পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/১৪৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অণু - সকল বস্তুরই এমন সূক্ষ্ম কণা আছে যে, কোনক্রমে | আর তাহাকে বিভাগ করা যায় না । কিন্তু এটা অন্ত সম্প্রদায়ের বিপরীত মত। তাহারা বলেন, সূক্ষ্ম সুক্ষ্ম বস্তু দেখিবার জন্য উপযুক্ত যন্ত্র থাকিলে এবং কাটিবার বা বিভাগ করিবার অস্ত্র হইলে জগতে এমন স্বক্ষ বস্তু নাই যাহাক্লে ভাগ করা দুঃসাধ্য হইয় উঠে। অতি স্বক্ষ পরমাণুকেও চিরকাল ধরিয়া অসংখ্য অসংখ্য ভাগে বিভক্ত করা যাইতে পারে। সুতরাং পরমাণু নাই। এক গ্লাস জলে একটু চিনি ফেলিয়া দাও, সমস্ত জল মিষ্ট হইবে। সমস্ত জলে চিনির ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণা মিশিয়া যায়, তাই জল মিষ্ট হইয়া উঠে। এ স্থলে চিনি অত্যন্ত সুন্ন সূক্ষ্ম অংশে বিভক্ত হইয়া থাকে। আবার সেই গ্লাসের জল বড় এক কলসী জলে মিশাইলে, সমস্ত জলে চিনি গুলিয়া যায়। তাহার পর সমুদ্র প্রমাণ জলে সেই এক কলসী জল ঢালিয়া দিলে সমস্ত সমুদ্রের জলে চিনির পান মিশ্রিত হইতে পারে, অকুমান দ্বারা ইহাই সিদ্ধ হয় । তাই কোন কোন পণ্ডিতেরা বলেন,—সকল দ্রব্যকেই যত ইচ্ছা তত সুন্ন সূক্ষ্ম অংশে বিভাগ করা যাইতে পারে, ঐ বিভাগের শেষ নাই। তজ্জন্ত পদার্থের কোন অংশকে পরমাণু বলা বিবেচনা সঙ্গত হয় না। কিন্তু পরমাণুতত্ত্ববাদীরা এ কথা স্বীকার করেন না। তাহারা বলেন, কোন বস্তুকে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অংশে বিভাগ করিলে শেষে এমন সুক্ষাংশ আসিয়া পড়ে যে, আর তাহাকে বিভাগ করা যায় না। এখনকার বৈজ্ঞানিক পণ্ডিতদিগের মধ্যে অনেকেরই এই মত। নান৷ রূপ বৈজ্ঞানিক ও রাসায়নিক পরীক্ষা দ্বারা এ সম্বন্ধে র্তাহারা অনেক প্রমাণও সংগ্ৰহ করিয়াছেন । ঐ সমস্ত প্রমাণ হইতে যে সকল বৈজ্ঞানিক স্বত্র আবিস্তুত হইরাছে, তাহাকে পরমাণুতত্ত্ব কহে (Atomic theory) কিন্তু এই নূতন শাস্ত্রের মূল পরমাণু নয়, অণুই (molecule) ইহার প্রধান সাধন । অণুতে ও পরমাণুতে প্রভেদ এই,—অণুকে হুক্ষ স্বল্প অংশে ভাগ করা शोग्न, পরমাণুকে ভাগ করা যায় না । কোন বস্তুকে অতিশয় ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অংশে ভাগ করিলে অণু হইয় পড়ে, কিন্তু পরমাণু হয় না। বায়ুর এক একটা কণিকা অণু, কিন্তু পরমাণু নয়। যখন দুই বস্তুর সংযোগে একটা যৌগিক বস্তু