পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/১৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


尊 গজ [ ১৬৫ ] भैंङ অতিশয় দীর্ঘ, পুন্ধরচিহ্ন রক্তবর্ণ, যাহাঁদের চীৎকার ধ্বনি সজল জলদপটলের ন্যায় অতি গভীর এবং গ্রীবাদেশ বৃত্তাকার ও আয়ত, মহীপালগণ সেই সকল হাতীই ব্যবহার করিবেন । মদহীন, কুজ, অতিশয় ক্ষুদ্র ও যে সকল হাতীর দন্ত মেষশৃঙ্গের ন্যায় বক্র, নখ সংখ্যায় অল্প বা অধিক ; যাহার কোন একটা অঙ্গ বেশী বা কম, যাহার কোশফল ( মুস্ক ) দেখিতে পাওয়া যায়, যাহার শরীর পুষ্করচিহ্নহীন, কপিশ, নীল, মিশ্র বা কৃষ্ণবর্ণ, দাত ছোট ও মৎকুণ, সেই সকল হাতী প্রশস্ত নহে। রাজা এই সকল হাতী পররাষ্ট্রে প্রেরণ করিবেন । ( বৃহৎসংহিতা ৬৭ অঃ । ) বৈদ্যক মতে, গজারোহণ করিলে বায়ুপ্রকোপ বৃদ্ধি, অঙ্গের স্থৈৰ্য্য এবং ক্ষুধা বুদ্ধি হয় । ( রাজবল্লভ ) কালিকাপুরাণের মতে কামোন্মত্ত হস্তীর পৃষ্ঠে আরোহণ করিতে নাই, করিলে ইহকাল পরকাল নষ্ট হয় । ( কালিকাপুরাণ ৮৯ অঃ ) জ্যেষ্ঠ, অনুরাধা, শতভিষা, স্বাতী, পুষ্যা, মৃগশিরা, পূৰ্ব্বাষাঢ়া এই সকল নক্ষত্রে, রবি, শুক্র, বৃহস্পতি ও বুধবারে হস্তীতে গমন প্রশস্ত। মেষ, কর্কট, তুলা ও মকরলগ্নে, শুভগ্রহের দৃষ্টি বা যোগ থাকিলে এবং যদি সেই শুভগ্রহ যুক্ত বা শুভগ্রহ দৃষ্ট লগ্নে চন্দ্রের দৃষ্টি থাকে, তাহা হইলে গজগমনে অমঙ্গল ঘটিয়া থাকে । শুভদিনে হস্তী, মুলা, ধনিষ্ঠা, শ্রবণ, শতভিষা, অনুরাধা ও পুনর্বসু নক্ষত্রে, রবি, মঙ্গল ও শনি ভিন্ন বারে হস্তিক্রয়, হস্তিদর্শন ও হস্তিদান শুভকর । ইহা ছাড়। অপর সময়ে এবং শনিবারে ক্রয়াদি করিলে অমঙ্গল হয়। পরাশরসংহিতার হস্তীর চারি জাতির উল্লেখ দেখিতে পাওয়া বায়-ভদ্র, মন্দ্র, মৃগ ও মিশ্র । ইহাদের লক্ষণ বরাহমিহির যেরূপ করিয়াছেন, পরাশরসংহিতায়ও প্রায় সেইরূপ, একটু আধটু তেদ দেখিতে পাওয়া যায়। সকল স্থানের হাতী একরূপ হইত না । বনভেদে হাতীরও ভেদ হইয়া থাকে। প্রাচীন কালে প্রাচ্য, কারুষ, দশার্ণ, মার্গণেয়ক, কলিঙ্গক, অপরাস্তিক, সৌরাষ্ট্র ও পঞ্চনদ এই আটটা বনই হস্তীর আকর বলিয়া পরিগণিত হইত। বাসস্থান অনুসারে ইহাদের আকার-ব্যবহারেও ভেদ হইত। হিমালয়, গঙ্গা, প্রয়াগ ও লৌহিত্যের মধ্যে একটী বিশাল অরণ্য ছিল, তাহার নাম প্রাচ্যবন। এই বনের হাতীগুলি পিঙ্গলবর্ণ, স্থিরস্বভাব, ইহাদের পাঞ্চি দেশ ও নখগুলি দেখিতে অতিশয় বিত্র, পৃষ্ঠদ গু ও পুচ্ছমূল আয়ত এবং গুড় অপেক্ষাকৃত স্থল, ইহার তত বেগে চলিতে পারে না, কিন্তু দেখিতে চঞ্চল প্রকৃতি বলিয়া বোধ হয় । মেকল, মৎস্ত ও গঙ্গাবআর এই