পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/২৯১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


चश्चज्ञं অনুভব (পুং) অনুভবয়তি উদ্বোধয়তি অনেন অঙ্গু ভূনিচু ঘঞ। প্রভাব। সামর্থ্য। তেজঃ। নিশ্চয়। মহিমা । সঙ্কেত। কৰ্ত্তার অচ অলঙ্কার শাস্ত্রোক্ত স্থায়ি সবিশেষের প্রকাশক। রত্যাদি জনক কটাক্ষ ভ্রভঙ্গি প্রভৃতি। অমুস্তাবঃ প্রভাবে স্তান্নিশ্চয়ে ভাববোধকে। (মেদিনী)। বিভাবা অনুভীবাশ্চ কথ্যস্তে ব্যভিচারিণঃ। ব্যক্ত: স তৈর্বিভাবাদ্যৈঃ স্থায়ী ভাবে রসঃ স্কৃত: ; ( কাব্য প্র০ ) । স্থায়ী রত্যাদিকে ভাবে জনিতঃ অমুভাবৈঃ কটাক্ষভূজাক্ষেপপ্রভৃতিভিঃ কার্য্যৈঃ প্রতীতিযোগ্য: কৃতঃ । ( কাব্য প্র০ )। চক্ষুর ঠার, হাতকড়াকড়ি ইত্যাদি অমৃভাবকাৰ্য্য দ্বারা স্থায়ী রত্যাদি ভাব, যাহা জন্মিয়াছে। অনুভাবক (ত্রি) অষ্ট্রভাবয়ুতি বোধয়তি অনুভূশিচ-ধূল। যাহায় দ্বারা বুঝিতে পায় যায়। অনুবোধক । অনুভাবিন (ত্রি) অঙ্কু-ভূ-ণিনি । যে সাক্ষাৎ কয়ে। যে পরে জন্ম গ্রহণ করে । কনিষ্ঠ । - অনুভাষণ (ক্লী) অনুকূলে কথা বল। সঙ্গে কথা বলা । অনুভু (ত্রি) অনুভূক্ষিপ্ত। অনুভব রূপ জ্ঞান বিশেষ। অনুভূত (ত্রি) অঙ্কু ভূ-কৰ্ম্মণি জ। অনুভব দ্বার। জ্ঞাত । অবগত। উপলব্ধ । কৰ্ত্তয়ি ক্ৰ ( ত্রি ) । যে পয়ে জন্মে। পশ্চাৎ জ্ঞাত । অনুভূতাদ্যবিস্মৃতি (স্ত্রী) অনুভূতানাং স্বভাবীনাম অবিস্কৃতির্যন্মাৎ । ভাবনাথ্য সংস্কার। সংস্কার। অনুভূতি (স্ত্রী) অনুভূক্তিন। অন্তভব। জ্ঞান। উপলদ্ধি। অমুভূতি চায়িপ্রকার। যথা,—প্ৰত্যক্ষ, অমুমিতি, উপমিতি এবং শব্দবোধ । অনুভূতিপ্রকাশ (পুং ) মাধবাচার্য্য প্রণীত উপনিষৎ তাৎপৰ্য্যবোধক প্রকরণবিশেষ । অনুমত (ত্রি) অনু-মন্ত্ত। স্বীকৃত। অনুমোদিত। অনুজ্ঞাত। সন্মত। অনুমতকৰ্ম্মকারিন (ত্রি) অচী বা অৰ্ছী, যিনি লিখিত পত্রানুসারে অন্যের কার্য্য করেন। অনুমতি (স্ত্রী) অনু-মন্‌-ক্তিন। সন্মতি। অনুজ্ঞ। যে পূর্ণিমাতে এক কলাহীন চক্রের উদয় হয়। চতুর্দশীযুক্ত পূর্ণিমা। অথান্তমতিরুণেন্দুপুর্ণিমামুজ্ঞয়োরপি। (মেদিনী) অনুমন্ত (ত্রি) মন্ত্ৰ-মন্ত্ৰ ছ। অহী। ভার পাইলা যে অন্ত ব্যক্তির কার্য নির্বাহ করে। অনুমন্ত্রণ (ক্ষী) অকু