পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/৫৫৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোরক্ষজম্ব, ecto গোরক্ষনাথ মুসলমান কীৰ্ত্তির মধ্যে এখানে মুহম্মদ বাউলের কবর, জামি মসজিদ ও প্রসিদ্ধ গায়ক তানসেনের গোরস্থান আছে। মানাস্থান হইতে প্রধান প্রধান গারকের তানসেনের কবর দেখিতে আসিয়া থাকেন। এখানে এক তেঁতুল গাছ আছে, গোরস্থান অপেক্ষ তাহার অাদরই অধিক । লোকের বিশ্বাস এই তেঁতুল গাছের পাতা চিবাইলে কণ্ঠস্বর সুমিষ্ট হয় । এইজ এখনও বিস্তর গায়িকা ও নর্তকী তানসেনের সন্মানার্থ আমুক বা না আমুক, তেঁতুলের পাতা খাইবার জন্তু আসিয়া থাকে। এই উৎপাতে পূর্বের গাছ মরিয়া যায়। আবার নূতন গাছ গজাইয়াছে। তাহার পাতাও রক্ষা করা দায় ! গোয়ালানী (গোপালী শব্দজ ) গোয়ালার স্ত্রী। গোয়ালী (গোপালী শব্দজ) গোপপত্নী । গোয়ীচন্দ্র (পুং ) সংক্ষিপ্তসারের একজন টীকাকার । ইহার টীকা অতি সরল ভাষায় সুন্দরন্ধপে লিখিত । গোয়ীচন্দ্র আপনার টীকা প্রমাণিত করিবার জন্তু অনেক স্থলে কলাপটকা উদ্ভূত করিয়া মীমাংসা করিয়াছেন। গোযুক্ত (ত্রি) গবাযুক্তঃ ৩তৎ। গোবিশিষ্ট। গোযুগ (রা) গব্যং যুগং তং। গোযুগল, দুইটা গোরু। গোযুত (ত্রি) গবায়ুত ৩তং। গোযুক্ত। গোযুতি (স্ত্রী) গোধুতিগমনং ৬তৎ। গোরুর গমন । গোর (পারসী) কবর। । সমাধি দেখ। ] গোর (গৌর শঙ্কজ ) গৌরবর্ণ। গোরকচাল, এক প্রকার ক্ষুদ্র গাছ, চাকুলিয়া। গোরক্ষ (ত্রি) গাং রক্ষতি গো-রক্ষ-কিপ্‌। গোরক্ষক, যে গোর রক্ষা করে ।


=ਂ

গোরক্ষ (পুং ) গাং রক্ষতি গো-রক্ষ-অণু উপস" । ১ লতা বিশেষ, চাকুলিয়া । ২ নাগরঙ্গ । ( মেদিনী ) ৩ ঋযতনামক ঔষধ । ( হেম” ) (ত্রি ) ৪ গোপালক। রক্ষ ভাবে ঘঞ । e গোরক্ষণ, গোপ্রতিপালন । ৬ গোমাঞ্চলে স্থাপিত একটা প্রাচীন তীর্থ। ( সহাদ্রি ২১২৯ । ) গোরক্ষক (ত্রি ) গাং রক্ষাভ রক্ষ-ৰূল ৬তৎ। গোপালক, রাখাল। “গোরক্ষকা বাণিজকা তথাকারকুশীলবান। গ্র্যোন্‌বাৰ্দ্ধধিকাংশ্চৈব বিপ্রানুপূর্বাচরেং।”