তিন স্থানের বনের নাম V 8२ কারুক বা কারব। এই বনের হাতী তামবৰ্ণ, অভিশল্প বেগশালী, ইহাদের পাগুলি দেখিতে বড়ই সুন্দর, ইহার তত বড়ও নহে, নিতান্ত ছোটও নহে। মহাগিরি, দশার্ণ, বিন্ধ্যাটী ও ইরাবতীর মধ্যে দশার্ণবন, এই বনে শু্যামবর্ণ ও পদ্মবর্ণ হাতী পাওয়া যাইত, ইহাদের অঙ্গুলি ও পুদ্ধর স্মৃতিশয় দীর্ঘ, জঘন গোলাকার, শরীর ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শ্বেতবর্ণ বিন্দুতে রঞ্জিত, চক্ষু মধুর স্থায় রক্তবর্ণ, মুখ শির ও গ্রীবাদেশ স্থল। ইহার আতিশয় বলশালী । এই সকল হাতীর দস্তগুলিও অতিশয় বড়, ইহাদের ঘৰ্ম্ম বা মদ হইতে আম্রফলের গন্ধ পাওয়া যায় । পারিপাত্র, বৈদিশ ও ব্রহ্মাবৰ্ত্ত বনের মধ্যে মার্গণেয়ক নামে একটা বন ছিল । এই বনে বলশালী অভিমানী বড় বড় হাতী বাস করিত । ইহাদের চক্ষুর রঙ মধুর স্থায়, চামড়াও কিছু নরম, শুড়ট সুন্দর, গাত্ররোম স্নিগ্ধ ও শরীরের গঠন অতিশয় মনোহারী, লাস্কুলমূল তত বড় নহে। বিপুল, সহাদ্রি, দক্ষিণারণ্য ও উৎকলের মধ্যবৰ্ত্তী কালিঙ্গক বন । এইখানে শ্বেতহস্তী পাওয়া যাইত । ইহার শীঘ্রগামী, স্তিরপদ ও বলশালী । ইহাদের চক্ষু দুইটা চড়াই পার্থীর চক্ষুর ন্যায়, শরীরের রোম মৃদু ও অরুণ বর্ণ, পুচ্ছমূল অপেক্ষাকৃত ছোট । এই স্থানে আবার কখন কখন ঈষৎ পদ্মবর্ণ হাতী দেখা যাইত, তাহাদের পৃষ্ঠদগু ধনুক সদৃশ, তালু জিহবা ও ওষ্ঠ রক্তবর্ণ, জঘনদেশ বরাহের সদৃশ, নথগুলি নীচবৃত্ত, দাতের রঙ মধুর ন্যায়, গলা পীতবর্ণ ও খাট এবং শুড় একট বৃহৎ সৰ্পের ন্যায়। ইহাদিগকে অতি সহজেই ধরিতে পারা যায় । অপরাস্তিকবন নৰ্ম্মদী, উদধিসেব ও দেশান্ত (?) পাহাড়ের মধ্যবৰ্ত্তী । এই বনের হস্তীর মানী, ধীর ও শু্যামবর্ণ, ইহাদের জঘন ও গলদেশ সুন্দর, দস্ত স্থল ও আয়ত, মুখখানি ও দেখিতে মন্দ নহে। চামড়া নরম, তালু, জিহবা, ওষ্ঠ ও ক্রোড় রক্তবর্ণ ও দীর্ঘাকার, পৃষ্ঠের দ গুটী ধনুকের ন্যায়, ইহাদের মদ হইতে পদ্মগন্ধ বাহির হয় । এই বনের হাতী অপর বনে যাইতে ভালবাসে ন । দ্বারকা, আবু দাবৰ্ত্ত ও নৰ্ম্মদীর মধ্যবৰ্ত্তী সৌরাষ্ট্রবন, এই বনে যে সকল হাতী পাওয়া যায়, তাহারা অতিশয় অল্পায়ু, দুৰ্দ্ধান্ত ও বেগশালী । ইহাদের চক্ষু পিঙ্গল বর্ণ, শরীর গঠন সুন্দর ; কৰ্ণ, নখ ও শরীর অপেক্ষাকৃত ক্ষুদ্র এযং প্রাণান্তেও শিক্ষা গ্ৰহণ করিতে চাহে না । হিমালয়, সিন্ধু ও কুরুজাঙ্গলের মধ্যে পঞ্চনদবন। এই বনের হস্তীর দন্ত শ্বেতবর্ণ, রূক্ষ ও লুটত। ইহাদের শরীর হইতে এক প্রকার সুগন্ধ বাহির হয়, গুড়ের উপর ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র