পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৩০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


भष्ट्रयांन ] wو ه अछूयांन অনুবৰ্ত্তিন (ত্রি) অনু-বৃত পিনি। পশ্চাদগামী। অনুবাক (পুং) অনুচ্যতে অম্বু-বচ্ঘঞ্চ। বেদের অংশ বিশেষ । ৰশ্বিশেষ । অমুবাকসংখ্যা। যজুৰ্ব্বেদের আঠারটা পরিশিষ্ট্রের মধ্যে একটা পরিশিষ্টের নাম। চরণব্যুহে এই রূপ আঠারটা পরিশিষ্টেয় নাম দেওয়া হইয়াছে – ১।—যুপলক্ষণ। ব্যাসের মতানুসারে ইহা উপজ্যোতিষ চরণব্যুহ। - ২।-ছাগলক্ষণ। ব্যাসের মতে, মাঙ্গললক্ষণ । ৩।—প্রতিজ্ঞ । ব্যাসের মতে, প্রতিজ্ঞামুবাক্য ৪।—অনুবাকসংখ্যা । ব্যাসের মতে, পরিসংখ্যা । ৫ –চরণবৃহ। ৬ —শ্ৰাদ্ধকর। ৭ –ওলভিকানি । ৮ –পার্ষদ। ১ –ঋগ্যশূন্ত্ৰী। ১• —ইষ্টকাপুৰণ। ১১ –প্রবরাধ্যায়। ১২।—উকৃথশাস্ত্র। ১৩ –ক্রতুসংখ্যা। ১৪ –নিগম। ব্যাসের মতে, আগম । ১৫ —যঙ্গপার্শ্ব। ১৬ –হৌত্রক। ১৭ –প্রসবোথান । ১৮ –কুৰ্ম্মলক্ষণ । অনুবাকানুক্রমণী। শৌনকের বিরচিত বেদের অনুক্রমণী পুস্তক। অনুবাক্য (স্ত্রী) অনুবচূণ্যৎ । ঋত্বিৰ্গ বিশেষ। দেবতা হবানী ঋক্ । অনুবাচ্ (পুং) অনু-বচূৰ্ণিছ কিপ অধ্যাপক। অম্বুবাচক। অনুবাচন-(ক্লী )অমু-বচ শিচ-লুটি। অধ্যাপন। অনুবাচনীয় (ত্রি) অম্বুবাচনং প্রয়োজনমস্ত অনুগ্রবচনা দিত্বাৎ ছ (ত্রি )। অধ্যাপক। অনুবাত (পুং) অনুকূলে বাতঃ । যে দিকে কেহ যাইতেছে, ঠিক সেই দিক পানে যে বায়ু বহিতে থাকে। অমুকুল বাতাস। শিষ্যের দিক হইতে যে বায়ু গুরুর দিকে বহে । অনুবাদ (পুং ) অনুদ্যতে অনু বদ-ঘএ । কুৎসিতার্থ বাক্য ৷ নিলা । অমুকুরণ । ভাষান্তরকরণ । পশ্চাৎ কথন । পুনঃ কথন । পূৰ্ব্বে কোন বিধি দ্বারা যে বিষয় নির্দিষ্ট হইয়াছে, কর্থ্যিবিশেষের নিমিত্ত তাহার পুনরুল্লেখ করা যথা— দশগ্রহান গৃহাতি । দশটা গ্রহ (যজ্ঞের পাত্রবিশেষ) গ্রহণ করিবে। এখানে এই বিধি দ্বারা ‘গ্রহ পাওয়া वाहेष्ठरझ । उांशद्र •ब्र दशां इहेण,-'&श्१ जस्थाgि? । গ্রহ মার্জন করিবে। এখানেও আবার সেই গ্রহের’ উল্লেখ রহিয়াছে। এই পুনরুক্তি হইল বলিয়৷ ইহাকে অনুবাদ বলা যায়। এই শেষ বিধিতে নূতন কথার মধ্যে, ‘মার্জন করিবে’, এই বিধান করা হইয়াছে। মামুষের ইচ্ছায় যে কাজ হইতে পারে শাস্ত্রে সে বিষয়ের উল্লেখ থাকিলে তাহাকেও অনুবাদ কহে। ঘথ,—“তস্থাৎ প্রবন্ধতঃ কুৰ্য্যাত্তিথিভান্তে চ পারণম্ । তিথি ও নক্ষত্র গত হইয়া গেলে পায়ণ করিবে । ত্ৰতেয় শেষে মানুষ ইচ্ছা করিলেই ভোজন করিতে পারে, কিন্তু শাস্ত্রে আবার তাহা কথিত হইল বলিয়া ইহাকে অনুবাদ । বলা যায়। ষে বিষয় স্বতঃ সিদ্ধ ; আপন আপনি সকলেই জানে, সকলেই বুঝে ; তেমন বিষয়ের উল্লেখ করিলে, তাহাকেও অমুবাদ কহে। যেমন,-“আকাশ হইতে । ফুল পাড়িও মা’। ‘আগুনে হিম নিবারণ হয়”। সকলেই জানে যে, আকাশে ফুল ফুটে না, এবং আগুনে হিম নিবারণ হইয়া থাকে। অতএব এই সকল স্বতঃ সিদ্ধ বিষয়ের উল্লেখ করা হইল বলিয়া ইহাকে অনুবাদ কহে । অর্থবাদ তিন প্রকার। যথা,— বিরোধে গুণবাদ: স্তাদতুবাদোইবধারিতে। ভূতাৰ্থবাদস্তদ্ধানাবর্থবাদগ্বিধামতঃ । বিরোধে অর্থাৎ যেখানে বিশেষ্য বিশেষণের অল্পয়ের বিরোধ ঘটে, তেমন স্থলে গুণবাদ কহে। যথা,— ‘ষজমান; প্রস্তরঃ’। এখানে প্রস্তর শব্দে কুশমুষ্টি। যজমান যাহা, প্রস্তুরও তাহাই,এই প্রকার অভেদরূপ অন্বয়ের বিরোধ আছে বলিয়া ষজমানের কুশমুষ্টি ধারণরূপ অঙ্গকে বলা হইতেছে, তজ্জন্ত ইহাকে গুণবাদ কহে । "অবধারিত’ অর্থাৎ ষে বিষয় নিশ্চিত আছে, পুনবার তাহ বলা। যেমন,—‘অগ্নিৰ্বিমস্ত ভেষজম্। আগুনে হিম নষ্ট হয়। এ কথা অবধারিত আছে বলিয়া ইহাকে অম্বুবাদ বলে। গুণবাদ এবং অম্বুবাদের বাধস্থলে ভূতাৰ্থবাদ ( সিদ্ধার্থবাদ ) কহে। যথা,—’ইঞ্জোবৃত্রহী’ । বৃত্ৰাস্বরের इमभकों द्रौ हेठ् । ভূতাৰ্থবাদ ই প্রকার। ভ্যর্থবাদ এবং নিলাধৰা। সন্ধ্যামুপাসতে যে তু সততং শংসিতব্ৰতা । বিধূতপাপান্তে যান্তি ব্ৰহ্মলোকমনাময়ম্। शशब्र गयाक् निबश्वाश्याम्ब डिमबाच्न गको लेनসনা করেন, সে সকল ব্যক্তি নিশাপ হইয়া অক্ষয় ব্ৰহ্মলোকে গমন করিয়া থাকেন।