পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৫০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রস্তরের মধ্যস্থলে একটী নাগ, তাঙ্গার দক্ষিণ পার্শ্বে একটা বৃক্ষ এবং উপরে ও বামপাশ্বে চক্র। এদেশে ভারতের এবং অমরাবতীর পাথরের রেলই অধিক প্রসিদ্ধ। সাঞ্চির রেলও মন মহে। কিন্তু আমরাবতীর রেল সকলের চেয়ে বৃহৎ ও সুচিত্রিত। ইহার প্রধান রেলের পরিধি ১৯৫ হাত। ভিতরের রেলের পরিধি ১৬৫ হাতের কম নচে । বাহিরের বড় রেল প্রায় ৯ হাত উচ্চ ; ভিতরের বড় রেল প্রায় ৮ হাত দীর্ঘ হইবে। দেবালয়ের বনিয়াদের উপরে বালকের ও নান প্রকার পশুর মূৰ্ত্তি খোদিত করা। স্তম্ভের নিয়ে ও উপরে অৰ্দ্ধচন্দ্র, মধ্যস্থলে পূর্ণচন্দ্রের আকৃতি ; এই সকল স্থলে নানা প্রকার চিত্র বিচিত্র করা। দ্বারের নিকটবর্তী স্তম্ভের চিত্র অন্ত প্রকার। এক স্থানে জনৈক রাজা সিংহাসনে বসিয়া আছেন। ধড়া করিয়া কাপড় পর, মাথায় পাগড়ী ; পাগড়ীর উপরে মণিময় চাদ বসান । দুই হাতে সোণার বালা । শরীরের মধ্যে আর কোথাও পরিচ্ছদ নাই। দক্ষিণ পাশ্বে ও পশ্চাদ দিকে সভাসদগণ। তাহাদেরও বেশ ভূয রাজার মত। জনৈক মন্ত্রী হাত ঘোড় করিয় রাজাকে কি বলিতেছেন। রাজা স্থিরচিত্তে তাঙ্গতে মনোনিবেশ করিয়া আছেন। সম্মুখে অস্ত্রধারী প্রহরী। তাহার সম্মুখে যুদ্ধ সজা। পদাতিকের অস্ত্র তুলিয়া আছে। কোন কোন সৈনিক পুরুষ ঘোড়ার উপর চড়িয়া রহিয়াছে, কেহ বা গজপৃষ্ঠে । অজন্তায় যে সকল মূৰ্ত্তি খোদিত আছে, তাহদের অনেকের গায়ে জামা, চাপ কান প্রভৃতি পরিচ্ছদ দেখা যায়। অনেককে গ্রীসের এবং পারস্যের লোক বলিয়া বোধ হয় ; কিন্তু অমরাবতীতে কাহারও গায়ে পরিচ্ছদ নাই এবং কোন ব্যক্তিকে বিদেশীয় বলিয়া বোধ হয় না। অনেকে অনুমান করেন যে, ৩১৯ খৃঃ অবে পুরী श्रेष्ठ लझानैौ८१ दृष्क्रुद्र अरु शशेंग्र। गाझेदाद्र नभtग्न অমরাবতীর ভিতর দিয়া ঐ দন্ত লইয়া যাওয়া হইয়াছিল । সেই সময়ে এখানকার বাহিরের রেল নিৰ্ম্মিত হয়। ভিতরের রেল সম্ভবতঃ খৃষ্ট চারি শতাব্দীতে সম্পূর্ণ হইয়াছিল । ইহার কতকগুলি প্রস্তরে পূর্কে আরও কি থোদিত ছিল । তাই বোধ হয়, কোন পুরা তন অট্টালিকা ভাঙ্গিয়া এই নূতন দেবালয় নিৰ্ম্মিত | হইয়া থাকিবে। ৬৩৯ খৃঃ অম্বে চীন পরিব্রাজক হিয়াঙ সিয়াং এই স্থানে আসিয়াছিলেন। তাহার প্রায় শত বৎসর পুৰ্ব্বে { ৪৮৩ ] তামর্ষণ এই স্থান পরিত্যক্ত হইয়াছিল। তবু তিনি অমরাবতীর বিস্তর প্রশংসা করিয়াছেন। অমরি ( দেশজ শব্দ ) হাওদা । হাতীর উপর বসিবার আসন ও তাহার উপরে আচ্ছাদন থাকিলে তাহাকে অমরি কহে। ইহাকে আমারি বা অামিরি ও কহে। अशद्भियू (णि) भू-दाश्• ইষ্ণুচ, মরিষ্ণুৰ্ম্ম । নঞ তৎ। মরণধৰ্ম্মশীল নহে। অমরুশতক ( কী ) এক খানি কাব্য। কথিত আছে অমর রাজার নাম দিয়া শঙ্করাচার্য্য এই কাব্য থানি রচনা করিয়াছিলেন। শঙ্করাচার্য্য কঠোর সাধনেই জীবন কাটাইয়াছিলেন, তিনি রসালাপ বুঝিতেন না। তজষ্ঠ মদনমিশ্র রসবিদ্যার বিচারে তাহাকে পরাস্ত করিতেন । ইতি মধ্যে অমরুরাজের মৃত্যু হইল । মৃত্যু ইষ্টলে শঙ্করাচার্য্য আপনার দেহ রাখিয়া নিজে অমরুর শরীরে প্রবেশ করিলেন। অমরু জীবিত হইয়া মদনমিশ্রের পত্নীর সঙ্গে রসসম্ভাষণ করিয়া বিশেষ পাণ্ডিত্য লাভ করিলেন। তাহার পর শঙ্করাচার্য্য অমরুর দেহ হইতে বাহির হইয়। আবার আপনার শরীরে প্রবিষ্ট হইলেন। অমরুর পুনৰ্ব্বার মৃত্যু হইল। এই সময়ে শঙ্করাচার্য্য অমরুশতক পুস্তক রচনা করেন। কাহারও মতে, অমরু নামে জনৈক কবি ছিলেন । এই পুস্তক তাহারই রচিত। (কবিরমর কবিরমরু; কবিশ্চেীয়ে ময়ুরক: ) । অমরেশ (পুং ) ৬-তং । ইন্দ্র। দেবরাজ। অমৰ্ত্ত (ত্রি) মূ-তন্‌ মৰ্ত্তম্। নঞ তৎ। অমর। মরণধৰ্ম্মশূন্ত। ময়ুষ্য নহে। হসি মৃ গ্রিণ, বা ইমিদমিলু পূ भूदिँउाछन्। उँ१.७।४७। ५३ म° क्षाङ्क उँख्द्र उन् (2उTग्न ट्झ ! অমর্ত্য (ত্রি ) মৃঙ, প্রাণত্যাগে—(অম্ল্যাদয়শ্চ। উগ, ৪। ১১১) ইতি যৎ-প্রত্যয়াস্তে নিপাততে বিকল্পেন তুড়াগমশ্চ, গুণঃ। (নিরুক্ত ) ৷ অথবা, মৰ্ত্ত-স্বার্থে যং। নএ-তৎ। মরণশূন্ত। দেবতা। অমর্ত্যভুবন—স্বৰ্গলোক। অমর্য্যাদ (ত্রি) নাস্তি মৰ্য্যাদা সীমা সন্মানো বা যন্ত যত্র বা বহুব্রী গোণে হ্রস্বঃ । সীমা রহিত। সন্মান য়ুহিত। অমর্ষ (পুং ) মূষ ক্ষান্তেী-ঘএ বিরোধে নঞ তৎ। ক্রোধ। অক্ষম। (কোপ ক্রোধামর্ষরোধপ্রতিঘা। অমর )। অলঙ্কার শাস্ত্রমতে ব্যভিচারী ভাব বিশেষ । অমর্ষণ (ত্রি) মৃষ-লু মৰ্ষণম্। নএতেৎ। ক্রোধী। অস হন। ভাবে লুট (#ী)। ক্রোধ। অক্ষমা ।