পাতা:বিশ্বকোষ দ্বাদশ খণ্ড.djvu/৫২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দাৰ্জিলিঙ্গ, [ ৫২১ ] দাৰ্জিলিঙ্গ, என श्रt८छ् ।। ७ोंtग्न १8 गभः विधीं अभिाऊ 5 श्रांतांल খৃষ্টাব্দে uरै ८छ्गांग्र धाग्न २७२२१० भ१ छ। 5 دss | ";v इहेग्नाझिन ! 源 ১৫২ খৃষ্টা হইতে এখানে সিনকোণার চাষ আরম্ভ হয়। এই জরশ্ন ওষধির আদর বৃদ্ধি হওয়ায় এখন চাষও গুড়িয়া গিয়াছে। অনেক স্থানে কুইনাইনের পরিবর্তে নিকোণ ব্যবহৃত হওয়ায় প্রতিবর্ষে এই সিন্কোণু হইতেই নধর্মেন্টের লক্ষাধিক টাকা লাভ হইয়া থাকে । 刁弧博刁1 বড়কাপটে দাৰ্জিলিঙ্গের, বিশেষ ক্ষতি হয় না । এখানে দুর্ভিক্ষের স্বত্রপাত হইলেই পাহাড়ীর এক স্থান ইষ্টতে অন্ত স্থানে পলাইয়া গিয়া,আত্মরক্ষা করে। যে বীর পৌষমাসে ধান্তের মূল্য বৃদ্ধি হয়, সে বারই লোকে ভাবী দুর্ভিক্ষের আশঙ্কা করে । • " বাণিজ্য। এখন চাই এখানকার প্রধান বাণিজ্য দ্রব্য । এখানকার লেপচার একপ্রকার মোট কার্পাস বস্ত্র বয়ন করিয়া থাকে, জেলা নিৰ্ম্ম শ্রেণীর লোকের তাহাই ব্যব: চার করে। পাহাড়ীর নানাস্থান হইতে বিক্রয়ার্থ চীনের | পেয়াল, প্রবাল, অকাকের বাট ও পুতির মালা, ঘণ্ট। ৷ প্রভৃতি লইয়া আসে । এখানকার ভূটিয়াদের প্রস্তুত দা ও লেপ্‌চাদের ছুরিক বিখ্যাত। দাৰ্জিলিঙ্গ সহরে যুরোপীয়দিগের ব্যবহার্য্য ও বিলfসাতুরূপ বিস্তর দ্রব্য পাওয়া যায়। তবে মূল্য অপর স্থান অপেক্ষ মহার্ঘ্য । খনিজ দ্রব্যের মধ্যে এই জেলায় কয়লা, লৌহ, তাম্র ও অনেক স্থানে চুণ পাওয়া যায় । 源 তিব্বত্বে যাইবার পথে তিস্ত। নদীর উপর একটা স্বন্দর লৌহনিৰ্ম্মিত সেতু আছে। এখন দাৰ্জিলিঙ্গে বিস্কার চর্চাও বেশ। দার্জিলিঙ্গ সহরে তিব্বত ও ইংরাজী ভাষা শিথিবীর জন্য গবমেণ্টস্কুল আছে। লেপচা প্রভৃতি জাতিকে রীতিমতু শিক্ষা দেওয়া হইতেছে। g ২ উক্ত দার্জিলিঙ্গ জেলার প্রধান নগর ও বঙ্গাগত যুরোপীরগণের গ্রীষ্মকালের স্বাস্থ্যাবাঁস। অক্ষা ১৭, ২৪৮%উ:, পূঃ । وهي كوالاموايا هfت এই স্থানের উৎপত্তি সম্বন্ধে মহুভেদ আছে। এখানকার কোন কোন বেন্ধের মতে ইহার প্রাচীন নাম ‘দুর্জেলামা'। ঙ্গে নামে এক লাম। এখানে বাস করিতেন। তাহfর অনেক অলৌকিক ক্ষমতা ছিল বলিয়া ভূটিয়ারা তাহাকে বিশেষ ভক্তি শ্রদ্ধাkরিত, এখনও তাহাকে দেবতা বলিয়া "न क्tद्र । cन्हे मार्खणाम श्रेष्ड, फ्रान्जिणित्र नाम श्रे VIII - য়াছে। আবার কোন কোন হিন্দুর