উৎপন্ন হয়, তখন এক বস্তুর অণু অপর বস্তুর অণুর সঙ্গে সংযুক্ত হয়, কিন্তু পরমাণুর সঙ্কে আর একটা পরমাণুর সংযোগ হয় না। কোন কোন পার্থের অণুই স্বয়ং [ ३२8 ] অণু একটা পরমাণু। আবার কোন কোন বস্তুর অণু চুই অথবা অধিক সংখ্যক পরমাণুর সমষ্টি। পারা, দস্ত। প্রভৃতি কতকগুলি পদার্থকে বিভাগ করিলে তাহার হুঙ্কতম অণু এক একটা পরমাণু জলজান, অমঙ্গন, গন্ধক প্রভৃতির অণু দুইটা পরমাণুর সমষ্টি। সেকো বিষের এক একটা অণুতে চারিটা করিয়া পরমাণু থাকে। যেমন এক চুবড়ী ফুল অনেকগুলি ফুলের সমষ্টি, তন্ত্রপ জগতের সমুদয় পদার্থই অনেকগুলি অণুর সমষ্টি। যেমন এক একটা ফুলে একটা কিম্ব অধিক পাপ্‌ড়ী থাকিতে পারে, সেই রূপ প্রত্যেক অণুতে একটা কিম্বা অধিক পরমাণু থাকে। অনেকগুলি ফুল একত্র জড় করিলে এক চুবড়ী ফুল হয়। আবার চুবড়ীর ফুল ছড়াইয়। ফেলিলে এক একটা ফুল পৃথক হইয় পড়ে, কিন্তু পাপ্‌ড়ী গুলি পৃথক হইয়া যায় না। তদ্রুপ রূঢ় কিম্বা যৌগিক পদার্থকে বিযোগ করিলে তাহাদের সূক্ষ্মতম ংশ এক একটা অণুতে বিভক্ত হইয়া পড়িবে, কিন্তু পরমাণুহষ্টয় যাইবে না। অণু ও পরমাণুতে এই ভেদ। অনেক স্থলে অণুষে দুষ্ট তিনিটা পরমাণুর সমষ্টি, বৈজ্ঞানিক গ্লণ্ডিতের রাসায়নিক যোগাযোগ দেখিয়া তাহা স্থির করিয়াছেন। অন্নজানের প্রত্যেক অণুতে দুইটা করিয়া পরমাণু আচে । অণু দেখা যায় না ; কিন্তু রাসায়নিকের তড়িৎযন্ত্রদ্বারা জলকে বিযোগ করিয়া দেখিয়াছেন, জল রূঢ় পদার্থনহে। একটা অম্লজানের অণু, দুষ্টট জলঙ্গানের অণুতে মিশিলে জল হয়। জলের এক একটা অণুতে আধখানি অম্বলনের অণু জার একটা জলজানের অণু থাকে। যদি ছুইটী পাত্র লওয়া মায়—একটী পাত্র আর একটর চেয়ে ঠিক দ্বিগুণ বড়। তাহার বড় পাত্রট জলঙ্গানের অণুতে এবং ছোট পাত্ৰটী আমজানের অণুতে পরিপূর্ণ। মনে কর একটাতে একশত কুলঙ্গমের অণু জার একটতে পঞ্চাশটা অল্পজনের অণু থাকিল। তাছার পর, জলজান ও অমঙ্গন একত্র মিলাইয়। তাছাতে তাড়িত বেগ দিলে বন্দুকেব भउ भक झड़ेब्रा ऎt?। शनेि °ाझौ श्रृंख् श्ब्र, ठाश शठेठा ভাঙ্গিবে না; নতুবা চূর্ণ হইয়। যাইবে। ঐ রূপ শক্ত হইয়। ছুই প্রকার অণু মিশ্রিত হইয়া গেলে একশতট জলকণার উৎপত্তি হয়। পরমাণুকে ভাগ করা যায় না। অতএব অণু, পরমাণু হইলে পঞ্চাশটা অন্নজানের অণু এবং একশত জলজানের অণুর যোগে একশত জলকণার উৎপত্ত্বি কিছুতে হইত না। কাজেই লগ্রমাণ হইতেছে যে, এক