পাতা:বিশ্বকোষ পঞ্চম খণ্ড.djvu/৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


“খগোল oব্রহ্মাণ্ডের মধ্যপরিধির নাম থকক্ষ এবং তাহার পরিমাণ 命 যোজন । বাস্তবিক আকাশকে গোলাকার বলা যাইতে পারে না, কারণ যাহার আকার বা অবয়য আছে, তাহাই গোলাকার, চতুষ্কোণ বা ত্রিকোণ হইয়া থাকে । আকাশের আকার বা অবয়ব নাই, অতএব তাহাকে গোলাকার, চতুষ্কোণ বা ত্রিকোণ বলা যায় না, কিন্তু গ্রহ প্রভৃতি জ্যোতিষ্ক সকল অনবরতই মওলাকার পথে ভ্রমণ করিতেছে, আকাশের যতদুর পর্যন্ত ইহাদের গতি হয়, জ্যোতির্বিদগণ তাহাকেই খগোল নামে অভিহিত করেন । খগোল পরমেশ্বরের অপূৰ্ব্ব স্বষ্টি কৌশল ! আৰ্যজ্যোতিবিদগণ খগোল বিষয়ে যে সকল তত্ত্ব নির্ণয় করিয়াছেন, তাহার মধ্যেও অনেক মতভেদ লক্ষিত হয় । তাহার মধ্যে এমন অনেক মত আছে, যাহা পরস্পর একেবারেই বিরুদ্ধ এবং কতকগুলি মত নিতান্ত বিরুদ্ধ নহে। সূৰ্য্যসিদ্ধান্ত ও ভাস্করাচার্য্যের মত নিতান্ত বিরুদ্ধ নহে, এই দেশে বর্তমান সময়ে ঐ মতই চলিতেছে। ভূগোলে কি প্রকারে অবস্থিত তাহ জানা না থাকিলে নক্ষত্রের উদয়, অস্ত, গ্রহযোগ ও গ্ৰহগতি জানিতে পারা যায় না । এই জন্য ভাস্করাচার্য্য প্রভৃতি হিন্দু জ্যোতির্বিদগণ ভূগোলের কি প্রকার অবস্থান নির্ণয় করিয়াছেন, এস্থলে তাহা সংক্ষেপে উল্লেখ করা যাইতেছে । র্তাহীদের মতে পৃথিবী গোলাকার। ইহা কোন মূৰ্ত্ত পদার্থকে অবলম্বন করির অবস্থিত নহে, আপনার শক্তিতেই শূন্তে অবস্থান করিতেছে। Уbr& & & obr obr 98 е е в o o a পৃথিবী অচলা, ইছার গতি নাই, গ্ৰহগণ ও নক্ষত্রমণ্ডল নিয়- | মিতরূপে ইহাকেই ভ্রমণ করিতেছে। কদম্বফুলের মধ্যের গোলকটী যেরূপ চতুর্দিকেই কেশরসমূহে পরিবেষ্টিত, সেই প্রকার এই ভূগোলের চতুর্দিকেও পৰ্ব্বত, চৈত্য, মনুষ্য, অমুর ও দেবগণ প্রভৃতি দ্বারা বেষ্টিত । (সি শি গোলাধ্যায় ৩৪ শ্লোঃ) (১) আর্যভটের মতে পৃথিবী অচলা নহে, অনবরতই ভ্রমণ করিতেছে । গ্রহ প্রভৃতি জ্যোতিষ্কগণ নিশ্চল, পৃথিবীর গতি অনুসারেই তাৰাদিগের দর্শন ও আদর্শন, উদয় ও অস্ত হইয়া থাকে। নদীতে প্রবলবেগে নৌক৷ চলিতে থাকিলে নৌকাস্থিত দর্শকের বোধ হয়, যেন তীরের বৃক্ষ সকল দর্শকের দৃষ্টিপথ অতিক্রম করিয়া বিপরীতদিকে চলিয়া যাইতেছে, কিন্তু বাস্তবিক তাঁহা নহে ; সেই -o-o-o-FTTT খগোল প্রকার পৃথিবীও প্রবলবেগে ভ্রমণ করিতেছে, আমরা পৃথিবীর গতি অনুভব করিতে পারি না, আমাদের মনে হর যেন গ্রহ ও নক্ষত্রমণ্ডলীই পৃথিবীকে ভ্রমণ করিতেছে (১)। আবার ভাস্করাচার্য ও