পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/১০৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


थीलैौ খাৰ্জুর (*) ধর্জ,রম্ভেদং ধর্জর জন্ম ১ মদাবিশেষ। ইহার প্রস্তুত প্রণালী-পানল, পঙ্ক খজুর, জাদ ও সোমলতার রস মিশ্রিত করিয়া মদ্যপাকপ্রণালীতে পাক করিলে যে মদ্য প্রস্তুত হইবে, তাহাকেই খার্জ, মদ্য বলে। (বৈদ্যক) ২ খর্জর রস হইতে উৎপন্ন মদ, খেজুর রসের মদ । ইহার গুণ বাতকোপকারী এবং প্রায় মাধবীক মদের তুল্য। ঐ মদ ভালরূপ পরিষ্কার হইলে রুচিকর, কফয়, কর্ষণ, লঘু কৰায়, হৃদ্য, সুগন্ধি ও ইন্দ্রিয়শোধনকারক । ( মুশ্রুত ) 학ঙ্গিরায়ণ (পুং স্ত্রী) খজুৱন্ত গোত্রাপত্যং খর্জ ফঞ (অশ্ব৷ দ্বিভ্য: ফঞ পা ৪১১১) খর্জর নামক ঋবির গোত্রাপত্য। খাবুজেয় ( ত্রি ) থবুজস্তেদং খলুজ-ঢকৃ। ১ থবুজসম্বন্ধীয় । ( ক্লী ) ২ রসালবিশেষ । “মধুরদধনি মধ্যে শর্করং সন্নিযোজ্য শুচি বিদলিতখ গুং প্রক্ষিপেৎ খাবুজেয়ম্।।” (ভাবপ্রকাশ ) খাল ( দেশজ ) খাত, পয়ঃপ্রণালী, উপনদী। খালত্য ( ক্লী) খলতেভাবঃ খলতি যTঞ । ইন্দ্রলুপ্তরোগ, টাক্ । “জরা খালত্যং পালিত্যং শরীরমহু প্রাবিশন”(অথৰ্ব্ব১১৮১৯) খাল ( পারসী ) মাদার স্বামী, মেসো। খালাড়ী। দেশজ ) থাগার, স্থানের কারখান। খালারী ( দেশজ ) লবণ প্রস্তুত করিবার স্থান । খালাস্ ( আরবী ) ১ মুক্তি, মোচন । ২ প্রসব হওয়া । খালাস্পত্র ( আরবী ) ১ মুক্তিপত্র, যে পত্র দেখাইয়া মুক্ত হইতে পারা যায়। ২ প্রসব বেদন উপস্থিত হইলে বর্চপত্রে বা ভূৰ্জপত্রে সুপ্রসব মন্ত্র লিখিয়া দেওয়া হয়, ইহাকেও থালাদপত্র বলে । খালাসী ( আরব খলাস শব্দজ ) ১ যে খালাস করে, ষ্টীমার জাহাজ প্রভূতি হইতে যাহারা মালপত্র বাহির করিয়া দেয়, চলিত কথার সেই ভূ ত্যদিগকেই খালাসী বলে । ২ যাহারা র্তাবু গাড়ে। ৩ যে কারাগার হইতে মুক্তিলাত করিয়াছে। খালি ( দেশজ ) ১ শুষ্ঠ, রিক্ত, যtহাতে কিছুই নাই । ২ শ্রাদ্ধাদিতে বে পাত্রে ( কলার খোলায় ) শ্রান্ধীয় অল্প দেওয়া হয় । थालिक (जि) थण हेत थण-ठेद् (अत्रूणाiन्निसा ठेद् । ग॥ ৫৩১-৮) থলের সদৃশ। স্ত্রীলিঙ্গে উীপ হয়। খালিয়া (দেশজ ) শুষ্ঠ, বাহাতে কিছুই নাই। ইহা প্রায় স্ত্রীলিঙ্গের বিশেষণেই ব্যবহৃত হয় । খালিসা (আরবী) ১ রাজকীয় কাৰ্য্যালয়, যেখানে করসংক্রান্ত कार्ष निर्खोरु श्च्न । २ cय नकण जथि श्रदर्षcम:छैन्न थाप्न जोर्इ ! थॉर्नेौ (भाद्रौ) • नून, जबूङ । २(भाद्रगौ) मानैौ। (cग*ण) V [ : 1 ده খালসা