মন্ত্ৰণং মন্ত্ৰপাঠ: মন্ত্ৰোচ্চারণ পূৰ্ব্বক সংস্কার বিশেষ । [ ફ૭૧ ] अबूबङ्ग4 অনুমরণ (ক্লী) অল্প সহ পশ্চাদ্ধা মরণং মৃ-লুটু। পতির মৃতদেহের সঙ্গে কিম্বা পতির মৃত্যুর পয় তাহার পান্থকাদি লইয়৷ জলন্ত চিতায় স্ত্রীলোকের মৃত্যু। পতির মৃতদেহের সঙ্গে এক চিতায় স্ত্রীলোকেরা পুড়িয়া মরিলে সচরাচর তাস্থাকে সহগমন ব{ সহমরণ কহে । পতি বিদেশে মরিলে কিম্বা মৃতদেহ পাওয়া না গেলে র্তাহার পাদুকাদি লইয়া স্ত্রীলোক নিজে পুড়িয়া মরিলে তাহার নাম অনুগমন বা অমুমরণ। কিন্তু অনেক স্থলে আবার অনুমরণ ও সহমরণ শব্যের প্রভেদ নাই। অমুমরণ বলিলেও পতির দেহের সঙ্গে পুড়িয়া মরা বুঝায়। কিন্তু সহমরণ বলিলে পশ্চাৎ মরণ বুঝাইতে পারে মা । তৃতীয়ে ইন্ধি উদক্যায়। মৃতেভৰ্ত্তরি বৈ দ্বিজাঃ। তস্তামেনার্থায় স্থাপয়েদেকরাত্ৰকম। স্ত্রীলোকের রজস্বলার তৃতীয় দিবসে তাহার স্বামীর মৃত্যু হইলে সেই স্ত্রী পতির অনুগমন করিতে পরিবে বলিয়া একরাত্র মৃতদেহ য়াখিয় দিবে। এখানে অযুগমন শঙ্গে সহমরণ বুঝাইতেছে। দেশান্তরমূতে পত্যে সাধী তৎপাদুকাদ্বয়ম্। নিধায়োরসি সংশুদ্ধ প্রবিশেং জাতবেদসম্। (ব্রহ্মপুরাণ ) । দেশান্তরে পতির মৃত্যু হইলে সাধৰী স্ত্রী তাহার পাদুকাদ্বয় বুকে করিয়া,গুচি হইয়া অগ্নি প্রবেশ করিবে। কিন্তু ব্রাহ্মণের পক্ষে এই বিধি নিষিদ্ধ। যথা স্মৃতি,— পৃথৰচিতিং সমারুহ ন বিপ্ৰ গন্তুমৰ্হতি । মহাভারতে লিখিত আছে,— ভজ মুমরং কালে যা; কুৰ্ব্বস্তি তথাবিধাঃ। কামাৎ ক্রোধাৎ ভয়ান্মোহাৎ সৰ্ব্বা: পুতা ভবস্তি তাঃ। স্বামীর সহমরণকালে কামনাবশতঃ হউক, ক্রোধে, ভয়ে কিম্বা মোহে হউক, যে পতির সহিত মরিবে, তাহার। সকলেই পবিত্র হইবে। - অতি প্রাচীন কালে পৃথিবীর প্রায় সকল স্থানেই অনুমরণের প্রথা চলিত ছিল। স্বামীর মৃত্যু হইলে তাহার স্ত্রী কোন না কোন প্রকারে পতির গঙ্গে প্রাণত্যাগ করিতেন। প্রাচীন গ্ৰীক এবং শক জাতির মধ্যে এই কুপ্রখা চলিত ছিল, ডাইওডোরসের পুস্তকে তাহার প্রমাণ পাওয়া যায়। প্রপার্সিয়াস লিখিয়াছেন যে, সে কালের রোমকের পতিয় মৃত্যুর পর তাছার গ্রীকে পোড়াইয়া মারিতেন। পূৰ্ব্বে উত্তর ইউরোপেও जश्मङ्गtभग्न कुणन झिंग । dीक्षणैों अँग्न जाँtइ, फर्षों#ाग्न