মতে, দুর্জয়লিঙ্গ নামক थिएवत्र नोभ श्हेउहे दर्डभान नभिरुच्न५ श्हेग्न थोकि८त । কালিমপুরাjে এক দুৰ্জ্জয়গিরির উল্লেখ আছে। বর্তমান দার্জিলিঙ্গ হইতে কামরূপ পর্যন্ত গিরিমাল সম্ভবতঃ কালিকাপুরাণে দুর্জয়গিরি নামে বর্ণিত হইয়াছে । কেহ আবার দাৰ্জিলিঙ্গ শব্দের এইরূপ বুৎপত্তি করেন, দ= প্রস্তর, রজে =শ্ৰেষ্ঠ, লিঙ্গ স্থান’ বা প্রদেশ অর্থাৎ পবিত্র গুহ বা লামাদিগের; চিহ্নিত স্থান। দার্জিলিলের বর্তমান কাছারীর কিছু দূরে একটা গুহ (গুল্ফা) আছে, ভূটিয়ার মধ্যে মধ্যে সেখানে আসিয়া মহাকালের পূজা করে। অনেক সন্ন্যাসীও মধ্যে মধ্যে এখানে আসিয়া থাকেন। • ভূটিয়ার বলে যে ঐ গুম্ফ দিয়া তিব্বতের রাজধানী লাসানগরী পর্যন্ত यां&प्र यांग्र ७ शांभां★१७ ऐशंद्र'भ५ा निग्रां शाऊांग्रांठ করেন। এখানে একটা প্রবাদ অাছে যে, নেপালের ফুনসোলামগে নামক এক রাজার রাজত্বকালে এখানে লামাসরাই বা গুম্ফ নিৰ্ম্মিত হয় এবং লামাগণই ‘দাৰ্জিলিঙ্গ’ নামে অভিহিত করেন। "এই নামেই এখন সমগ্র জেলা প্রসিদ্ধ। এক সঙ্কীর্ণ পাহাড়ের উপর দার্জিলিঙ্গ সম্বর অবস্থিত । তিনটা श्रृंत्र देशद्र गश्ऊि गरगध ; उंश श्हेtठ निभृङांश তুতিশয় ঢালু। দার্জিলিঙ্গে রেলওয়ে ঃেসন আছে ; সমুদ্রপৃষ্ঠ হইতে , তাহাই ৭১৬৬ ফিটু উচ্চ । কোন কোন ইংরাজের বিশ্বাস দাৰ্জিলিঙ্গ সহরে ও লগুননগরে প্রায় একভাবেই শীত গ্রীষ্ম দেথা দেয় । • d দাৰ্জিলিঙ্গের জলবায়ু ভাল বলিয়া এখানে দিন দিন লোকসংখ্যা,বৃদ্ধি হইতেছে। ১৮৮১ খৃষ্টাব্দে ৭-১৮ জন লোকের বাস ছিল, কিন্তু গত ১৮৯১ খৃষ্টাব্দের গণনায় ১৪১৪৫ জন্মলোক স্থিরীকৃত হইয়াছে, ইহার মধ্যে হিন্দু r, ८बोझ ৩৬৫৭, মুসলমান ১৮৯৮, খৃষ্টান ৫২৪, শিং 4२,११न २५ ।। এখানকার এডেন সানিটোরিয়ম্, কোচবিহার মহারাজের বাড়ী, ছোট লাটের প্রমোদ ভবন প্রভৃতি উল্লেখ'যোগ্য, এ ছাড়া অনেক বড় বড়ু গির্জা ও মাঝারি বাড়ী এবং বোটানিকাল গার্ডন প্রভৃতি উদ্যান আছে । দাৰ্জিলিঙ্গের আশে পাশেও উল্লেখযোগ্য অনেক স্থান আছে। ৭৮৯৪ ফিটু উচ্চ জলপাহাড়ে মুন্দর সৈন্তনিবাস, মহাকাল পাহাড়ের গুম্ফা, ভূটিয়াবস্তিতে ভোটগ্ৰন্থসজ্জিত বুদ্ধমন্দির, লিবঙ্গে নুতন সৈন্তস্বাস্থ্যাবাস, এবং নগরের মধ্যে কাকঝোরা জলপ্রপাত দেখিবার জিনিস। এই প্রপাতকে ইংরাজের ভিক্টোরিয়া ফল (Victoria fall) বলেন । প্রবাদ श्रीtइ, ८ ५४ांtन ८शोौtनदी अॉगिग्र ब्रान कब्रिtछन । ১৩৯