পাতা:বিশ্বকোষ প্রথম খণ্ড.djvu/৫১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমৃতসর ও চিনি এবং কপূরের সহিত মিশ্রিত করবে। ইহা বিলক্ষণ সুস্বায়ু ও পিত্ত্বর। I অমৃতসর। পঞ্চাবের অন্তর্গত শিখদিগের প্রধান পবিত্র স্থান । এই নগর বাণিজ্যের নিমিত্ত্বও বিশেষ প্রসিদ্ধ। আমরা কাশী বৃন্দাবন প্রভৃতি তীর্থস্থানকে যে রূপ ভক্তি করি, মুসলমামের মক্কাকে ষে রূপ পবিত্র জ্ঞান করির থাকেন, বৌদ্ধদের পক্ষে গয়া যে রূপ পুণ্যক্ষেত্র এবং ইহুদী ও খৃষ্টধৰ্ম্মাবলম্বীদের পক্ষে জেরুস্কুলাম যেমন পবিত্রভূমি, শিখদেয় চক্ষে অমৃতসর ঠিক সেই রূপ। এখানে ‘অমৃতসর’ নামে একটা বৃহৎ সরোবর আছে, তাই শিখরা এই নগরকেও ‘অমৃতসর কহিয়া থাকেন। চারি শত বৎসর পূৰ্ব্বে এখানে সামান্ত একটা পল্লী [ ৪৯১ ] अपूउनग्न গ্রাম বৈ আর কিছুই ছিল না। তখন লোকে ইহাকে ‘চক’ বলিয়া ডাকিত। পরে আকবর বাদশার রাজত্বकारण २८१8 शुः श्राक शिक्षरशग्न कङ्कर्ष खङ्ग ब्रांभमांग সিংহ বৰ্ত্তমান সরোবর খনন কুরাইয় তাহার চারিদিক । ছোট ছোট মন্দিরে সুশোভিত করিলেন। সে সময়ে, এই নগরের নাম রামদাসপুর হইল। শেসে গুরু রামদাসের সস্তান অর্জুমসিংহ এখানে শিখদের রাজধানী कब्रिग्रा हेशद्र ‘अमृउनह' नाभ लिएजम । cनहे नाम । অদ্যাবধি চলিয়া আলিতেছে। এখানে শিখ, হিলু এবং মুসলমান এই তিন জাতির লোক বাস করে। সৰ্ব্বসমেত লোকসংখ্যা প্রায় ১৪৩,০০০ হুইবে । অমৃতসর নগর প্রাচীরে বেষ্টিত এবং তাহাতে তেরট ফটক আছে। পূৰ্ব্বে ইহার চারিদিকে গড়খাই ছিল । তদ্ভিন্ন শক্রর আক্রমণ হইতে নগর রক্ষা করিবার নিমিত্ত শিখরা এখানে কেল্লাও নিৰ্ম্মাণ করিয়াছিলেন। কিন্তু এখন সেই দুর্গ আয় নাই এবং উত্তরদিকের গড়ের খাতও বুজাইয়া ফেলা হইয়াছে। ১৮১৯ খৃঃ অব্দে মহারাজ রণজিৎ সিংহ গোবিন্দগড় নামে পরিখা বেষ্টিত একটা দুর্গ নিৰ্ম্মাণ করাইয়াছিলেন, কেবল उाझाड़े श्राङ७ नटे इग्न नाहे । ১৭৬২ খৃঃ অবো আহ্মদ শার পুত্র তৈমুর অমৃতসরের প্রধান প্রধান মন্দিরগুলি ভাঙ্গিয়া দিয়াছিলেন। শিখরা সেই সকল মন্দির পুনৰ্ব্বার নিৰ্ম্মাণ করেন। তাহার পর আহ্মদ শা স্বয়ং আলিয়া সমস্ত নূতন মন্দির আবার ভাঙ্গিয় ফেছিলেন। কিন্তু কেবল মন্দির ভাঙ্গিয় তাহার মনের ক্ষোভ মিটিল না ; তিনি সেই সকল দেবালয়ের উপর গোহত্যা করিয়া স্থান অপবিত্র করিয়া দিলেন। এই সময়ে অমৃতসরের স্থানে স্থানে মুসলমানদের মসিদও নিৰ্ম্মাণ করা হইয়াছিল। আহ্মদ শ চলিয়া গেলে শিখরা সমস্ত মসিদ ভাঙ্গিয়া সেখানে শূকর কাটিতে লাগিলেন। শেষে বর্তমান মন্দির নিৰ্ম্মিত হইল। অমৃতসর বৃহৎ সরোবর। গ্রীষ্ম মাই, বর্ষ নাই বারমাস জলে পরিপূর্ণ থাকে। সরোবরের ঠিক বক্ষঃস্থলের উপর শিখদের দেবালয়। এখানে রাত্রিদিন শিখদের গ্রন্থ পাঠ হয়। সরোবরের চারিদিগে রাজাদের, ब्राजमईौरमब, अथान यशान गर्कीरजद्र अरः अछाछ .