৩ কলার খোলা, যাহাতে শ্ৰান্ধপাত্র প্রস্তুভ হয়। ৪ হাতপায়ে হঠাৎ অত্যন্ত দুৰ্ব্বলতাবোধ । g খালীহাত ( দেশজ ) রিক্তহস্ত, হাতে টাকা পয়সা না থাকা । খালুই (দেশজ) মৎস্তধানী, খাই। খাল্যকায়নি (পুং স্ত্রী) খল্যকায় অপত্যং খল্যক-ফিঞ ( পা ৪৩৷১৫৪ ) খল্যকার অপত্য । 象 খাল্যায়নি (পুং স্ত্রী) খল্যাফিঞ । ( পা ৪৩,১৫৪ ) খলার অপত্য । খাল্স, পঞ্জাববাসী শিখসম্প্রদায়। শিখসম্প্রদায় নানক কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত। গোবিন্দ নানকের প্রবর্তিত রীতি নীতির মধ্যে আবার সংস্কার করেন । এইরূপে শিখদিগের মধ্যে দুইটী দল হর । কতকগুলি গোৰিন্দের নবসংস্কৃত বিধানাদি অবলম্বন করে আর কতকগুলি প্রাচীন বিধানেই চলিতে থাকে যাহারা গোবিন্দের নববিধান অবলম্বন করে, তাহারাই “খালসা" ও প্রাচীনের ‘খালাসা’ নামে প্রসিদ্ধ হয়। এই প্রতেদ এখন আর নাই। "খলিসা" শব্দ আরবীয় খালিসা" শব্দ হইতে উৎপন্ন অর্থ পবিত্র, খাটি, সুতরাং খালসা অর্থে পবিত্র খাটি বা বাছিয়া লওয়া লোক । শিখেরা এই শব্দের কোন দৈবরহস্তপূর্ণ অর্থ আছে বলিয়া স্বীকার করে। ইহারা ও নানকের অাদিগ্রন্থ মানির চলে। আজকাল আর গোবিন্ধের সংস্কৃত নিয়মাদির মানিবার পক্ষে ততটা দৃঢ়তা নাই। থাল্‌সা সম্প্রদায়ের জন্ত গোবিন্দ ষে সকল নিরম করিয়াছিলেন, তন্মধ্যে পহুল” অর্থাৎ অভিবেক ক্রিয়াই প্রধান । এই পহুল প্রথা এখনও চলিত আছে । শিখধৰ্ম্মাষলম্বনের পূৰ্ব্বে পাত্রকে সমস্ত চুল রাখিয়া দিতে হয়, দুই একমাল পরে যখন চুল বেশ বড় বড় হর, তখন পাত্র নীলবর্ণ পোষাক পরিয়া উপস্থিত হয় এবং তাছাকে একখানি তরবারী, একটি বন্দুক, তীরধমু ও বর্ষ দেওয়া হর । তৎপরে গুরু ও পাত্র শর্করামিশ্রিত জলে হস্তপদাদি ধৌত করে । এই জলে শর্করামিশ্রিত করিয়া তরবারী বা বৃহৎ ছুরীকার ধারমুখ দিয়া নাড়িতে হয় । এইরূপে প্রস্তুত জলকেই ‘পহল’ বলে। তৎপরে আদিগ্রন্থ হইতে ৫টা শ্লোক পাঠ করান হয় । প্রতি শ্লোক এক নিশ্বাসে পড়িতে হয় ও ছুরী দিয়৷ সেই শর্করামিশ্রিত জল মাড়িতে হয় । তৎপরে পাত্র ষোড়করে গ্রন্থী বা পুরোহিতের প্রদত্ত ঐ জল গ্রহণ করে এবং তাহ। লইয়৷ কপালে, মাথায় ও শ্মশ্রতে মাধিতে থাকে ও বলিতে থাকে “ওয়া গুরুজীক খালস | ওয়া গুরুজীক ফত্তে” ব৷ *७१l cशंीििन्त नि षींश् श् ि८ष्णां ।” cशांबिन्।। ७झ निषि बांङ्गं পাঁচজনের সহিত এই পছল প্রথার শিখধর্শে অভিষিক্ত ২৬