পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/১৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


५ গজ গ্ৰন বলিয়া মনে করে, ভাঙ্গিৰাঁর চেষ্টা করে লা । তাহার। যে জগুলে জাবদ্ধ হয়, তাহারই সংলগ্ন তাহার প্রায় অৰ্দ্ধাকার আর একটী ক্ষুদ্রায়তন মণ্ডপ প্রস্তুত করিতে হয়। তাহার দৈর্ঘ্য | ৬• হাত এবং বিস্তারে ১৩ হাতের অধিক হয় না। তাহার মধ্যে প্রায় ৩ হাত গভীর একটী-থাত কাটা থাকে। হাতীর অগ্নিতয়ে উীত হইয়া বৃহৎমগুল হইতে সেই পথ দিয়া একে একে সেই ক্ষুদ্রমগুপে প্রবেশ করে, তখন আর তাহাদের নড়িবার শক্তি থাকে না, এই মণ্ডপের দ্বার রুদ্ধ থাকে। যাহারা আলো দের, তাহারা তখন পলায়ন করে । হস্তীর যখন ভয়ে নিশ্চল ও নিস্পনা হয়, তখন মগুপের পাশে বাইয়৷ লঙ্কীর্ণ পথের দ্বারটা খুলিয়া দেওয়া হয়, হাতীগুলি ধীরে ধীরে তাহার মধ্যে প্রবেশ করে। কোনটা পলাইবtয় চেষ্টা করিলে, শিকারীরা বরষা দ্বারা তাহার মুখে আঘাত করে, সুতরাং পলাইতে পারে না । এই সময়েই শিকারীর হস্তীর পায়ে বন্ধন করে । বেড়ার পাশে দুইটী পোষা হাতী বtধ৷ থাকে, শিকারীরা ঐ অবরুদ্ধ হস্তীয় গলায় রজুদিয়া গৃহপালিত হস্তীদ্বয়ের দেহে বাধিয়া দেয়, এবং তৎপরে বেড়ার দ্বার খুলিয় ফেলে। অবরুদ্ধ হস্তী তখন গৃহপালিত হস্তীর সহিত গিয়া মিশে, কিন্তু পলাইতে পারে না ; ক্রমে শিকারীরা গৃহপালিত হস্তীর উপয়ে আরোহণ করিয়া হস্তিত্রয়কে দৃঢ়ৰূপে বদ্ধ কয়ে । বন্তহস্তী বদ্ধ হইলে পল্প শিকারীরা তাহাকে নিকটবৰ্ত্তী দুইটী স্থল বৃক্ষের মধ্যে আনিয়া দৃঢ় করির বন্ধন করে। হস্তীর ভোজনার্থে নারিকেলপত্র, কদলীবৃক্ষ ও জল সন্মুখে স্থাপন করে। গৃহপালিত হস্তীরা বস্তহস্তীর নিকট হইতে দুরে যাইলে বন্তহস্তী উন্মত্ত হইয় উঠে, অত্যন্ত চীৎকার কয়িয়া সাধ্যানুসায়ে স্বাধীনতা পাইবার চেষ্টা করে, কিছুতেই আহার করিতে প্রবৃত্ত হয় না, কিন্তু দুইতিন মাসের পয় ক্ষুধায় তৃষ্ণায় কাতর হইয়া পান ওভোজন করিয়া থাকে । শিকারীরা গৃহপালিত হস্তীদ্বারা ক্রমে তাহাদিগকে বশীভূত করে। বর্তমান সময়ে দাক্ষিণাত্যের কোইম্বাতুরে এবং বাঙ্গা লার ঢাকা অঞ্চলে হাত ধরিবার প্রধান আজ্ঞা, মহিম্বর রাজ্যেও হস্তী ধরিবার বন্দোবস্ত আছে। ইহা ছাড়া বোর্ণিওদ্বীপের উভয়পূৰ্ব্ব অঞ্চলে বস্তহস্তী দেখিতে পাওয়া যায়। কিনাজটানগান মীর তীরে হস্তিদল বিচরণ করিয়া থাকে। এই সকল হস্তীও কর্ষিত কৃষিক্ষেত্রের মধ্যে প্রৱেশ করিয়া শস্ত মষ্ট করে । মশাল জালাইয়া ইহা দের সম্মুখে ধরিলে