শ্ৰীপতি প্রভৃতি প্রধান জ্যোতির্বেত্তাগণ প্রমাণ ও যুক্তি দ্বারা ইহার থগুন করিয়াছেন । [ ভূগোল দেখ। ] 馨 একটা গোলকের ঠিক মধ্যভাগে সমানভাবে একটা কীলক স্বারা বিদ্ধ করিয়া রাখিলে ঐ কীলকটকে ঐ গোলকের মেরুদণ্ড বলা যায়। সেই প্রকার এই পৃথিবীগোলকও মেরু দ্বারা বিদ্ধ, ভূগোলের ঠিক মধ্য স্থানে ঐ মেরুট অবস্থিত। মেরুর কতক অংশ পৃথিবীগোলক ভেদ করির নীচের দিকে বাহির হইয়াছে, তাহাকে অধোভাগ এবং যে অংশ পৃথিবীর উপরে অর্থাৎ আমাদের উত্তরে অবস্থিত, তাহাকে মেরুর উৰ্দ্ধভাগ কল্পনা করা যাইতে পারে। মেরুর উদ্ধভাগে (উত্তর মেরুতে ) যাহার বাস করে, তাহাদিগকে দেবতা, নীচভাগে (দক্ষিণ মেরুতে ) যাহার বাস করে, তাছাদিগকে অসুর ও মধ্যভাগবাসীগণকে মলুযা বলে । এই তিনটী স্থানকেও যথাক্রমে স্বর্গ, পাতাল ও মর্ত্য বলা যায় (২) । দেবলোক ও অসুরলোকের মধ্যে সমুদ্র মেখলার স্থায় বেষ্টন করিয়া পৃথিবীকে ২ ভাগে বিভক্ত করিয়াছে । ইহার মধ্যেই সপৃদ্বীপ প্রভৃতি অবস্থিত। ভূগোল ভেদ করিয়া দণ্ডীকার মেরু যে দুইস্তানে বহির্গত হইয়াছে, সেই স্থান হইতে স্বত্র ধরিয়া বৰ্ত্ত লাকারে বেষ্টিত করিয়া ভূখণ্ডকে দুইভাগে বিভক্ত করিলে চারিট থগু হইবে। মেরুর পূর্বদিকে সমুদ্রের তীরে যমকোট নামক পুরী, দক্ষিণভাগে ভারতবর্ষেব দক্ষিণে সমুদ্রের তীরে লঙ্কা, পশ্চিমে কেতুমালবর্ষে সমুদ্রের তীরে রোমকপত্তন ও উত্তরে কুরুবর্ষে সিদ্ধপুরী । সমুদ্ররূপ পরিধিবেষ্টিত ভূখণ্ডের প্রান্তসীমায় অবস্থিত এই চারিট দেশকে নিরক্ষদেশ বলে। যমকোটিষ্টিত লোকেয়া রোমকপত্তনের লোকদিগকে অধঃস্থিত ও আপনাদিগকে পৃথিবীর উপরস্থিত মনে করে। আবার রোমক 0S SBBBS BB BBBDDBBDDB BBBBDDBBDDDDDDS BDD DD GB BBBS BDDBB DD B BB BDDBB BBS वरथाकडार्कमणtप्रान्क नीळख बिशे बडि: cरू कैनरभक्षनि । अब्रक्रtणl ठूasण घडोंवrउ षष्ठी विल्जिा बङ बखणङग्नः ॥" ¢¢fर्णीषjiघ्न ७ 8-0 । v (১) “অমুলোমগতিলোঁ স্থঃ পণ্ঠস্তাচলং বিলোমগং যাং । जsणानि छांनि छख९ नम*क्रिभणानि शकाझीम् ॥ ६झङ्गtखभननिशिखः यषईश्म बlन्,मनःिश्वः । লঙ্কায়াং সমপশ্চিমগে। গুপঞ্জয়ন্থে। গ্রন্থে ভ্ৰমতি ॥" ( আর্যভট ) যুরোপীয় জ্যোতির্বিদগণের মতেও পৃথিবী স্থির মহে, জ্যোতিষ্কগণের সহিত পৃথিৱীও সুর্য্যমণ্ডলকে বেষ্টন করিয় ভ্রমণ করিতেছে। পৃথিবীর शछि मा शाकिरण षषाकांप्ल १छ्"ब्रिबर्डन घाँठ न । [ शृषिशै। cमश ।] (२) *$"ब्रिहेt९ हिठांई छछ cनछ tगव! भइर्शग्रः । अषणारश्नांछरवरदिशखाशtछाछमाथिठाः "(ए{निः »२ भः)