পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অকড়ম - I* অকথছ গণের ফল কি এবং কোন কোন ধাতু এই গণের মধ্যে পঠিত হয়, তাহ ঘট ধাতুতে দেখ । অক (ক্লী) ন-কং মুখমিতি নঞ তৎ । দুঃখ। ন কং সুখং যস্মাৎ বহুব্রী। পাপ । অকচ (ত্রি) কেশশূন্য, টাকরোগী, নেড়া। কেতুগ্রহ । নাস্তি কচো দেহস্য ধ্বজে যস্য, রাহোঃ শরীরাং শহেতো। কেতুগ্রহ রাহুর শরীর, ইছার মস্তক নাই, সে জন্য ইহাকে অকচ বলে। খ্ৰীযুক্ততারানাথ তর্কবাচস্পতির মতে –অকায় লোকোপপ্লবীয় চায়তে ইতি আক-চায়-ড। অ কড়ম । একটা চক্র । প্রথমে আকড়ম আছে বলিয়া এই চক্রের এ প্রকার নাম হইয়াছে । দীক্ষাকালে এই অকড়ম চক্র । চক্রদ্ধার গুরু, শিষ্যের সিদ্ধি প্রভৃতি গণনা করেন । রুদ্রযামলে ইহার বিষয় উল্লিখিত হইয়াছে । ইষ্টমন্ত্র শিষ্যের পক্ষে শুভফলপ্রদ হইবে কি না তাহাই স্থির করা এই চক্রের উদ্দেশু। যদিচ রুদ্রযামলের মতে ইহ গোপালমন্ত্রে প্রশস্ত, কিন্তু তন্ত্রেও ইহার ব্যবস্থা আছে। গণনা করিবার প্রক্রম এই,—মনে কর শিষ্যের নাম অমরনাথ এবং বীজমন্ত্র হ্ৰীং । তাহা হইলে অমরনাথ নামের আদ্যক্ষর আকারের প্রকোষ্ঠ হইতে বামদিকে গণনা করিয়া আসিবে । প্রথম প্রকোষ্ঠে—সিদ্ধ। দ্বিতীয়,—সাধ্য । তৃতীয়,—মুসিদ্ধ । চতুর্থ,—অরি। যতক্ষণ না বীজমন্ত্রের ঘর পাওয়া যাইবে সেপৰ্য্যন্ত ঐ রূপে কোষ্ঠে কোষ্ঠে সিদ্ধ, সাধা সুসিদ্ধ, অরি, যথাক্রমে গণনা করিয়া আসিবে । বীজমন্ত্রের ঘরে সিদ্ধ, সাধ্য কিম্বা সুসিদ্ধ হইলে মন্ত্রোক্কার হয় এবং গুরু সেই মন্ত্রে শিষ্যকে দীক্ষা করিতে পারেন। কিন্তু, স্বসিদ্ধ মন্ত্রের ফল অধিক, কারণ তত্ত্বারা সাধক অনায়াসে সিদ্ধ হইতে পারেন। সিদ্ধাদির ফল তেমন নয়। এ প্রকার গণনায় বীজমস্ত্রের ঘরে ‘অরি' পড়িলে, মস্ত্রোদ্ধার হয় না। তাদৃশস্থলে গুরু, শিষ্যের আর একটা নুতন নাম রাখিয়া মন্ত্রোদ্ধার করেন। হিন্দু ধৰ্ম্মের প্রতি র্যহাদের অচলা ভক্তি আছে, সে সকল লোক বালকদের নামকরণকালেই বিশেষ সতর্ক হন । যে নাম রাখিলে গণনায় মস্ত্ৰোদ্ধার হয় না, তাহার। সস্তানদের কদাচ তেমন নাম রাখেন না । সিদ্ধমন্ত্রে দীক্ষিত হইলে শিষ্য অনেক কালে সিদ্ধ হইতে পারেন। সাধ্যমন্ত্ৰ লইলে তিনি জপ ও হেমাদিদ্বারা সিদ্ধ হন। সুসিদ্ধদ্বারা মন্ত্রগ্রহণমাত্র সিদ্ধ হন ; কিন্তু আরিমন্ত্র সাধককে বিনষ্ট করে । ভ্রমক্রমে গুরু কাহাকে অরিমন্ত্র দান করিলে শিষ্য যদি তাহা জানিতে পারেন, তবে সে মন্ত্র ত্যাগ করা আবশুক । মন্ত্র ত্যাগের দুইট প্রকরণ আছে। তন্ত্রকৌমুদীর মতে, বটপত্রে অরিমন্ত্র লিখিয় তাহা স্রোতোজলে ভাসাইয়া দিলেই মন্ত্র ত্যাগ করা হয়। তন্ত্ররাঞ্জের মতে, দ্রোণপরিমিতগোষ্ঠুগ্ধে একশত আটবার অরিমন্ত্র জপ করিয়া স্রোতোজলে তাহার কিঞ্চিৎ পান করিবেন । পরে পুনৰ্ব্বার মন্ত্রোচ্চারণ পূর্বক বাকি দুগ্ধ পরিত্যাগ করিলে মন্ত্রত্যাগ করা হয় । অকথহ । দীক্ষাকালে শিষ্যের সিদ্ধাদি গণনা করিবার জন্য এক প্রকার চক্র; অর্থাৎ ইষ্টমন্ত্র শিষ্যের নামের অকথছ চক্র । অ ক छे `श्रां ९ इ శ్రీ ? ५ Б в \3 * ॐ R 新 ড ব २ र्भ b «ї ct* यू 형 * 학 ঘ ম 窃 5 झ द অঃ છે यश् C) ত স ॐ श • झु 'ि ब्र' সঙ্গে স্থমেলন হয় কি না এবং সেই ইষ্টমন্ত্র শিষ্যের পক্ষে কিপ্রকার গুড়ঙ্কলপ্রদ হইবে, এতদ্বারা তাহাই निझिङ इब्र । यर्थव्भ “अकथइ' भाद्रङ् रुगिब्रा अिहे