ইহারা মশালের তীব্র আলো সম্ভ করিতে না পারিয়া বন মধ্যে পলায়ন করে। সেখানে হস্তী ধরিবার .cकोषणचाटइ। निकांग्रैौशन गर्छौद्र ब्रजमैौटङ अकप्रैौcशक्ने अर्षक t : j 领 參, १ोछ -*= जैौद्ध बब्रिव गरेब्र शबासछि ब्रिाइडिज्वर्षी मप्षा प्यरवल काब्र এবং অতি কৌশলে সেই ৰরিঘাট একটা বৃহৎ হস্তীর পেটের মধ্যে বসাইয়া দেয়। হস্তী সেই দারুণ আঘাত পাইয়া চীৎকার করিতে থাকে । তাছার চীৎকার গুনিয়া অপর হাতীগুলি ঘনে চলিয়া যায়। পরদিন প্রাতে শিকারী রক্তচিহ্ন দেখিয়া আহত হস্তীর অনুসরণ করে। কতকদূরে ষাইয়া দেখিতে পায়, আহত হস্তী বড়ই দুৰ্ব্বল হইয়া পড়িয়াছে, শিকারী তখন আবার একবার বরিষার আঘাত করে এবং হস্তীও নিতান্ত ছৰ্ব্বল হইয় পড়ে, ক্রমে বশীভূত হয়। ভারত মহাসাগরের সুমাত্রাদ্বীপেও হস্তী পাওয়া যায়। ইহাদের পঞ্জর অস্থি ২০খানি, ভারতীয় হস্তীর দাতের মাড়ি অপেক্ষ ইহাদের মাড়ি চওড়া, বুদ্ধিও ভারতীয় হস্তী অপেক্ষা অনেক বেশী । হস্তীর স্বর ভিন প্রকার, ইহা শুনিয়া অনেক অবস্থা বুঝ৷ ঘাইডে পারে। হস্তী শুড়ি উত্তোলন করিয়া তুরীর ছায় শব্দ করিলে বুঝা যায় যে হস্তীর মনে বড়ই আহলাদ হইয়াছে। কেবল মুথে যে অনুদাত্ত শব্দ হয়, তাহাতে বুঝিতে হইৰে যে, হস্তীর কোন অভাব হইয়াছে। হস্তী কোন কারণবশতঃ ক্রোধিত হইলে কণ্ঠদেশে ভীষণ শব্দ হইতে থাকে, ইহাই ক্রোধজ্ঞাপক । , 象 পূৰ্ব্বকালে এক একটা হস্তীর মূল্য ১ শত হইতে ১ লক্ষ টাকা পৰ্য্যন্ত ছিল। আইন অকৃবরীয় মতে পাঁচ শত অশ্বের মূল্য আর একটা হস্তীর মূল্য সমান। আজকাল তত দর নাই, তবুও উৎকৃষ্ট হস্তীর মূল্য হাজার হইতে ১০ হাজার পৰ্য্যস্ত। পূৰ্ব্বে হস্তী ভারতের নৃপতিগণের যুদ্ধের সহায়তা করিত, এখন কেবল সখ ও সমৃদ্ধির পরিচয় মাত্র । মনুষ্যেয় মত শিক্ষিত হস্তী গানের সুরতাল স্মরণ করিয়া রাখিতে পারে এবং তালে তালে নাচিতে পায়ে। শিক্ষিত হস্তী ধমুকে বাণ যুড়ির ছুড়িতে পায়ে, কোন কোনটা নাকি বন্দুকও ছুড়িতে শিথিয়াছে । বর্তমান সময়ে হস্তীর উপর চড়িয়া যুদ্ধ করিবার রীতি নাই, তবে দুর্গাদি আক্রমণ করিতে হইলে হাতীর উপরে কামান রাথিয়া গোলা ছুড়িতে হয় । এখন যুদ্ধকালে হস্তী छांद्गदश्tनन्न छछ बादशऊ श्छ । श्रडौ २२॥० भ१ श्रउ ७० मण ওজনের মাল বছিতে পারে। ভার লইয়া ঘণ্টায় ১॥৯ ক্রোশ বা দিনে ৮ । ১• ক্রোশ চলিতে পারে,অবিস্তক হইলে ইছ অপেক্ষা আরও দুরে ঘাইতে পারে। বিশেষ প্রয়োজন श्रण शांज्ञैौरङ श्रांtब्रांश्१ कब्रिब्र प*ांछ २॥० cजग* *षe যাইতে পারা যায় । • "