(মহু৮১-২) গোরক্ষকৰ্কট (স্ত্রী) গোরক্ষা চালে কর্কট চেতি কৰ্ম্মধা । চির্ভিটা । ( ভাবপ্রকাশ ) গোরক্ষচাকুল্য। গোরক্ষতণ্ডুলা দেখ। ] গোরক্ষজম্ব, স্ত্রী) গোরক্ষা চালে জম্মু চেতি কৰ্ম্মধা । , গোধুম, গোম । ২ গোরক্ষতণ্ডুলা, গোরখচকুলে। ৩ ষোণ্টাকৃক্ষ । ( জটাধর ) গোরক্ষতণ্ডুল ( স্ত্রী) গোরক্ষন্তগুলো বীজং বস্তীঃ বহুত্ৰী টাপ। বৃক্ষবিশেষ, চলিত কথায় গোরখচাকুলে ও স্থানবিশেষে *ta#tỹ! #n ! (Hedysarum lagopodioides) •ićIfgগাঙ্গেরুকী, নাগবল, বল, হ্রস্বগবেণুকা, খরবদিক, বিশ্বদেরা । [ ইহার গুণ নাগবলা শব্দে দ্রষ্টব্য ] ইহার পাতাগুলি প্রায় জবার পাতার মত, অথবা গেঁটে সেওড়া পত্রের সদৃশ, গাছটা দেখিতেও প্রায় সেইরূপ । কিন্তু সেওড়া গাছ যত মোট হয়, গোরক্ষতভূল তত মোট হয় না। ইহার শাখা অতিশয় দীর্ঘ ছড়ের স্তায় উখিত হইয়া ক্রমে নম্র হইয়া পড়ে। ইহার ফুল ছোট, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অনেকগুলি দলযুক্ত, শুক্লবৰ্ণ ও ঈবৎ পীতাভ। ইহার ফল ক্ষুদ্র ও যমল ভাবাপন্ন, ভাদ্র আশ্বিন মাসেই প্রায় জন্মিয় থাকে। কোন দেশে চলিত কথায় ইহাকে গুরশকরী বলে । গোরক্ষতণ্ডুলী (স্ত্রী) গোরক্ষস্তণ্ডুলোধস্তাঃ বহুত্ৰী গৌরাদিত্বাং উীম্‌। [ গোরক্ষতগুলা দেখ। ] কোন কোন আতি ধানিকের মতে গোরক্ষতণ্ডুল শব্দের উত্তর উী হয় না, তাহার কেবল গোরক্ষতগুলা শব্দই স্বীকার করেন। গোরক্ষভুম্বী ( স্ত্রী) গোরক্ষা চাপে তুর্থীচেতি কৰ্ম্মধা । কুম্ভাকার তুম্বী, কুন্ততুম্বী। ( রাজনি" ) গোরক্ষদুগ্ধ (স্ত্রী) গোরক্ষংগে পোষকং ছফ্টং নির্যাসে যস্তাঃ বহুত্রী। ক্ষুপবিশেষ। পর্য্যায়—গোরক্ষা, তাম্রদুগ্ধ, রসায়নী, বাহুপত্রী, অমৃত, জীব্য ও অমৃতসঞ্জীবনী । ইহার গুণ— মধুর, বৃষা, সংগ্রাহী, শীতল, সৰ্ব্ব বখকর, রসসিদ্ধিগুণবৰ্দ্ধক । ( রাজনি" ) গোরক্ষনাথ, একজন মহাসিদ্ধপুরুষ। কখৃফটু যোগী প্রভৃতি অনেক শৈব সম্প্রদায় ইহাকে শিবাবতার বলিয়া বিশ্বাস করেন । প্রবাদ আছে— নজাদিনাথকে নাতী মচ্ছন্দ্রনাথকে পূত । মৈ যোগী গোরখ অবধূত ।” উক্ত প্রবাদ বচনে জানা যায় যে গোরক্ষনাথ মৎস্তেন্দ্রনাথেঃ পুত্র ছিলেন। হঠযোগপ্রদীপিকা প্রভৃতি গ্রন্থে ইনি নয় নাথের এক নাথ অর্থাৎ নয়জন প্রধান গুরুর একটা গুরু বলিয় বর্ণিত হইয়াছেন। মহাত্মা কবীর রচিত বীজেক পাঠ করিংে একস্থানে বোধ হয় যেন তাহার কিছু পূৰ্ব্বেই গোরক্ষনাথের মৃত্যু ঘটিয়াছে। হিন্দী ভাষায় কবীর ও গোরক্ষনাথে कtथांशकथनाजुक थरुक नृहे इग्न, हेशtऊ cदा५ श्ञ c গুরু গোরক্ষনাথ ও কবীর এক সময়ে অর্থাৎ খৃষ্টীয় পঞ্চদ শতাব্দীতে বিদ্যমান ছিলেন । [ কবীর দেখ। ] যে সময়ে চৈতন্তুদেবের বিশুদ্ধ ধৰ্ম্মোপদেশে বঙ্গলে