প্রতিদ্বশী বলির উল্লেখ করিয়াছেন । কিন্তু মেঘদূতের উক্ত প্লেকের টাকার অপর প্রাচীন GDDS BBDDDDD SBD BBB BB BBB DDDD DD DDD DBBB SBD প্রাচীনগ্রন্থে নিঃাগ ও কালিদাসের সমসাময়িকত্ব সম্বন্ধে আর কোণ 4यj१ *ांeद्र! दाब्र अtई !

Х. >3.6: { ৪৯৭ 1 eीब्र (ईडिशन) প্রসিদ্ধ চীনপরিত্রাঙ্গক হিউএন্‌সিয়াং ৬৩৭ খৃষ্টাৰো প্রসিদ্ধ নালন্দাবিহারে বৌদ্ধাচার্ধ্য শীলভন্ত্রের দিকট ৰোগশাস্ত্র শিক্ষা করিতে আসেন। শীলভদ্র জয়সেন নামক উহার এক শিষ্যকে ছিউএন্‌সিয়াংএর অধ্যাপনার নিযুক্ত করেন। মোক্ষমূলারের মতে উক্ত শীলভদ্র ও দিড়াগাচার্ধ উভয়েই বোধিসত্ব আধ্য অসঙ্গের শিষ্য। উক্ত প্রমাণ অনুসারে দিভূগোচাৰ্য্য হিউএন্‌সিয়াংএর শতাধিকবর্ষ পূর্মের অর্থাৎ খৃষ্টীয় ঘb श्र७ोर्कौश्न cलोक श्हैर७हइन । ७ोब्रमोर्थ ७ झफूषुग्नेछ नोभक ভোটদেশীয় আধুনিক ইতিবৃত্তকারের উপরে নির্ভর করিয়া মোক্ষমূলার লিখিয়াছেন, তিব্বতীয় বৌদ্ধগ্রন্থানুসারে কনিষ্ক ও অসঙ্গের মধ্যে ৫০• বর্ষের ব্যবধান দেখা যায় ৷ ৭৮ খৃষ্টাৰো कनिष्कद्र अठिtरुक शग्न । उtरु झहेरण भू*ीव्र झई *ष्ठांकौन्न দ্বিতীয়াদ্ধে অসঙ্গ ও বহুবন্ধুর সময় ধরা যাইভে পারে। ড্ৰিাগ কালিদাসের প্রতিদ্ভৰ্শী ও অসঙ্গের শিষ্য । অসঙ্গ ও বক্ষবন্ধু বিক্রমাদির্ত্যেয় সমসাময়িক, সুতরাং বিক্রমাদিত্য, কালিদাস ও দিভূগি খৃষ্টীয় ৬ষ্ঠ শতাব্দীর লোক হইতেছেন। মোক্ষমূলারের উক্ত মত এখন অধিকাংশ লেখকই গ্রহণ করিয়া থাকেন । কিন্তু উক্ত মত সমীচীন বলিয়া বোধ হইতেছে না। হিউএন্‌সিয়াংএর ভ্রমণবৃত্তান্ত ও তাহার জীবনীপীঠে এমন বোধ হয় না যে, তাহার গুরু শীলভদ্র অসঙ্গ বোধিসত্বের শিষ্য ছিলেন। চীনপরিব্রাজক হিউএন্‌সিয়াং অসঙ্গবোধিসত্ত্ব, তাহার ভ্রাভ বল্লুবন্ধু ও শীলভদ্রের যথেষ্ট পরিচয় দিয়াছেন, কিন্তু কোথাও শীলভদ্রকে অসঙ্গের শিষ্য বলিয়। বর্ণনা করেন নাই। শীলভদ্র অসঙ্গের শিষ্য হইলে চীনপরিব্রাজক কখনই নিরস্তুর থাকিভেন না ; ভাই। হইলে উল্লেখ করিয়া গুরুর গৌরবঘোষণা করিতেন । অসঙ্গ বোধিসত্ত্ব চীন-পরিব্রাঞ্জকের বহুশত বর্ষ পূৰ্ব্বে বিদ্যমান ছিলেন । অসঙ্গের ভ্রাতা ও শিষ্য বসুবন্ধুর পরিচয়স্থলে চীনপরিব্রাজক লিথিয়াছেন, "বুদ্ধনিৰ্ব্বাণের পর সহস্রবর্ধ মধ্যে বসুবন্ধু ও র্তাহার শিষ্য মনোঙ্গত আবিস্তৃত হইয়াছিলেন।” চীনশাস্ত্রবিৎ স্তামুএল বিল সাহেব উক্ত বিবরণের টীকায় লিখিয়াছেন, ‘তৎকালে চীনবেন্ধগণ ৮s • খৃষ্ট-পূৰ্ব্বাৰো বুদ্ধের নিৰ্ব্বাণকাল কল্পনা করিতেন। এরপন্থলে বসুবন্ধু ও তাছার ভ্রাতা অসঙ্গ খৃষ্টীয় দ্বিতীয় শতাব্দীর লোক হইতেছেন। চীন-রৌদ্ধগ্রন্থ হইতে জানা ধায়, বসুবন্ধু ও দিগ্নগাচাৰ্য্য উভয়েই অসঙ্গের শিষ্য, এরূপ স্থলে দিড়াগাচাৰ্য্যকেও ২য় কি ৩য় শতাব্দীর লোক বলিয়া ধরা যায়। - চীনপরিব্রাজক হিউএন্‌সিয়াং লিখিয়াছেন যে, বঙ্গবন্ধু' শ্রাবন্ধীরাজ বিক্ৰমাদিত্যের সভার উপস্থিত হইয়াছিলেন ঃ